Advertisement
Advertisement
Haryana

হরিয়ানায় স্কুলবাস দুর্ঘটনায় গ্রেপ্তার প্রিন্সিপাল-সহ ৩, ইদের দিনে ছুটি নেই কেন, উঠছে প্রশ্ন

ইদে সরকারি ছুটির দিনেও কেন স্কুল খোলা? প্রশ্ন তুলছেন অভিভাবকরা।

Haryana bus accident principal among 3 arrested by police
Published by: Amit Kumar Das
  • Posted:April 11, 2024 8:06 pm
  • Updated:April 11, 2024 8:06 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: হরিয়ানায় (Haryana) স্কুল বাস দুর্ঘটনায় ৬ শিশুর মৃত্যুতে কড়া পদক্ষেপ। এই ঘটনায় পুলিশের তরফে অভিযোগ দায়েরের পর স্কুলের প্রিন্সিপাল, সচিব ও বাসের চালককে গ্রেপ্তার করল পুলিশ। পাশাপাশি, ইদে সরকারি ছুটির দিনে কেন স্কুল খোলা? এ নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন অভিভাবকরা। আরও অভিযোগ, মদ্যপ অবস্থায় গাড়ি চালাচ্ছিলেন অভিযুক্ত চালক। যার জেরেই ঘটে এই দুর্ঘটনা।

ইদের (Eid) ছুটি থাকলেও বৃহস্পতিবার খোলা ছিল হরিয়ানার বেসরকারি জিএল পাবলিক স্কুল। সকালে বাসে চেপে স্কুলে যোগ দিতে যাচ্ছিল পড়ুয়ারা। অভিযোগ মদ্যপ অবস্থায় গাড়ি চালাচ্ছিলেন চালক ধর্মেন্দ্র বাসি। পথে নারনাউল এলাকায় উনহানি গ্রামের কাছে একটি গাড়িকে ওভারটেক করার সময় গাছে ধাক্কা মেরে উলটে যায় স্কুলবাস। এতেই মৃত্যু হয়েছে ৬ জন পড়ুয়ার। আহত হয়েছে আরও ২০ জন। ঘটনার পর উদ্ধারকার্যে নামে স্থানীয়রা আহত শিশুদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পাশাপাশি অভিযুক্ত চালককে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

Advertisement

[আরও পড়ুন: মেট্রোয় ‘অশ্লীল’ রিল! অবশেষে ২ তরুণীকে গ্রেপ্তার দিল্লি পুলিশের]

ঘটনার তদন্তে নেমে পুলিশের দাবি, চলককে আটক করে প্রথমেই মেডিকেল করানো হয়। সেখানেই ধরা পরে অভিযুক্ত চালক মদ্যপ অবস্থায় ছিলেন। এই মামলায় দ্রুত তদন্তের নির্দেশ দেন জেলার পুলিশ সুপার। মৃতের পরিবারের সঙ্গে দেখা করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপের আশ্বাস দেওয়া হয়। গঠন করা হয় তদন্তকারী দল। এরপর অভিযুক্ত বাস চালককে গ্রেপ্তার করার পাশাপাশি স্কুলে তল্লাশি অভিযান চালানোর সময় গ্রেপ্তার করা হয় প্রিন্সিপাল দীপ্তি বাসিকে। এছাড়াও গ্রেপ্তার করা হয়েছে স্কুলের সচিব হোশিয়ার সিংকে। অভিযুক্তদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

Advertisement

[আরও পড়ুন: উষ্ণায়নের গ্রাস থেকে বিশ্বকে বাঁচাতে হাতে মাত্র ২ বছর, সতর্কবার্তা রাষ্ট্রসংঘ কর্তার]

তল্লাশি অভিযান চালানোর সময়ে পুলিশ গাড়ির কাগজপত্র খতিয়ে দেখেও চমকে যায়। জানা গিয়েছে, ২০১৮ সালে অর্থাৎ ছয় বছর আগেই বাসটির ফিট সার্টিফিকেট ফুরিয়েছিল। তার পরেও সেটি কীভাবে পথে চলছিল? সেই প্রশ্ন অবশ্য পুলিশের দিকেই ছুড়ে দিচ্ছে জনতা। এদিকে ছুটির দিনেও কেন স্কুল খোলা ছিল জানতে চেয়ে রাজ্যের শিক্ষা দপ্তরের তরফে নোটিস পাঠানো হয়েছে ওই স্কুলকে। শিক্ষামন্ত্রী সিমা তারিখা বলেন, “ছুটির দিনে কোনওভাবেই স্কুল খোলা উচিৎ নয়। পাশাপাশি আমরা ওই বেসরকারি স্কুলকে শোকজ করেছি। এবং সব বেসরকারি স্কুলকে যানবাহন সংক্রান্ত বিষয়ে হলফনামা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছি।

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ