২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বিয়ের নামে প্রতারণার ফাঁদ, যুবকদের কাছ থেকে লক্ষাধিক টাকা লুট মহিলার

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 9, 2018 1:28 pm|    Updated: January 9, 2018 1:28 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে মহিলাদের ধর্ষণ করার অভিযোগ তো হামেশাই ওঠে। এমনকী, স্ত্রী যদি যৌনতায় রাজি না থাকেন, তাহলেও কি স্বামী-স্ত্রী মধ্যে শারীরিক সম্পর্ক হতে পারে? এ নিয়েও তর্কের শেষ নেই। সোজা কথায়, বিয়ের ক্ষেত্রে সাধারণত মহিলারাই প্রতারিত বা অত্যাচারিত হন, এমনটাই মনে করা হয়। কিন্তু, হরিয়ানায় বিয়ে করতে গিয়ে প্রতারণা শিকার হলেন ৩৩ জন পুরুষ। অভিযোগ, সুন্দরী পাত্রী খুঁজে দেওয়ার নাম করে তাঁদের কাছ ৩০ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন অনিতা নামে এক মহিলা। হরিয়ানার সোনপত আদালতে আত্মসমর্পণ করেছে অভিযুক্ত। তাকে পাঁচদিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

[গীতার দাম ৩৮ হাজার টাকা, অতিথি আপ্যায়নে ‘কীর্তি’ হরিয়ানা সরকারের

জানা গিয়েছে, উত্তর-পশ্চিম দিল্লির নারেলা এলাকার বাসিন্দা অনিতা। পুলিশ জানিয়েছে, দিল্লি লাগোয়া হরিয়ানায় বিয়ের নামে প্রতারণার ফাঁদ পেতেছিল অনিতা ও তার শাগরেদরা। সেই ফাঁদে পা দিয়ে প্রতারিত হয়েছেন ৩৩ জন পুরুষ। তাঁদের প্রত্যেকের কাছ থেকে ৪৫ থেকে ৬০ হাজার টাকা করে হাতিয়ে নিয়েছে অভিযুক্তরা। কীভাবে চলত এই প্রতারণার কারবার? পুলিশ জানিয়েছেন, হরিয়ানার বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দা ওই ৩৩ জন যুবককে সুন্দরী পাত্র খুঁজে দেওয়া টোপ দিয়েছিল অনিতা। বলা হয়েছিল, ২৭ ডিসেম্বরে গণ বিবাহের আসর বসবে। সেখানে সুন্দরী পাত্রীদের সঙ্গে বিয়ে হবে ওই যুবকদের। এই কাজের জন্য প্রত্যেকের কাছ থেকে ৪৫ থেকে ৬০ হাজার করে নিয়েছিল অনিতা। ২৭ ডিসেম্বর হরিয়ানার সোনপতের খারখোদ শহরে ওই ৩৩ জন যুবকে আসতে বলেছিল সে। সেখান থেকে বাস চাপিয়ে তাঁদের গণবিবাহের আসরে নিয়ে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু, সেখানে গিয়ে ওই ৩৩ জন যুবক ও তাঁদের পরিবারের লোকেরা বুঝতে পারেন, প্রতারকের খপ্পরে পড়েছেন। বিয়ে দেওয়ার নাম করে টাকা পয়সা নিয়ে পালিয়ে গিয়েছে অনিতা।

[অহিন্দু যুবকদের সঙ্গে ঘোরা মানা হিন্দু তরুণীদের, ফতোয়া বজরঙ্গ দলের]

এই ঘটনায় অনিতা ও তার দুই সঙ্গীর বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন ওই ৩৩ জন যুবক ও তাঁদের পরিবারের লোকেরা। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে প্রতারণা, অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র-সহ একাধিক ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। তবে অভিযুক্তকে ধরতে অবশ্য বিশেষ বেগ পেতে হয়নি পুলিশ। সোনেপত আদালতে আত্মসমর্পণ করেছে অনিতা। তাকে পাঁচ দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।

[প্রেমিককে বাঁচাতে বাবাকে মেরে ফেলল যুবতী! কেন?]      

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement