BREAKING NEWS

১২ কার্তিক  ১৪২৭  শুক্রবার ৩০ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

‘কোনওভাবেই সমর্থনযোগ্য নয়’, হাথরাস ইস্যুতে উত্তরপ্রদেশ পুলিশকে তুলোধোনা উমা ভারতীর

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: October 3, 2020 8:50 am|    Updated: October 3, 2020 12:33 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: হাথরাস গণধর্ষণ কাণ্ড (Hathras Gang Rape) এবং তারপর উত্তরপ্রদেশ পুলিশের একের পর এক বিতর্কিত তথা সন্দেহজনক পদক্ষেপ ক্রমশ অস্বস্তি বাড়াচ্ছে বিজেপির। পরিস্থিতি এতটাই জটিল যে আসরে নামতে হয়েছে খোদ মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে। ইতিমধ্যেই সাসপেন্ড করা হয়েছে ওই এলাকার পাঁচ শীর্ষ পুলিশকর্তাকে। কিন্তু তাতেও বিতর্ক ধামাচাপা দেওয়া যাচ্ছে না। এবার খোদ বিজেপি নেত্রী উমা ভারতীই (Uma Bharti) উত্তরপ্রদেশ পুলিশকে রীতিমতো তুলোধোনা করে ছাড়লেন। তিনি বলছেন, হাথরাসের নির্যাতিতার পরিবারের সঙ্গে পুলিশ যে ব্যবহার করছে, তা রীতিমতো সন্দেহজনক এবং এতে বিজেপি তথা যোগী সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে।

বস্তুত, হাথরাসের গণধর্ষণের পর উত্তরপ্রদেশ পুলিশের একাধিক পদক্ষেপ রীতিমতো সন্দেহের উদ্রেক করে। যেভাবে জোর করে নির্যাতিতার দেহ পুড়িয়ে দেওয়া হল, যেভাবে বিরোধী নেতাদের নির্যাতিতার পরিবারের সঙ্গে দেখা করা থেকে আটকানো হল, আর এখন যেভাবে গোটা এলাকাকে কার্যত দুর্গে পরিণত করে নির্যাতিতার পরিবারকে ‘গৃহবন্দি’ করা হয়েছে, তা নিয়ে প্রশ্ন ওঠাটাই স্বাভাবিক। আর এই মুহূর্তে করোনার কবলে থাকা উমা ভারতী সেই অভিযোগই তুলছেন। গতকাল ৯টি টুইটে তিনি উত্তরপ্রদেশ সরকারকে রীতিমতো তুলোধোনা করেছেন। বিজেপি নেত্রী বলছেন,”ও একটা দলিত পরিবারের মেয়ে ছিল। ওকে রাতের অন্ধকারে পুড়িয়ে দেওয়া হল আর এখন ওর পরিবার পুলিশের নজরদারির মধ্যে আছে। যে ভাবে পুলিশ ওদের বন্দি করে রেখেছে, সেটা উদ্বেগজনক আর কোনওভাবেই সমর্থনযোগ্য নয়।”

[আরও পড়ুন: ‘দোষীদের শাস্তি দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে’, হাথরাস নিয়ে নীরবতা ভেঙে দাবি যোগীর]

উমা ভারতী বলছেন, “কদিন আগেই আপনি রাম মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করলেন, রামরাজ্য প্রতিষ্ঠার দাবি করলেন। কিন্তু এই ঘটনা আর পুলিশের সন্দেহজনক কার্যকলাপ আপনার ভাবমূর্তিকে ক্ষুণ্ণ করছে।” মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের উদ্দেশ্যে উমা ভারতীর বার্তা, আপনার ভাবমূর্তি খুব স্বচ্ছ। দয়া করে নির্যাতিতার পরিবারের সঙ্গে সংবাদমাধ্যমের কর্মীদের দেখা করার সুযোগ দিন। রাজনৈতিক নেতাদের দেখা করার সুযোগ দিন।

উল্লেখ্য, পুলিশের ভূমিকায় যে মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ (Yogi Adityanath) নিজেও পুরোপুরি সন্তুষ্ট নন, তা বোঝা গিয়েছে পাঁচ পুলিশ কর্তাকে সাসপেন্ড করার সিদ্ধান্তে। গতকালই মুখ্যমন্ত্রী হাথরাসের এসপি, ডিএসপি-সহ পাঁচজন পুলিশকর্তাকে সাসপেন্ড করেছেন। যদিও নিন্দুকেরা বলছেন, দেশজুড়ে আন্দোলনের চাপে এই সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছেন যোগী।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement