BREAKING NEWS

১২ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৬ মে ২০২০ 

Advertisement

প্রতি ঘণ্টায় চাই হোম কোয়ারেন্টাইনদের সেলফি! নয়া ঘোষণা কর্ণাটক সরকারের

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: March 31, 2020 10:08 am|    Updated: May 17, 2020 8:11 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কর্ণাটক সরকারের নয়া সিদ্ধান্ত। কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তিদের প্রতি ঘণ্টায় সেলফি তুলে পাঠাতে হবে রাজ্য সরকারকে। এছাড়া বাড়িতে কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তিরা যাতে কেউ মিথ্যা বলতে না পারেন তাই এই সিদ্ধান্ত। দক্ষিণের রাজ্যগুলির মধ্যে কর্ণাটকেই মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮০, করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন ৩ জন। তাই সোমবার থেকে এই নির্দেশিকা জারি করল কর্ণাটক রাজ্য সরকার।

সেলফি তুলতে কে না ভালবাসে তবে সেই সেলফি যদি প্রমাণ হয় হোম কোয়ারেন্টাইনদের তাহলে? হ্যা, কর্ণাটক সরকার এমনই নিয়ম তৈরি করলেন হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তিদের জন্য। কর্ণাটকের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডাঃ কে সুধাকরের কথায়,”যারা হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন তাদের সকলকে নিজের মোবাইল থেকে প্রতি ঘণ্টায় সেলফি তুলে পাঠাতে হবে রাজ্য সরকারের একটি সাইটে। এই নির্দেশিকার অমান্য করলে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তিদের কাছে বা তাদের বাড়িতে পৌঁছে যাবে রাজ্য সরকারের নির্দিষ্ট একটি দল। তারা তখন ওই ব্যক্তিকে সরকারের কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে নিয়ে যাবে। হোম কোয়ারেন্টাইনের নাম করে যাতে কেউ বাইরে ঘুরতে না পারে বা সংক্রমণ ছড়াতে না পারে তাই পদক্ষেপ।” সোমবার দেশে মাত্র একদিনে ২২৭ জনের সংক্রমণের কথা জানা যায়। তাই রাজ্যে এই মারণ ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে নয়া সিদ্ধান্ত নেয় কর্ণাটক সরকার। তবে কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তিদের রাত ১০টা থেকে সকাল ৭টা পর্যন্ত কোনও সেলফি তুলতে হবে না। সেলফি তুলে রাজ্য সরকারকে পাঠানোর জন্য তাদের মোবাইলে প্রথমে গুগল প্লে স্টোর থেকে একটি অ্যাপ ডাউনলোড করতে হবে। তারপর সেই অ্যাপের মাধ্যমে ছবি তুলে পাঠাতে হবে রাজ্য সরকারের উল্লিখিত দপ্তরে। সেই দপ্তরে থাকা পুলিশ আধিকারিকের একটি দল সেই ছবিগুলি পরীক্ষা করবেন।

[আরও পড়ুন:লকডাউনের জেরে বন্ধ রোজগার, খাস কলকাতার বহু মানুষের দিন কাটছে অনাহারে]

ইতিমধ্যেই রাজ্যে তেতাল্লিশ হাজার রাজ্যবাসীকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। তাদের মধ্যে প্রায় তিরিস হাজার লোক তাদের কোয়ারেন্টাইনের সময়সীমা পার করে ফেলেছেন। বর্তমানে ১৪২ জনকে তাদের হোম কোয়ারেন্টাইন থেকে রাজ্য সরকারের অধীনস্থ কোয়ারেন্টাইনে পাঠান হয়।  টানা ২১দিনের লকডাউনে প্রতিটি রাজ্য সরকার চেষ্টা চালাচ্ছেন যাতে এই মারণ ভাইরাসের মোকাবিলা করা সম্ভব হয়।

[আরও পড়ুন:আশঙ্কাই সত্যি, দিল্লির মসজিদের অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়া ছ’জনের মৃত্যু করোনায়]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement