৯ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৬  শুক্রবার ২৪ মে ২০১৯ 

Menu Logo নির্বাচন ‘১৯ দেশের রায় LIVE রাজ্যের ফলাফল LIVE বিধানসভা নির্বাচনের রায় মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কাজের টোপ দিয়ে পাচার করে দেওয়া হয়েছিল ওমানে। পাঁচ মাস বাদে সেখান থেকে উদ্ধার হওয়ার পর বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজকে ধন্যবাদ জানালেন হায়দরাবাদের কুলসুম বানু।

তাঁর অভিযোগ, পাঁচ মাস আগে আকবর নামে এক এজেন্ট ওমানের মাসকটে একটি বিউটি পার্লারে কাজ পাইয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। বলেছিল ৩০,০০০ টাকা মাইনেও দেবে। কিন্তু, মাসকটে যাওয়ার পরই পুরো বিষয়টি বদলে যায়। সেখানে বিউটি পার্লারে কাজ দেওয়ার বদলে কুলসুমকে লাগানো হয় পরিচারিকার কাজে। বাধ্য হয়ে মাসখানেক সেই কাজ করলেও পরে আর তা করতে চাননি তিনি। 

[আরও পড়ুন- পুলওয়ামায় সেনা-জঙ্গি সংঘর্ষে শহিদ এক জওয়ান, নিকেশ ৩ জঙ্গি]

এপ্রসঙ্গে তিনি বলেন, “মাসকটে যাওয়ার পর আমাকে পরিচারিকার কাজে লাগানো হয়েছিল। প্রথমে বাধ্য হয়ে একমাস সেই কাজ করলেও পরে তা করতে চাইনি। তাই আমাকে একটি ঘরে ১০ দিন আটকে রেখে বেধড়ক মারধর করা হয়েছিল। কোনও খাবার পর্যন্ত দেওয়া হয়নি। পরে ওখানে অবস্থিত ভারতীয় দূতাবাসে যোগাযোগ করি। ওখানকার আধিকারিকরা আমাকে চারমাস দূতাবাসেই রেখে দিয়েছিলেন। সেখান থেকে হায়দরাবাদে আমার মেয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করে আমার সমস্ত সমস্যার কথা খুলে বলি।”

[আরও পড়ুন- মণিশংকরের পর দিগ্বিজয়, প্রধানমন্ত্রীকে কুরুচিকর আক্রমণ কংগ্রেস নেতার]

ওমানে আটকে থাকা কুলসুম বানুর কাছে সব ঘটনা শুনে বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের কাছে অভিযোগ জানান তাঁর মেয়ে। এরপরই কুলসুম বানুর কাছ থেকে ৫০০০ রিয়াল (ওমানের মুদ্রা) জরিমানা নিয়ে তাঁকে দেশে ফিরিয়ে দেয় ভারতীয় দূতাবাস। দেশে ফিরে কুলসুম বলেন, “গত ৮ মে ওমান থেকে হায়দরাবাদে ফিরতে পেরেছি আমি। বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ ও ওমানে অবস্থিত ভারতীয় দূতাবাসের জন্যই এটা সম্ভব হয়েছে। এর জন্য সুষমা স্বরাজ ও ভারতীয় দূতাবাসের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ।”

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং