১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘কানপুর পৌঁছবে না বিকাশ দুবে’, এনকাউন্টারের আগে পুলিশকর্মীর মন্তব্য বাড়াচ্ছে সন্দেহ

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: July 10, 2020 4:16 pm|    Updated: July 10, 2020 4:27 pm

An Images

ফাইল ফটো

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বৃহস্পতিবার সকালে উজ্জয়িনীর মহাকাল মন্দির থেকে নাটকীয়ভাবে গ্রেপ্তার হওয়ার পর থেকেই জল্পনা বাড়ছিল। কানপুরের ডন বিকাশ দুবে (Vikas Dubey) -কে আদৌও আদালতের তোলা হবে কিনা তা নিয়ে মনে হয় বাজিও ধরতে শুরু করেছিল জুয়াড়িরা! বেশিরভাগ মানুষ মনে করছিলেন, অন্য পাঁচ সঙ্গীকে যেভাবে এনকাউন্টার (encounter) করা হয়েছে। সেই একই পরিণতি হবে বিকাশের। শুক্রবার সকালে সেই ধারণাই যেন সত্যি হল! সেই সঙ্গে মধ্যপ্রদেশের এক পুলিশকর্মীর বক্তব্যের একটি ভাইরাল হওয়া ভিডিও তাকে মান্যতা দিল।

ওই ভিডিওটি ফুটেজে মধ্যপ্রদেশের এক পুলিশকর্মীকে বলতে শোনা যাচ্ছে, ‘আমার মনে হয় বিকাশ দুবে কোনওভাবেই কানপুর পৌঁছতে পারবে না।’ বিকাশকে মধ্যপ্রদেশ থেকে যে গাড়িতে নিয়ে আসা হচ্ছিল আর যে গাড়িটির দুর্ঘটনা ঘটেছে তা আলাদা বলে জানা গিয়েছে। তাই মধ্যপ্রদেশের পুলিশকর্মীর ভিডিওটি অনেকের কাছে বিশ্বাসযোগ্য বলে মনে হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: প্রকাশিত হল ICSE বোর্ডের দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষার ফল, বাড়ল পাশের হার]

সূত্রের খবর, মধ্যপ্রদেশ থেকে কানপুরের ডন বিকাশ দুবেকে একটি সাফারি গাড়ি করে উত্তরপ্রদেশে নিয়ে আসা হচ্ছিল। কিন্তু, যে গাড়িটার দুর্ঘটনা ঘটেছে সেটি একটি TUV300 SUV। রাস্তায় কেন বিকাশকে সাফারি থেকে নামিয়ে অন্য গাড়িতে তোলা হল সেবিষয়ে এখনও কোনও মন্তব্য করা হয়নি যোগী প্রশাসনের পক্ষ থেকে। ফলে সবার মনে সন্দেহে আরও গাড় হচ্ছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার বিকেলে বিকাশকে পুলিশ এনকাউন্টারে মারতে পারে বলে সন্দেহ প্রকাশ করে সুপ্রিম কোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা হয় জমা পড়ে। মুম্বইয়ের ঘনশ্যাম উপাধ্যায় নামে একজন আইনজীবী ওই পিটিশনটি জমা দিয়েছিলেন। তাঁর অভিযোগ ছিল, ৩ জুলাইয়ের ঘটনার প্রেক্ষিতে কানপুরের ডনের পাঁচ সঙ্গীকে যেভাবে মারা হয়েছে। বিকাশকে সেই একইভাবে এনকাউন্টার করবে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ। আদালত যেন তা আটকায়। কিন্তু, দেশের সর্বোচ্চ আদালতে সেই মামলার শুনানি হওয়ার আগেই সত্যি হল জল্পনা। 

[আরও পড়ুন: ‘গাড়ি উলটে গদি বাঁচিয়েছে’, বিকাশ দুবে এনকাউন্টার কাণ্ডে বিরোধীদের নিশানায় যোগী সরকার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement