BREAKING NEWS

১৪  আশ্বিন  ১৪২৯  সোমবার ৩ অক্টোবর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

অভিনন্দন বর্তমানের মিগ-২১ যুদ্ধবিমানকে বিদায় দিতে চলেছে বায়ুসেনা

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: September 19, 2022 6:19 pm|    Updated: September 19, 2022 6:19 pm

IAF set to retire Abhinandan Varthaman’s MiG-21 squadron on September 30 | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আভিনন্দন বর্তমানের মিগ-২১ যুদ্ধবিমানকে বিদায় দিতে চলেছে ভারতীয় বায়ুসেনা। সেপ্টেম্বর মাসের ৩০ তারিখ শ্রীনগরস্থিত ৫১ নম্বর স্কোয়াড্রনকে বিদায় জানানো হবে। বায়ুসেনার আধুনিকীকরণের জন্যই এই পদক্ষেপ করা হয়েছে বলে খবর।

ধাপে ধাপে সোভিয়েত জমানার মিগ-২১ (Mig-21) বিমানগুলিকে বাতিল করছে বায়ুসেনা। অত্যাধুনিক হাতিয়ার হলেও ‘উড়ন্ত কফিন’ হিসেবে এর বদনামও কম নয়। ফলে ধাপে ধাপে এই জেটগুলিকে সরিয়ে আধুনিকীকরণের পথে হাঁটছে ভারতীয় বায়ুসেনা। একের পর এক দুর্ঘটনার জেরে সেপ্টেম্বরের ৩০ তারিখের মধ্যেই একটি ‘মিগ-২১ বাইসন‘ (Mig-21) স্কোয়াড্রনকে বিদায় জানাতে চলেছে বায়ুসেনা। আর ২০২৫ সালের মধ্যেই সোভিয়েত জমানার এই সমস্ত ফাইটার জেটগুলিকে বাহিনী থেকে সরিয়ে দেওয়া হবে।

[আরও পড়ুন: ‘আপনি শুধু নিজের কথা ভেবেছেন’, সুইসাইড নোটে মোদিকে কাঠগড়ায় তুলে আত্মহত্যা কৃষকের]

বায়ুসেনার এক শীর্ষ আধিকারিককে উদ্ধৃত করে এএনআই জানিয়েছে, শ্রীনগরে মোতায়েন মিগ-২১ বিমানের ৫১ নম্বর স্কোয়াড্রনটিকে ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে তুলে নেওয়া হবে। সেই জায়গায় আসবে দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি তেজস জুদ্ধবিমান। বলে রাখা ভাল, পাকিস্তানে সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের পর পাক বায়ুসেনার পালটা হামলা রুখে দিয়েছিল এই স্কোয়াড্রনই। 

২০১৯ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলায় জম্মু থেকে শ্রীনগরের যাওয়ার পথে সিআরপিফ-এর কনভয়ে বিস্ফোরণ ঘটায় জইশ-ই-মহম্মদ জঙ্গি গোষ্ঠী। ওই বিস্ফোরণে শহিদ হন ৪০ জন জওয়ান। ১২ দিনের মাথায় আকাশপথে পাকিস্তানের বালাকোটে ঢুকে জইশের জঙ্গিঘাঁটিতে পালটা হামলা চালায় ভারতীয় বায়ুসেনা। ধ্বংস করে দেয় বেশ কয়েকটি জঙ্গিঘাঁটি। এরপর আকাশপথে ভারতে ঢুকে পালটা হামলার চেষ্টা চালায় পাকিস্তানি যুদ্ধ বিমান এফ-১৬। যদিও ভারতীয় বায়ুসেনা পাকিস্তানের সেই পরিকল্পনা সফল হতে দেয়নি। উইং কমান্ডার অভিনন্দন মিগ-২১ নিয়ে পাক যুদ্ধবিমানটিকে ধাওয়া করে সেটিকে ধ্বংস করে দেন। কিন্তু অধিকৃত কাশ্মীরে তাঁর বিমানটি ভেঙে পড়ে। অভিনন্দকে বন্দি করে সে দেশের সানা। এদিকে অভিনন্দনের (Abhinandan Varthaman) মুক্তির দাবিতে সোচ্চার হয় ভারত-সহ গোটা বিশ্ব। পাকস্তানকে হুঁশিয়ারি দেয় রাষ্ট্রসংঘও। অবশেষে কূটনৈতিক চাপের কাছে মাথা নত করতে বাধ্য হয় পাকিস্তান। মুক্তি দেওয়া হয় অভিনন্দন বর্তমানকে।

[আরও পড়ুন: নজরে চিন-পাকিস্তান, যুদ্ধে বাজিমাত করতে ‘প্রোজেক্ট চিতা’ শুরু করছে ভারতীয় ফৌজ]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে