Advertisement
Advertisement
মাওবাদীদের আইইডি বিস্ফোরণ

রাস্তায় আইইডি বিস্ফোরণ, ছত্তিশগড়ে মাওবাদী হামলায় নিহত ৩ নাগরিক

ঘটনার পর কাঙ্কের-সহ গোটা রাজ্যের জঙ্গল এলাকায় নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে।

IED blast in the road of Kanker, Chattisgarh by Maoist killed 3 persons
Published by: Sucheta Sengupta
  • Posted:September 24, 2019 1:57 pm
  • Updated:September 24, 2019 2:02 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের ছত্তিশগড় মাওবাদী হামলা। কাঙ্কেরে আইইডি বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ৩ সাধারণ নাগরিককে খতম করল মাওবাদীরা। আতঙ্ক ছড়িয়েছে গোটা এলাকায়। কেন্দ্রীয় বাহিনীর টহল এড়িয়ে ফের এই এলাকায় মাওবাদীরা সক্রিয় হচ্ছে বলে আশঙ্কা বাড়ছে নিরাপত্তা বাহিনীর।

[আরও পড়ুন: সাবধান! আর মাত্র কয়েকঘণ্টার মধ্যে ধেয়ে আসছে প্রবল ঘূর্ণিঝড় হিক্কা]

ছত্তিশগড়ের দক্ষিণাংশের জঙ্গলঘেরা জেলা কাঙ্কের। বেশ কয়েকবছর ধরেই এই এলাকা মাওবাদীদের অন্যতম শক্ত ঘাঁটি হয়ে উঠেছে। পাশের জেলা বস্তারেও সেই একই পরিস্থিতি। একটা সময়ে এই সমস্ত জেলাগুলির বাসিন্দারা মাওবাদী আতঙ্কে দিনেদুপুরেও পথে বেরতে পারতেন না। আচমকা হামলা, প্রাণহানি রোজকার ব্যাপার। ছত্তিশগড়ে মাওবাদী দমনে কেন্দ্রীয় সরকার কম সচেষ্ট হয়নি। প্রথম মোদি সরকারের শেষপর্যায়ে এসে তখনকার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং ঘোষণা করেন, ছত্তিশগড় আপাতত মাওবাদী আশঙ্কামুক্ত। এই এলাকায় তাঁদের শক্তি খর্ব হয়ে গিয়েছে। তখনকার মতো ছত্তিশগড়বাসী স্বস্তি পেলেও, সমূলে যে মাওবাদীদের উৎপাটিত করা যায়নি, তা বোঝা গিয়েছে পরবর্তী সময়েই।

Advertisement

বিগত লোকসভা ভোটেও ছত্তিশগড়ের বিভিন্ন জায়গায় মাওবাদীরা ভোটপ্রক্রিয়া বিঘ্নিত করতে বারবার চলেছে হামলা। বিশেষত নিরাপত্তা বাহিনীকে টার্গেট করে। তবে তাতে শহিদ হয়েছেন কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা। প্রাণহানি হয়েছে সাধারণ মানুষেরও। ফলে মন্ত্রীর আশ্বাসের পরও বাসিন্দারা ততটা নিশ্চিন্ত হতে পারেননি। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও বারবার এরাজ্যের জঙ্গলমহলে মাওবাদীদের পু্নর্বাসনের পথে ফেরানোর দৃষ্টান্ত তুলে ধরে ছত্তিশগড় সরকারকে সতর্ক করেছেন।

Advertisement

[আরও পড়ুন: মুম্বইয়ের স্টেশনে হেলায় পড়ে পণ্ডিত রবিশংকরের মহামূল্যবান নথি, উঠছে প্রশ্ন]

আর এখনও পরিস্থিতির কোনও বদল হয়নি। মঙ্গলবারও কাঙ্কেরে হামলা চালাল মাওবাদীরা। পথে আইইডি বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে তারা। যার জেরে বলি হতে হল ৩ সাধারণ নাগরিককে। ফলে নতুন করে আতঙ্ক ফিরেছে কাঙ্কেরে। ঘটনার পর আরও জোরদার করা হয়েছে নিরাপত্তা। জঙ্গলের কোর এরিয়া এবং সীমানা অঞ্চলগুলিতে বাড়ানো হয়েছে টহলদারি।

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ