BREAKING NEWS

৫ মাঘ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১৯ জানুয়ারি ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান! ১৩ জানুয়ারি থেকে দেশে শুরু হতে পারে করোনার টিকাকরণ

Published by: Biswadip Dey |    Posted: January 5, 2021 5:48 pm|    Updated: January 5, 2021 6:21 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আমেরিকা, ব্রিটেনের মতো বিশ্বের বহু দেশেই শুরু হয়ে গিয়েছে করোনার (Coronavirus) টিকাকরণ। এই অবস্থায় ভারতে কবে ভ্যাকসিনের (COVID vaccine) ডোজ দেওয়া শুরু হবে তা নিয়ে নানা জল্পনা চলছিল। অবশেষে ১৩ জানুয়ারি থেকে দেশে ভ্যাকসিন দেওয়া শুরু হবে বলে মনে করা হচ্ছে। আজই স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়, চূড়ান্ত অনুমতি পেয়ে যাওয়ার দশ দিনের মধ্যেই টিকাকরণ শুরু করে দেওয়া হবে। প্রসঙ্গত, গত রবিবারই অনুমতি দেওয়া হয় টিকাকরণের। এবার স্বাস্থ্যমন্ত্রকের বিবৃতির পর থেকেই দানা বেঁধেছে জল্পনা।

কী করে অনুমোদিত ভ্যাকসিন সাধারণের কাছে পৌঁছবে? মঙ্গলবার এক সাংবাদিক বৈঠকে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচিব রাজেশ ভূষণ বিষয়টি পরিষ্কার করতে গিয়ে বলেন, প্রথমে ভ্যাকসিন নির্মাতাদের তরফে ভ্যাকসিন পৌঁছে দেওয়া হবে মুম্বই, চেন্নাই, কলকাতা ও হরিয়ানার সরকারি মেডিক্যাল স্টোর ডিপার্টমেন্টের ডিপোয়। সেখান থেকে ৩৭টি রাজ্য ভ্যাকসিন কেন্দ্রে সেগুলিকে পৌঁছে দেওয়া হবে। তারপর তা পৌঁছবে প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলিতে। সেই সঙ্গে তিনি জানান, সারা দেশের ২৯ হাজার কোল্ড স্টোর রয়েছে, যেখানে ভ্যাকসিনগুলি সঠিকভাবে সংরক্ষিত করে রাখা হবে। দেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে বলতে গিয়ে তিনি জানান, অ্যাকটিভ কেসের সংখ্যা আড়াই লক্ষের নিচে নেমে এসেছে। এবং তা দ্রুত আরও কমছে। 

[আরও পড়ুন : তাজমহলে গেরুয়া ঝান্ডা ওড়ানো নিয়ে তুঙ্গে বিতর্ক, ভিডিও ভাইরাল হতেই গ্রেপ্তার ৪]

এদিকে মঙ্গলবারই দুই ভ্যাকসিন নির্মাতা সংস্থা সেরাম ইনস্টিটিউট (Serum Institute of India) ও ভারত বায়োটেকের (Bharat Biotech) তরফে যৌথ বিবৃতি দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হয়, একজোট হয়েই দুই সংস্থার ভ্যাকসিন বিতরণ করা হবে। যত দ্রুত সম্ভব ভারতে টিকাকরণ শুরু হবে। সেই সঙ্গে এও জানানো হয়েছে, তাদের ভ্যাকসিন তারা সারা বিশ্বেই বণ্টন করবে। এদিকে গত রবিবার কেন্দ্রীয় ড্রাগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা DGCI সেরাম ইনস্টিটিউটের কোভিশিল্ড ও ভারত বায়োটেকের কোভ্যাক্সিনকে জরুরি ভিত্তিতে ব্যবহারের অনুমতি দেয়। প্রথমে ভ্যাকসিন দেওয়া হবে স্বাস্থ্যকর্মী, জরুরি পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত কর্মী ও বয়স্কদের। 

[আরও পড়ুন : নয়াদিল্লির সৌন্দর্য বাড়াতে শতাব্দী প্রাচীন হনুমান মন্দির ভাঙার জের, প্রবল বিক্ষোভ VHP’র]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement