BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

স্পেশাল ছাড়া ৩০ জুন পর্যন্ত অন্য ট্রেন না চালানোর সিদ্ধান্ত রেলের

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: May 14, 2020 11:29 am|    Updated: May 14, 2020 12:02 pm

An Images

ফাইল ফটো

সুব্রত বিশ্বাস: করোনা সংক্রমণ রুখতে গত ২৫ মার্চ থেকে দেশজুড়ে টানা লকডাউন চলছে। দুদিন আগেই তা ফের বাড়ানো হবে বলে ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। লকডাউন থাকা সত্ত্বেও যেভাবে এই মারণ ভাইরাসের প্রকোপ বাড়ছে তাতে চিন্তিত কেন্দ্রীয় সরকার। আর তাই কিছু ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া হলেও লকডাউন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এর মাঝেই আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত সমস্ত রিজার্ভেশন টিকিট বাতিল করার কথা ঘোষণা করল ভারতীয় রেল কর্তৃপক্ষ।

স্পেশাল ট্রেন ও শ্রমিক স্পেশাল ছাড়া আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত দূরপাল্লার সমস্ত মেল, এক্সপ্রেস ও প্যাসেঞ্জার ট্রেন চলাচল বন্ধ রাখার পরিকল্পনাই রয়েছে রেলের। আইআরসিটিসি (IRCTC) জনসংযোগ আধিকারিক সিদ্ধার্থ সিং ‘সংবাদ প্রতিদিন’কে জানিয়েছেন, প্রথম লকডাউনের সময় ৩০ জুন পর্যন্ত টিকিট বাতিল করা হয়েছিল। এই সময়ের মধ্যে যাঁদের টিকিট রিজার্ভ করা ছিল তাঁদের পুরো টাকা ফেরত দেওয়া হবে। ৩০ জুন পর্যন্ত স্পেশাল ছাড়া অন্য কোনও ট্রেনের টিকিট বুকিং হবে না। তিনি আরও স্পষ্ট করে বলেন, ট্রেন না চললে টিকিট মিলবে না। আপাতত নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী, ৩০ জুন পর্যন্ত রেগুলারের ট্রেনগুলি চলবে না। এই সিদ্ধান্ত পরিবর্তন হলে তা নতুন করে জানান হবে যাত্রীদের। দেশজুড়ে সাড়ে পাঁচশোরও বেশি শ্রমিক ট্রেন চলছে। সাড়ে সাত লক্ষের বেশি পরিযায়ী শ্রমিক ও আটকে পড়া মানুষজন ঘরে ফিরেছেন। এখনও এই ট্রেন চলবে। মঙ্গলবার থেকে ১৫ জোড়া বিশেষ ট্রেন চলছে। দিল্লি থেকে ১৫টি শহরের মধ্যে যোগসূত্র রক্ষা করতে রাজধানীর সমতুল্য এই বিশেষ ট্রেন চলা শুরু করেছে।

[আরও পড়ুন: ‘ইদে শর্তসাপেক্ষে জমায়েতের অনুমতি দিন’, কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি কংগ্রেস নেতার ]

বৃহস্পতিবার সকালেও এই বিষয়ে একটি বিবৃতি দেওয়া হয় রেলের তরফে। তাতে উল্লেখ করা হয়েছে, আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত যাঁরা দেশের বিভিন্ন প্রান্তে যাওয়ার জন্য রিজার্ভেশন করিয়েছিলেন সেগুলি বাতিল করা হচ্ছে। তবে শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনগুলি যেভাবে চলছে সেভাবেই চলবে।

[আরও পড়ুন: মিলবে ৩ বছর কাজ করার সুযোগ, আম জনতার জন্য নয়া ভাবনা ভারতীয় সেনার ]

এছাড়া ভারতীয় রেল কর্তৃপক্ষের থেকে আরও জানানো হয়েছে, ১৩ মে থেকে অনলাইন বুকিংয়ের সময় সমস্ত যাত্রীর গন্তব্যস্থলের বিবরণ নথিভুক্ত করছে আইআরসিটিসি। কন্ট্রাক্ট ট্রেসিংয়ের জন্য প্রয়োজন পড়লে আগামীতে এই তথ্য ব্যবহার করা হবে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement