BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘ইদে শর্তসাপেক্ষে জমায়েতের অনুমতি দিন’, কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি কংগ্রেস নেতার

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: May 14, 2020 11:13 am|    Updated: May 14, 2020 11:13 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: তবলিঘি জামাতের ঘটনাতেও শিক্ষা হয়নি। ইদ-উল-ফিতরে ফের জমায়েত চাইছেন কর্ণাটকের কংগ্রেস নেতা সিএম ইব্রাহিম (CM Ibrahim)। তাঁর দাবি, চিকিৎসকদের পরামর্শ মেনে হলেও ইদে ইদগাহ এবং মসজিদগুলিতে জমায়েত করার অনুমতি দিতে হবে। এই মর্মে মুখ্যমন্ত্রী বিএস ইয়েদুরাপ্পাকে চিঠিও দিয়েছেন ওই প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। কংগ্রেসের এই সংখ্যালঘু নেতা বলছেন, সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিয়ে হলেও ইদে মুসলিমদের জমায়েতের অনুমতি দিতে হবে।

letter

যত দিন যাচ্ছে, দাপট বাড়াচ্ছে মারণ ভাইরাস। তাই করোনা মোকাবিলায় দেশজুড়ে দ্বিতীয়বার লকডাউনের সময়সীমা বাড়িয়েছে কেন্দ্র। দেশজুড়ে সমস্তরকম ধর্মীয় সমাবেশ বন্ধ রাখা হয়েছে। তবু বেশ কিছু রাজ্যে দেখা যাচ্ছে প্রশাসনকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে ধর্মীয় সমাবেশ হচ্ছে। যার সাম্প্রতিকতম উদাহরণ হল মধ্যপ্রদেশ। যেখানে বুধবারই সাধুদের এক অনুষ্ঠানে শ’য়ে শ’য়ে মানুষের ভিড় হয়। কর্ণাটকের এই বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা চাইছেন, ইদেও তাঁদের জমায়েতের অনুমতি দেওয়া হোক।

[আরও পড়ুন: অধরা বাড়ি ফেরার স্বপ্ন, দেশের বিভিন্ন প্রান্তে পথের বলি ১৬ জন পরিযায়ী শ্রমিক]

মুখ্যমন্ত্রী বি এস ইয়েদুরাপ্পাকে একটি চিঠি লিখে তিনি বলেছেন, “চিকিৎসকদের সঙ্গে আলোচনা করুন। ওদের পরামর্শ নিন। এবং একটা গ্রহণযোগ্য সিদ্ধান্ত নিন। ইদের দিন রাজ্যজুড়ে ইদগাহ এবং মসজিদে মুসলিমদের জমায়েত করে নমাজ পড়ার অনুমতি দিন। সমস্তরকম সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিয়ে অন্তত দুপুর ১টা পর্যন্ত জমায়েত করতে দিন।” কংগ্রেস নেতার এই চিঠিতে রীতিমতো সরগরম কন্নড় রাজনীতি।বিজেপির দাবি, সংখ্যালঘু তোষণের চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছে গিয়েছেন ইব্রাহিম। সেজন্যই মুসলিমদের সুরক্ষার থেকে নমাজকে এগিয়ে রাখছেন তিনি।

[আরও পড়ুন: দেশে করোনা আক্রান্ত ৭৮ হাজার পেরল, একলাফে অনেকটা বাড়ল মৃতের সংখ্যা]

উল্লেখ্য, একাধিক সংখ্যালঘু সংগঠন লকডাউনে ইদের জমায়েত না করতে অনুরোধ করেছে মুসলিমদের। এমনকী এরাজ্যের ইমামদের সংগঠনও। তারাও চাইছে, ইদের কথা ভেবে যেন লকডাউন শিথিল করা না হয়। কিন্তু কংগ্রেসের এই বর্ষীয়ান নেতা চাইছেন, ইদে জমায়েত করে নমাজ পড়তে। যা নিঃসন্দেহে ঝুঁকিপূর্ণ।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement