BREAKING NEWS

২৬ শ্রাবণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১৩ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

‘বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগের আপ্রাণ চেষ্টা চলছে’, হাল ছাড়েননি ইসরো চেয়ারম্যান

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: September 7, 2019 8:51 pm|    Updated: September 7, 2019 9:40 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের আশার কথা শোনালেন ইসরো চেয়ারম্যান কে শিবন। তিনি জানিয়ে দিলেন, এখনও হাল ছাড়েনি ইসরো। চন্দ্রযান ২-এর ল্যান্ডার বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা এখনও চলছে। সেই সঙ্গে চন্দ্রযানের অরবিটার এখনও ইসরোকে তথ্য পাঠাচ্ছে বলেও জানিয়ে দেন তিনি।

[আরও পড়ুন: ‘এভাবেও ফিরে আসা যায়’, হাজারও ব্যর্থতা সামলে সাফল্যের আশায় বুক বাঁধছে ইসরো]

শুক্রবার মধ্যরাতে চাঁদের মাটিতে অবতরণের সময় ল্যান্ডার বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগ ছিন্ন হয়ে যায় ইসরোর। তারপর একপ্রকার মুসড়ে পড়েছে গোটা দেশ। তবে, এরপরই ইসরোর তরফে কয়েকজন বিজ্ঞানী জানান, চন্দ্রযান মিশন একেবারেই ব্যর্থ নয়। মিশনের ৯৫ শতাংশ সফল হয়েছে। ব্যর্থতা মাত্র ৫ শতাংশ। শনিবার সন্ধেয় সেই বক্তব্যতেই শিলমোহর দিলেন ইসরো প্রধান। একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে সাফ জানিয়ে দিলেন, “চন্দ্রযান মিশন ব্যর্থ নয়। আমরা শুধু কিছুটা তথ্য হারিয়ে ফেলেছি মাত্র। ল্যান্ডার বিক্রমের সঙ্গে এখনও যোগাযোগের চেষ্টা করছি। যোগাযোগের জন্য একটা মাধ্যম খোঁজার চেষ্টা চলছে। আগামী ১৪ দিন এই চেষ্টা চলতে থাকবে। সবরকমভাবে চেষ্টা করা হবে। আশা করছি, ১৪ দিনের মধ্যে কোনও একটা ব্যবস্থা করা সম্ভব হবে।” ইসরো প্রধান এদিন জানান, “চাঁদের মাটিতে চন্দ্রযানের সফট ল্যান্ডিং প্রক্রিয়ার প্রথম তিনটি ধাপ একেবারে ঠিকঠাক এগিয়েছে। কিন্তু, তারপর যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। তবে, অরবিটার এখনও তথ্য পাঠাচ্ছে।” উল্লেখ্য, অরবিটারের মাধ্যমেই এবার বিক্রমকে খোঁজার চেষ্টা চালানো হবে বলে ইসরো আগেই জানিয়েছে।

[আরও পড়ুন: ‘এভাবেও ফিরে আসা যায়’, হাজারও ব্যর্থতা সামলে সাফল্যের আশায় বুক বাঁধছে ইসরো]

এদিন কে শিভনকে প্রশ্ন করা হয়, চন্দ্রযান মিশনের ধাক্কা কি অন্য প্রজেক্টের উপর প্রভাব ফেলবে? এ প্রশ্নের উত্তরে ইসরো প্রধান বলেন, এই প্রকল্পের ধাক্কা অন্য কোনও প্রকল্পকে কোনওভাবেই প্রভাবিত করতে পারবে না। বিশেষ করে গগণযানকে। এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির প্রশংসা করেন তিনি। ইসরো প্রধান বলেন, “প্রধানমন্ত্রী সবসময় আমাদের পাশে আছেন। ওনার কথা শুনেই আবারও আমাদের মনোবল বেড়েছে।” উল্লেখ্য, বিক্রমের অবতরণ নিয়ে কোনও তথ্য না পাওয়া গেলেও, জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক স্তরে প্রশংসিত হচ্ছে ইসরো। এমনকী পাকিস্তানের এক মহাকাশ গবেষকও প্রশংসা করেছে ভারতের মহাকাশ গবেষণা সংস্থার।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement