২ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ২০ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: খালি হাতে এসেছি, খালি হাতে যাব – জীবনের এই মহৎ দর্শন সকলেই জানেন৷ কিন্তু মেনে চলেন ক’জন? সংখ্যাটা একেবারেই হাতে গোনা৷ আর সেই বিরল মানুষদের তালিকা থেকেই খুঁজে পাওয়া গেল একজনকে৷ বন্যা বিপর্যস্ত কেরলের বাসিন্দা নৌশাদ৷ বন্যাত্রাণে তিনি নিজের পুঁজির সমস্তটা মুক্তহস্তে দান করে দিয়েছেন একবারও না ভেবে৷ আর রাতারাতিই তিনি হয়ে উঠেছেন নেটদুনিয়ার আরেক হিরো৷

[আরও পড়ুন: রাজ্যপালের চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করলেন রাহুল, স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলতে যাবেন কাশ্মীরে!]

কোচির মধ্য চল্লিশের বস্ত্র ব্যবসায়ী নৌশাদ৷ পুজো এবং আসন্ন উৎসবের মরশুমে বিক্রি করবেন বলে সদ্য বাজার করে এনেছিলেন তিনি৷ নতুন নতুন জামাকাপড় ভরা অন্তত ১০টি বস্তা৷ সব ছিল বাড়িতে৷ এমনই সময়ে তুমুল বৃষ্টি ভাসিয়ে দিল গোটা কেরলকে৷ কোচির অর্ধেকাংশই চলে গিয়েছে জলের নিচে৷ এই পরিস্থিতিতে শুধুমাত্র সরকারি সেনা, উদ্ধারকারী দলের সদস্যদের উপর ভরসা না করে নিজেরাই কাজে নেমেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা৷ যেখানে তুলনায় ভাল পরিস্থিতি, সেই এলাকায় গিয়ে বাড়ি বাড়ি থেকে ত্রাণ সামগ্রী সংগ্রহ করছেন স্বেচ্ছাসেবকদের দল৷ সেভাবেই তাঁরা পৌঁছে গিয়েছিলেন নৌশাদের বাড়িতে৷ দুর্গতদের জন্য কিছু দান করার আবেদন করা হয় তাঁকে৷

সেই আবেদনে সাড়া দিয়ে নৌশাদ যা দিলেন, তা দেখে অবাক স্বেচ্ছাসেবকরাও৷ এক, দুটো নয়, একেবারে ১০টি বস্তাভরতি নতুন জামাকাপড় এনে দেন তিনি৷ শুধু তাই-ই নয়৷ সেসব বস্তা মাথায় চাপিয়ে তিনি নিজেই নৌকা করে উদ্ধারকারী দলের সঙ্গে পৌঁছে যান ত্রাণ শিবিরে৷ তাঁর কথায়, ‘যখন এই পৃথিবী ছেড়ে চলে যাব, তখন তো কিছু সঙ্গে নিয়ে যেতে পারব না৷ লাভ-লোকসানের কথাই যদি বলেন, তাহলে দুর্গতদের জন্য জামাকাপড় দেওয়ার মধ্যেই আমার লাভ লুকিয়ে রয়েছে৷এভাবেই কি আমাদের ইদ পালন করা উচিৎ নয়?’ অথচ এই ১০ বস্তা জামাকাপড় বিক্রি করলে অন্তত বিনিয়োগের টাকাটা তো হাতে পেতেন নৌশাদ! একথা শুনে তিনি বলছেন, ‘এখন আর লাভ-ক্ষতির কথা ভাবছিই না৷ বিপদগ্রস্ত মানুষগুলোকে সাহায্য না করলে নিজের কাছে কী বলব?’

[আরও পড়ুন: বিমানে যান্ত্রিক ত্রুটি, বড়সড় দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেলেন গড়করি]

জনপ্রিয় অভিনেতা রাজেশ শর্মা নৌশাদের এমন ব্যতিক্রমী উদ্যোগের ভিডিও পোস্ট করেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়৷ প্রচুর মানুষ তা দেখে মুগ্ধ৷ আরও ছড়িয়ে পড়ছে৷ রাজ্যের মন্ত্রীরও তাঁর এই কাজের প্রশংসায় পঞ্চমুখ৷ বলা হচ্ছে, এত বড় বিপর্যয়ের মাঝে নিজেদের এত বড় হৃদয় দিয়েই সকলকে ভরসা জুগিয়ে চলেছেন নৌশাদের মতো গুটিকয়েক মানুষজন৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং