BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনার বলি? রক্ত পরীক্ষার রিপোর্ট আসার আগেই লাদাখে বৃদ্ধের মৃত্যুতে প্রশ্ন

Published by: Bishakha Pal |    Posted: March 9, 2020 9:02 am|    Updated: March 12, 2020 1:04 pm

An Images

ফাইল ফটো

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: লাদাখেও এবার করোনার প্রকোপ! রবিবার লাদাখে মৃত্যু হল করোনায় আক্রান্ত সন্দেহে হাসপাতালে ভরতি এক বৃদ্ধের। সম্প্রতি ইরান থেকে দেশে ফিরেছিলেন তিনি। তারপরই করোনায় আক্রান্ত সন্দেহে শনিবার রাতে তাঁকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়। রবিবার বিকেলে তাঁর মৃত্যু হয় বলে হাসপাতাল সূত্রে খবর।

বছর ৭৬-এর ওই বৃদ্ধের নাম মহম্মদ আলি। প্রাক্তন পুলিশকর্মী তিনি। ইরান থেকে দেশে ফেরার পরই অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। তাঁর শরীরে COVID-19 বাসা বেঁধেছে বলে আশঙ্ক করা হয়। শনিবার রাতে তাঁকে হাসপাতালে ভরতি করেন পরিবারের লোকের। তাঁর রক্তের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। করোনার উপসর্গ ছাড়া মহম্মদ আলির শরীরে আরও কিছু সমস্যা দেখা দিচ্ছিল। তাই আগে থেকেই কোনও আগাম সতর্কতা নিতে পারছিলেন না চিকিৎসকরা। তাই পরীক্ষার রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত কার্যত কিছু করার ছিল না তাঁদের। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে পরীক্ষার রিপোর্ট আসার আগেই মৃত্যু হয় মহম্মদ আলির।

[ আরও পড়ুন: ব্যর্থ লন্ডনে পালানোর চেষ্টা! মুম্বই বিমানবন্দরে আটক ইয়েস ব্যাংক কর্তার মেয়ে ]

লেহর এক স্বাস্থ্য আধিকারিক মোতিপ দোরজয় অবশ্য বলেছেন, “ইউরিনারি ইনফেকশনজনিত কারণে মৃত্যু হয়েছে ওই বৃদ্ধের। এছাড়া তাঁর শরীরের অবস্থা ভাল ছিল না। তাই তাঁকে আরও সতর্কতা অবল্মবন করতে হত। কিন্তু তিনি তা করেননি। তাঁর রক্তের নমুনা দিল্লি পাঠানো হয়েছিল। দিল্লির মেডিক্যাল টিমের সঙ্গে আমরা প্রতিনিয়ত যোগাযোগ রাখছিলাম। আগামী দু’দিনের মধ্যে রিপোর্ট আসার কথা ছিল। কিন্তু তার আগেই মারা গেলেন মহম্মদ আলি।”

সূত্রের খবর, মহম্মদ যে বিমানে দেশে ফিরেছিলেন সেখাই বিমানেই দুই করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি ছিলেন। অনুমান, তাঁদের থেকেই ভাইরাস সংক্রমিত হয়েছে তাঁর দেহে।

এই নিয়ে করোনা সন্দেহে দু’জনের মৃত্যু হল দেশে। রবিবার পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ জেলায় সৌদি আরব ফেরত এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়। তিনি আরবে শ্রমিকের কাজ করতেন বলে খবর। দমদম থেকে ট্রেনে বাড়ি ফেরার সময় অসুস্থ হয়ে পড়েন। রবিবার সকাল সাড়ে দশটা নাগাদ তাঁকে অসুস্থ অবস্থায় মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে, চিকিৎসকরা সমস্ত শুনে তাঁকে করোনার চিকিৎসার জন্য তৈরি বিশেষ ওয়ার্ডে ভরতি করে নেন। তাঁর রক্তের নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানো হয় বেলেঘাটায়। কিন্তু তাঁর ক্ষেত্রেও একই ঘটনা ঘটে। রক্ত পরীক্ষার রিপোর্ট আসার আগে মৃত্যু হয় মুর্শিদাবাদের ওই যুবকেরও।

[ আরও পড়ুন: দিল্লিতে বানচাল আত্মঘাতী হামলার ছক, ধৃত আফগানিস্তান ফেরত ISIS দম্পতি ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement