২২ আষাঢ়  ১৪২৭  মঙ্গলবার ৭ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

শর্ত মানলে সীমান্ত থেকে সেনা সরাবে চিন! বৈঠকের পর দিল্লিকে রিপোর্ট দিল সেনা

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: June 7, 2020 8:55 am|    Updated: June 7, 2020 12:38 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শনিবার লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখার (LAC) কাছে অনুষ্ঠিত ভারত ও চিনের সেনা আধিকারিকদের বৈঠকের ফলাফল নিয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানাল সেনাবাহিনী। ভারতীয় সেনাবাহিনীর মুখপাত্র জানিয়েছেন, “লাদাখের চলতি অচলাবস্থা নিয়ে এদিন দুই দেশের সেনাবাহিনীর লেফটেন্যান্ট জেনারেল পর্যায়ের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৈঠক চলে কয়েক ঘণ্টা। বৈঠকে কিছুটা ইতিবাচক আলোচনা হয়েছে। এদিনের বৈঠক ছিল দুই দেশের সেনাবাহিনীর মধ্যে আস্থাবর্ধক পদক্ষেপের অংশ। ঠিক হয়েছে, আগামী দিনে এই ইস্যুতে কূটনৈতিক অসামরিক পর্যায়ে আলোচনা চালিয়ে যাওয়া হবে। বৈঠকে দুই দেশের সেনা প্রতিনিধিদের মধ্যে এদিন যা যা আলোচনা ও অগ্রগতি হয়েছে তা সেনাপ্রধান জেনারেল মনোজ মুকুন্দ নারভানে, সেনা সর্বাধিনায়ক জেনারেল বিপিন রাওয়াত, প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের আধিকারিকদের জানানো হয়েছে।”

সূত্রের খবর, গতকাল দুপুরে বৈঠক শেষ হওয়ার কিছুক্ষণ পরই তার রিপোর্ট প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরকে, প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংকে (Rajnath Singh), বিদেশমন্ত্রী এস জয়শংকরকে এবং জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভালকে সঙ্গে সঙ্গে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে লাদাখে সেনাবাহিনীর ১৪ নম্বর কোরের তরফ থেকে। বৈঠকের ফলাফল এবং পরবর্তী পদক্ষেপ কী করা যায় সে ব্যাপারে তাঁরা খতিয়ে দেখছেন। সূত্রের খবর, ভারতের তরফে দাবি পেশ করা হয়, চিনা সেনা এপ্রিল মাসে তাদের পুরনো অবস্থানে ফিরে যাক। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় অনুপ্রবেশ থেক পিছু হটে ভারতীয় ভূখণ্ড থেকে সেনা সরাক তারা। জবাবে চিন সাফ জানিয়েছে, ‘ভারত কারাকোরাম পাসের কাছে পাকা রাস্তা তৈরির কাজ বন্ধ করলেই তারা সরে যাওয়ার ব্যাপারে ভাবনা চিন্তা করবে। রাস্তা তৈরি বন্ধ না হলে তারা সরবে না।’ অর্থাৎ পুরনো অচলাবস্থাই এদিন বহাল রইল বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল। তবে ‘সম্ভাব্য সমাধানসূত্র’ নিয়ে দুই পক্ষই এদিন অনেকগুলি বিকল্প উপায় নিয়ে আলোচনা করেছে। সেজন্য এদিনের আলোচনাকে ইতিবাচক বলা হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: সীমান্ত বিবাদ নিয়ে শেষ ভারত-চিন সামরিক বৈঠক, উৎকণ্ঠা বাড়ছে সাউথ ব্লকে]

লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখার এপারে ভারতের চুশুল। বিপরীত দিকে চিনের মালডো এলাকা। এদিন মালডো এলাকায় লালফৌজের সেনাঘাঁটিতে আমন্ত্রিত ছিলেন ভারতীয় সেনা অফিসাররা। সকাল সাড়ে এগারটার নাগাদ বৈঠক শুরু হয়। ভারতীয় সেনা অফিসারদের নেতৃত্ব দেন লেফটেন্যান্ট জেনারেল হরিন্দর সিং (Lt Gen Harinder Singh)। চিনের তরফে ছিলেন ওয়েস্টার্ন থিয়েটার কমান্ডের মেজর জেনারেল লিন লিউ। বৈঠক চলে প্রায় ঘণ্টা চারেক। বৈঠকের শেষে আলোচনার ফলাফল কিছুক্ষণের মধ্যেই লিন লিউ জানিয়ে দেন তাঁর রিপোর্টিং বস তথা লালফৌজের শীর্ষ কমান্ডার জু ওইলিংকে। সূত্রের খবর, ওয়েস্টার্ন থিয়েটার কমান্ডের জু ওইলিং এবং জেনারেল ঝাও জোঙ্গকি এরপর পিপলস লিবারেশন আর্মির পরবর্তী রণকৌশল ঠিক করবেন। তবে লাদাখে অচলাবস্থা দূর করতে এবং উত্তেজনা কমাতে এদিনের বৈঠক আদৌ কতটা কার্যকরী হয়েছে তা নিয়ে ভারত বা চিন কেউই মুখ খুলতে চায়নি।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement