Advertisement
Advertisement

রাফালের নথি শত্রুদের হাতে! বিপন্ন দেশের নিরাপত্তা

রাফালে ইস্যুতে সুপ্রিম কোর্টে হলফনামা কেন্দ্রের।

central on Leakage of Rafale deal papers.
Published by: Soumya Mukherjee
  • Posted:March 14, 2019 1:56 pm
  • Updated:March 14, 2019 4:28 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক : জাতীয় নিরাপত্তার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও সংবেদনশীল রাফালের নথি। তার সঙ্গে জড়িত অন্য দেশের সঙ্গে ভারতের চুক্তিও। তাই রাফালের নথির প্রকাশ্যে আসা জাতীয় নিরাপত্তা নিয়েই সংকট তৈরি করেছে। এই নথির ফটোকপি করাও গর্হিত অপরাধ। যারা এই কাজ করেছে, তারা সরকারি গোপনীয়তা আইন ভেঙেছে। বুধবার সুপ্রিম কোর্টে হলফনামা দিয়ে এমনটাই জানাল কেন্দ্র।

রাফালে নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের রায় পুনর্বিবেচনার আবেদন করেছেন প্রাক্তন প্রতিরক্ষামন্ত্রী যশবন্ত সিনহা, অরুণ শৌরি এবং বিখ্যাত আইনজীবী ও সমাজকর্মী প্রশান্ত ভূষণ। সেই মামলাতেই ইংরেজি সংবাদপত্র ‘দ্য হিন্দু’-তে প্রকাশিত এক রিপোর্ট আদালতের কাছে জমা দিয়েছিলেন তাঁরা। তার প্রেক্ষিতে কেন্দ্র অভিযোগ করে, রাফালে মামলায় আবেদনকারীদের জমা দেওয়া এই সমস্ত নথি সরকারের হেফাজত থেকে চুরি গিয়েছে। এটা আদালতের অবমাননা এবং ভারতীয় সরকারি গোপনীয়তা বিধির লঙ্ঘন বলেও দাবি করা হয়। কোনও কর্মরত বা অবসরপ্রাপ্ত কর্মী এই কাজের সঙ্গে যুক্ত বলেও জানায় কেন্দ্র।

Advertisement
[অসতর্কতার মাশুল, কৃষ্ণনগরে গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যু মহিলা হোমগার্ডের]

এত গোপনীয় নথি সরকারের হেফাজত থেকে চুরি গিয়েছে কীভাবে সেই প্রশ্ন তুলে নরেন্দ্র মোদি সরকারকে তীব্র আক্রমণ করা শুরু করেন বিরোধীদের একাংশ। যদিও চুরির দাবির দু’দিন পরেই অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে বেণুগোপাল জানান, কোনও নথি চুরি যায়নি। তবে বেআইনিভাবে প্রতিরক্ষা মন্ত্রক থেকে রাফালে চুক্তির কিছু নথির প্রতিলিপি নেওয়া হয়েছে। এই বিষয়ে তদন্ত চলছে বলেও জানান তিনি। এরপরই আদালত নির্দেশ দেয়, এই বিষয়ে কী তদন্ত হয়েছে তার সমস্ত তথ্য হলফনামার মাধ্যমে জানাতে হবে কেন্দ্রকে।

Advertisement
[দিল্লিতে মুকুলের বাড়িতে অর্জুন, আজই বিজেপিতে যোগদান!]

সেই আদেশ অনুযায়ীই বুধবারে শীর্ষ আদালতে হলফনামা জমা দেওয়া হয়। সেই হলফনামাতে জানানো হয়েছে, এই রাফালে মামলার পুনর্বিবেচনার জন্য আবেদনকারীরা অত্যন্ত গোপন ও সংবেদনশীল নথি প্রকাশ করেছেন। এই কাজের ফলে সংকটে পড়েছে দেশের নিরাপত্তা। এই ভাবে সরকারি আইন ভাঙার শাস্তি জেল বা জরিমানা। একই সঙ্গে কেন্দ্র সরকার আরও অভিযোগ করে যে এই সব সংবেদনশীল নথি দেশের শত্রুদের হাতে পড়লে জাতীয় নিরাপত্তা বিঘ্নিত হতে পারে। ইতিমধ্যেই, তা দেশের শত্রুদের হাতে পৌঁছেছে কি না তা নিয়েও উদ্বিগ্ন সরকার। পাশাপাশি কেন্দ্রের তরফে অভিযোগ করা হয়, যে দেশের সুরক্ষার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এই সব নথি বেআইনি ভাবে আদালতে জমা দিয়ে আবেদনকারীরা সুপ্রিম কোর্টকে ভুল পথে চালিত করতে চাইছেন।

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ