১৯ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  সোমবার ৬ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

লায়লা-মজনুর থেকেও শক্তিশালী মোদির প্রেম, কটাক্ষ আসাদউদ্দিন ওয়েইসির

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: April 14, 2019 5:23 pm|    Updated: September 16, 2020 3:30 pm

Love of Modi-Nitish Kumar is stronger than Laila-Majnu

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারের প্রেম লায়লা ও মজনুর থেকেও শক্তিশালী। শনিবার বিহারের কিষানগঞ্জে নির্বাচনী জনসভা করতে এসে এই মন্তব্য করলেন অল ইন্ডিয়া মজলিস-ই-ইত্তেহাদুল মুসলেমিন দলের প্রধান আসাদউদ্দিন ওয়েইসি। তিনি বলেন, “নীতীশ কুমার ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মধ্যে ঘনিষ্ঠ প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে। ওদের ভালবাসা লায়লা-মজনুর থেকেও শক্তিশালী। তবে যখন নীতীশ কুমার ও প্রধানমন্ত্রী মোদির প্রেমের গল্প লেখা হবে তখন আমাকে জি়জ্ঞাসা করবেন না এই দুজনের মধ্যে লায়লা কে আর মজনু কে? ওটা আপনারাই ঠিক করে নেবেন।”

[আরও পড়ুন-মথুরায় ১১০ ফুট গভীর কুয়ো থেকে উদ্ধার পাঁচ বছরের শিশু]

এরপরই মোদি ও নীতীশ কুমারকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, “শুনুন লায়লা ও মজনু, যখন আপনাদের প্রেমের গল্প লেখা হবে তখন ভালবাসার থেকে ঘৃণার কথাই বেশি লেখা থাকবে। এমনকী যখন ওরা একসঙ্গে হয়েছিলেন তখন ভারতে বসবাসকারী হিন্দু ও মুসলিমদের মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধি পেয়েছিল তারও উল্লেখ থাকবে।”

[আরও পড়ুন- মোদির বিরুদ্ধেই ভোটে লড়বেন প্রধানমন্ত্রীর মতো দেখতে এককালের ‘ভক্ত’]

২০১৫ সালে বিহারের বিধানসভা নির্বাচনে নীতীশ কুমারের নেতৃত্বাধীন জেডি(ইউ), কংগ্রেস ও লালুপ্রসাদের আরজেডি সঙ্গে জোট বেঁধে লড়াই করে ক্ষমতায় এসেছিল। কিন্তু, আড়াই বছর পরেই সেই জোট ভেঙে বিজেপির সঙ্গে হাত মিলিয়ে সরকার গঠন করে। এবার লোকসভা নির্বাচনে তারা বিজেপি ও রামবিলাস পাসওয়ানের এলজিপি-র সঙ্গে জোট বেঁধে বিহারের ১৭টি আসনে প্রার্থী দিয়েছে। বাকি ১৭টিতে বিজেপি ও ছ’টিতে প্রার্থী দিয়েছে এলজিপি।

[আরও পড়ুন-রাফালে চুক্তির পর আম্বানির সংস্থার কর মুকুবের দাবি খারিজ প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের]

শনিবার সেই প্রসঙ্গ উল্লেখ করে মোদি ও নীতীশ কুমারের তীব্র সমালোচনা করেন আসাদউদ্দিন ওয়েইসি। তবে তাঁদের পাশাপাশি কিষানগঞ্জের সভা থেকে মুসলিমদের নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করার জন্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মানেকা গান্ধীকেও একহাত নেন। বিজেপির ‘সবকা সাথ, সবকা বিকাশ‘ স্লোগানকে মিথ্যে বলে উল্লেখ করে বলেন, “ভোট প্রচারে গিয়ে মানেকা গান্ধী মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষকে তাঁকে ভোট দেওয়ার জন্য হুমকি দিয়েছেন। বলেছেন, তাঁকে ভোট না দিলে মুসলিমরা চাকরি পাবেন না। তাঁর এই মন্তব্য প্রধানমন্ত্রীর ‘সবকা সাথ, সবকা বিকাশ’-র স্লোগানকে মিথ্যে প্রমাণিত করেছে।”

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে