৯ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৬  শুক্রবার ২৪ মে ২০১৯ 

Menu Logo নির্বাচন ‘১৯ দেশের রায় LIVE রাজ্যের ফলাফল LIVE বিধানসভা নির্বাচনের রায় মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিবাহিত মহিলার সঙ্গে পালিয়ে গিয়েছিল। এর জেরে অভিযুক্ত ও তার পরিবারের দুই মহিলাকে গাছে বেঁধে গণপিটুনি দেওয়া হল। ঘটনাটি ঘটেছে মধ্যপ্রদেশের রাজধানী ভোপাল থেকে ২৩০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত ধর এলাকায়। এই ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে এখনও পর্যন্ত পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ধর এলাকার অর্জুন কলোনির বাসিন্দা মুকেশের স্ত্রীকে নিয়ে পালিয়ে গিয়েছিল স্থানীয় এক ব্যক্তি। পরে তাকে বিয়েও করে। কিছুদিন বাদে এই বিষয়ে কথা বলবে বলে ওই ব্যক্তিকে ডেকে পাঠায় মুকেশ। এরপর পরিবারের দুই সদস্যকে সঙ্গে নিয়ে তার সঙ্গে দেখা করতে আসে ওই ব্যক্তি। সেই সুযোগে তাদের একটি গাছে বেঁধে লাঠি দিয়ে পেটাতে থাকে মুকেশ। এই কাজে তার পরিবারের সদস্যরাও সাহায্য করে বলে অভিযোগ।

[আরও পড়ুন- বিদ্যাসাগরের স্মৃতি আগলে ঝাড়খণ্ডের বাঙালি সমাজ, প্রত্যন্ত গ্রামেই চলছে দরিদ্রসেবা]

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই সময়ে প্রচুর লোক ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকলেও মুকেশ বা তার পরিবারের সদস্যদের কেউ বাধা দিতে আসেনি। নিগৃহীতদের মধ্যে একজন নাবালিকা থাকলেও কেউ তাকে বাঁচাতে আসেনি। উলটে এই মারধরের দৃশ্যটির ভিডিও তোলে ওখানে দাঁড়িয়ে থাকা লোকজনদের কেউ কেউ। পরে সেটা সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্টও করে দেয়। যা ভাইরাল হতেই নড়েচড়ে বসে প্রশাসন। এই ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে শুরু হয় তদন্ত। পরে পাঁচ অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

[আরও পড়ুন- শিক্ষকের সহযোগিতায় দোকানেই আস্ত লাইব্রেরি খুলে ফেললেন চা-বিক্রেতা]

এপ্রসঙ্গে ধরের পুলিশ সুপার সঞ্জীব মুলে বলেন, “এই ঘটনায় একটি অভিযোগ দায়ের হয়েছে। অভিযোগপত্রে ন’জনের নাম থাকলেও এখনও পর্যন্ত পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়েছে। বাকি অভিযুক্তদের খোঁজে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। আশা করা যায় খুব তাড়াতাড়ি তাদের গ্রেপ্তার করা সম্ভব হবে।”

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং