১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ভারতে ঢোকার অনুমতি দেয়নি সরকার, স্ত্রীকে পাকিস্তানে রেখেই দেশে ফিরতে হল যুবককে

Published by: Bishakha Pal |    Posted: July 7, 2020 9:34 am|    Updated: July 7, 2020 10:13 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: লকডাউন মানুষকে অনেক কিছু দেখিয়েছে। অনেকের সম্পর্কই চাপানউতোরের মধ্যে দিয়ে গিয়েছে। লকডাউনের কারণে স্বামী ও স্ত্রী দেশের দুই প্রান্তে আটকে পড়েছে, এমন খবরও সামনে এসেছে। কিন্তু তাই বলে দু’টি আলাদা দেশে? এমনই ঘটনা ঘটেছে লীলারাম নামে এক যুবকের সঙ্গে। লকডাউনের সময় পাকিস্তানে আটকে পড়েছিলেন তিনি ও তাঁর পরিবার। কিন্তু লকডাউন খোলার পর স্ত্রীকে রেখে দেশে ফিরে আসতে হল তাঁকে।

ব্যাপারটা কী? ফেব্রুয়ারি মাসে স্ত্রীকে নিয়ে লীলারাম পাকিস্তানের মিরপুরে শ্বশুরবাড়ি গিয়েছিলেন। অসুস্থ শাশুড়িকে দেখতে গিয়েছিলে তাঁরা। তখন কি আর তিনি জানতেন স্ত্রীকে পাকিস্তানেই রেখে আসতে হবে? এমনিতেই লকডাউনের কারণে মাস খানেক পাকিস্তানে আটকে ছিলেন তাঁরা। আর যখন দেশে ফেরার সময় হল, লীলারামকে একাই ফেরত আসতে হল। কারণ তাঁর স্ত্রীর ভারতীয় পাসপোর্ট নেই। ভারতের নাগরিক নন তিনি। তাই ভারত সরকার লীলারাম এবং তাঁর তিন সন্তানকে ফিরে আসতে অনুমতি দেয়। কিন্তু তাঁর স্ত্রী জনতা (৩৩) ভারতে আসার অনুমতি পাননি। গত সপ্তাহে স্ত্রীকে ছাড়াই দেশে ফিরেছেন লীলারাম।

[ আরও পড়ুন: কাশ্মীরে সাতসকালে সেনা-জঙ্গি গুলির লড়াই, শহিদ এক জওয়ান, খতম এক জেহাদিও ]

তিনি জানিয়েছেন, “আমরা ইসলামাবাদে ভারতীয় দূতাবাস-সহ সব জায়গায় গিয়েছি। কিন্তু জনতাকে ফিরে আসার অনুমতি মেলেনি। স্ত্রীকে রেখে সন্তানদের নিয়ে আমি একাই ভারতে ফিরে আসি।” ১৯৮৬ সালে ভারতে আসেন লীলারাম। নাগরিকত্বও পান। ১২ বছর আগে জনতাকে বিয়ে করেন তিনি। লং টার্ম ভিসায় ভারতে ছিলেন জনতা। তাঁর নাগরিকত্ব নেই। কয়েক মাস আগে ‘নো অবজেকশন টু রিটার্ন টু ইন্ডিয়া’ ভিসা নিয়ে ৬০ দিনের জন্য পাকিস্তানে যান তিনি। ফ্যামিলি ভিসার মেয়াদ ফুরিয়ে যাওয়ার পর ভারতীয় দূতাবাস লীলারাম ও তাঁর তিন সন্তানকে দেশে ফেরার অনুমতি দেন। কিন্তু জনতা অনুমতি পাননি। লীলারামের বক্তব্য, বহুদিন ধরেই জনতার নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করছেন তাঁরা। কিন্তু এখনও নাগরিকত্ব পাননি জনতা। আর তার ফলে এখন তাঁকে পাকিস্তানে থাকতে হচ্ছে।

সীমন্ত লোক সংস্থার সভাপতি হিন্দু সিং সোধা বলেন, “আমি বিষয়টি শুনেছি। ভারত সরকারের কাছে জনতার ভিসা বাড়ানোর জন্য অনুরোধ করেছি।” তিনি আরও বলেন, এলটিভিতে ভারতে অবস্থানরত একজন পাকিস্তানি নাগরিক তিন মাসের জন্য রিটার্ন ভিসা পেতে পারেন। এই সময়ের মধ্যে যদি সে না ফিরে আসে, তবে তাকে নতুন ভিসার জন্য আবেদন করতে হবে। সোধা বলেন, যে সমস্ত ব্যক্তিকে মানবিক কারণে ভারতে ফিরে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হোক। নিজেদের দোষে তাঁরা পাকিস্থানে নেই। লকডাউনের কারণে আটকে পড়েছেন। সেটি বিবেচনা করার আর্জি জানিয়েছেন সোধা।

[ আরও পড়ুন: করোনা LIVE UPDATE: করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত গোয়ার প্রাক্তন স্বাস্থ্যমন্ত্রী সুরেশ আমোনকর ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement