BREAKING NEWS

৫ মাঘ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১৯ জানুয়ারি ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

আপ বিধায়ককে কালি মাখানোর পুরস্কার! অভিযুক্তকে ৫১ হাজার টাকা দিলেন কংগ্রেস নেতা

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: January 13, 2021 8:27 pm|    Updated: January 13, 2021 8:27 pm

An Images

আপ বিধায়ক সোমনাথ ভারতী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:‌ তাঁর উপর উঠেছে আপ বিধায়ক সোমনাথ ভারতীকে কালি মাখানোর অভিযোগ। হিন্দু যুব বাহিনীর সেই জেলা আহ্বায়ক জীতেন্দ্র সিং পেলেন ৫১ হাজার টাকা আর্থিক পুরস্কার। সেটি আবার তাঁকে দিলেন উত্তরপ্রদেশের (Uttar Pradesh) রায়বরেলির বিক্ষুব্ধ কংগ্রেস (Congress) বিধায়ক রাকেশ সিং। যাঁর সঙ্গে আবার সম্প্রতি BJP’র সখ্য বেড়েছে।

২০২২ সালে উত্তরপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনে লড়াই করার কথা জানিয়েছে আম আদমি পার্টি। এজন্য দলের বিধায়ক—নেতাদের উপর দায়িত্ব দিয়েছেন AAP সুপ্রিমো অরবিন্দ কেজরিওয়াল। তাঁদেরই একজন বিধায়ক সোমনাথ ভারতী। সম্প্রতি যোগী প্রশাসনের বিরুদ্ধে মুখও খুলেছেন। যে কারণে তাঁর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয় এবং গ্রেপ্তারও করা হয়। এই পরিস্থিতিতে সম্প্রতি তাঁর গায়ে কালি ছেটান হিন্দু যুব বাহিনীর (Hundy Yuva Bahini) সেই জেলা আহ্বায়ক জীতেন্দ্র সিং। পরে সাংবাদিকদের আবার বলেনও, মুখ্যমন্ত্রী আদিত্যনাথের (Yogi Adityanath) উদ্দেশে খারাপ মন্তব্য করায় এই কাজ করেছেন তিনি। তাঁর কথায়, ‘‌‘সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে দিয়ে ‌সোমনাথ ভারতী, মুখ্যমন্ত্রী আদিত্যনাথের উদ্দেশে খারাপ মন্তব্য করেছিলেন। আমাদের রাগ হওয়ার কারণেই আমরা এই কাজ করেছি।’‌’‌

[আরও পড়ুন: দৃষ্টান্ত তৈরি করতে আগে নেতা–মন্ত্রীদের ভ্যাকসিন দিন, মোদিকে চিঠি পুদুচেরির মুখ্যমন্ত্রীর]

সেই জীতেন্দ্রকেই বুধবার সংবর্ধনা দিলেন রাকেশ সিং। পাশাপাশি তাঁর হাতে তুলে দেন ৫১ হাজার টাকা আর্থিক পুরস্কার। পরে সাংবাদিকদের এই প্রসঙ্গে বলেন, ‘‌‘সোমনাথ ভারতী অনেক কম শাস্তি পেয়েছে। তবুও আমার মনে হয়েছে এই কাজের জন্য ওই যুবকের ৫১ হাজার টাকা আর্থিক পুরস্কার পাওয়া উচিত। এতে ভারতীর কোনও ক্ষতি না হলেও উপযুক্ত জবাব পেয়েছেন তিনি। ওই যুবক অন্তত রায়বরেলির এবং হিন্দুদের সম্মান বাঁচিয়েছে।‌’‌’ এদিকে, তাঁকে পরিকল্পনা করে জেলবন্দি করে রেখেছে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ। সেই নিয়ে সরবও হয়েছেন গ্রেপ্তার হওয়া আপ বিধায়ক।

[আরও পড়ুন: ‘কৃষকরা নিজেরাই জানেন না তাঁরা কী চান’, বিজেপি সাংসদ হেমা মালিনীর মন্তব্যে বিতর্ক]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement