২ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

১৪ এপ্রিলের পর বাড়ানো হোক লকডাউনের সময়সীমা, কেন্দ্রকে অনুরোধ একাধিক রাজ্যের!

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: April 7, 2020 5:42 pm|    Updated: April 7, 2020 5:42 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ১৪ এপ্রিলের পর লকডাউনের সময়সীমা বাড়ানো হোক। এই মর্মে কেন্দ্রের কাছে অনুরোধ জানিয়েছে একাধিক রাজ্য সরকার। বিশেষজ্ঞরাও পরামর্শ দিয়েছে লকডাউন (Lockdown) বাড়িয়ে দেওয়ার। রাজ্যগুলির অনুরোধ নিয়ে ইতিমধ্যেই ভাবনাচিন্তা শুরু করে দিয়েছে কেন্দ্র। এমনটাই দাবি সংবাদ সংস্থা এএনআইয়ের। এক কেন্দ্রীয় সরকারি সুত্রকে উদ্ধৃত করে সংবাদ সংস্থাটি দাবি করছে, কেন্দ্রের কাছে লকডাউন বাড়ানো নিয়ে একাধিক রাজ্যের অনুরোধ গিয়ে পৌঁছেছে। কেন্দ্র এখন ওই রাজ্যগুলির অনুরোধ খতিয়ে দেখছে।

ministers meeting in lockdown extenstion
লকডাউন নিয়ে মন্ত্রী গোষ্ঠীর বৈঠক

যদিও সব রাজ্য লকডাউন বাড়াতে চাইছে কিনা তা স্পষ্ট নয়। কারণ, ইতিমধ্যেই এরাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী লকডাউনে গরিব মানুষের অবস্থা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। মেঘালয় সরকার জানিয়েই দিয়েছে ১৫ এপ্রিল থেকে তাঁরা বেশ কিছু পরিষেবায় ছাড় দেবেন। অন্যদিকে আবার লকডাউন বাড়ার পক্ষের দাবিও জোরাল। ইতিমধ্যেই তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও (KCR) প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখে লকডাউন বাড়াতে অনুরোধ করেছেন। উত্তরপ্রদেশেও লকডাউন বাড়ানোর ইঙ্গিত দিয়েছেন রাজ্যের এক শীর্ষস্থানীয় আমলা। তাছাড়া, মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, কেরলের মতো রাজ্যগুলিতে যে হারে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে, তাতে এই রাজ্যগুলিতেও লকডাউন ওঠা নিয়ে সংশয় আছে।

[আরও পড়ুন: ‘লকডাউনের সময়সীমা বাড়ানো নিয়ে সিদ্ধান্ত হয়নি’, মন্ত্রিগোষ্ঠীর বৈঠকের পর জানালেন রাজনাথ]

করোনার পরিস্থিতি নিয়ে ইতিমধ্যেই বার দুই বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সঙ্গে কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেই বৈঠকের সময় অনেকেই লকডাউনের সময়সীমা বাড়ানোর পক্ষে সওয়াল করছেন বলে খবর। মারণ ভাইরাস করোনার (Corona) কবল থেকে দেশবাসীকে মুক্ত করতে ২১ দিনের লকডাউন যথেষ্ট নয় বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরাও। আবার, লকডাউনের জেরে দেশের অর্থনীতির অবস্থা ক্রমে সঙ্গিন হচ্ছে। ‘দিন আনি দিন খাই’ মানুষের মুখে অন্য জোটা দায়। এই পরিস্থিতিতে লকডাউন নিয়ে দ্বিধাবিভক্ত কেন্দ্র। কাল থেকে এই নিয়ে দফায় দফায় বৈঠক করেও কোনও সমাধানসুত্র বের করা যায়নি। মঙ্গলবারও দিল্লিতে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের (Rajnath Singh) বাড়িতে এনিয়ে মন্ত্রী গোষ্ঠীর বৈঠকে হয়। সেই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর, নারী ও শিশুকল্যাণ মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি ও খাদ্য মন্ত্রী রামবিলাস পাসওয়ান-সহ অন্য গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রীরা। সেই বৈঠকেও কোনও সমাধানসুত্র মেলেনি।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement