৯ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মাসুদ আজহার শয়তানের কুকুর, ফের তোপ আসাদউদ্দিন ওয়েইসির

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: March 3, 2019 4:00 pm|    Updated: September 16, 2020 3:38 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মহম্মদের জনক মাসুদ আজহার শয়তানের কুকুর ও মানবতার কসাই বলে মন্তব্য করলেন অল ইন্ডিয়া মজলিস-এ-ইত্তেহাদুল মুসলিমিন (এআইএমআইএম)-র প্রধান আসাদউদ্দিন ওয়েইসি। শনিবার হায়দরাবাদে দলের ৬১তম প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত জনসভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন, বোমা ছোঁড়া বা মানুষকে আক্রমণ ইসলামের পরিচয় নয়। মাসুদ আজহারকে মৌলানা বলে অভিহিত করা হলেও আমি মনে করি ও শয়তানের কুকুর এবং মানবতার কসাই। ভারতের যারা শত্রু তারা এখানে বসবাসকারী মুসলমানদেরও শত্রু।

গতকালের সভা থেকে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ভারতের বিরুদ্ধে পরমাণু ও মুসলিম কার্ড ব্যবহার করছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। বলেন, “মাঝেমধ্যেই নিজের দেশের সংসদে দাঁড়িয়ে অদ্ভুত কথাবার্তা বলেন খান। অ্যাটম বোমা আছে বলে দাবি করেন। আমাদের কাছে কি অ্যাটম বোমা নেই ? আমাদেরও আছে। ভারতের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানাতে মুসলিম সেন্টিমেন্ট কাজে লাগানোর চেষ্টা করছেন উনি। কিন্তু, মুসলিমরা এই দেশকে ওনার থেকেও ভাল করে চেনেন। এসব ছেড়ে ওনার লস্কর-ই-তইবা আর জইশ-ই-শয়তানকে নিয়ন্ত্রণ করা উচিত। কখনও কখনও আবার ভারতীয় শাসক টিপু সুলতান আর বাহাদুর শাহ জাফরের সম্পর্কে মিথ্যে কথা বলে মানুষকে বোকা বানানোর চেষ্টাও করেন। কিন্তু, উনি ভুলে যান যে টিপু সুলতান কখনওই হিন্দুবিরোধী ছিলেন না। শাসনকর্তা হিসেবে যে থাকত উনি তারই বিরোধিতা করতেন। ধর্ম দেখতেন না।”

[এই দুই ব্যক্তিকেই জীবনের আদর্শ মনে করেন অভিনন্দন বর্তমান]

আসাদউদ্দিন ওয়েইসির সমালোচনার হাত থেকে রেহাই পাননি পাকিস্তানের বিদেশমন্ত্রী শাহ মহম্মদ কুরেশিও। শুক্রবার তিনি বলেছিলেন, মাসুদ পাকিস্তানে আছে। কিন্তু, খুব অসুস্থ। গতকাল এই মন্তব্যের কড়া নিন্দা করে ওয়েইসি বলেন, ‘পুলওয়ামার হামলায় জইশের জড়িত থাকার প্রমাণ চেয়েছেন পাকিস্তানের বিদেশমন্ত্রী। আর কত প্রমাণ চাই ওদের? মাসুদের সংগঠন জইশ-ই-মহম্মদকে তো আগেই নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। ৬০ বছর আগে এই হায়দরাবাদে এসে মহম্মদ আলি জিন্নাহ আমাদের পাকিস্তানের যাওয়ার আবেদন জানিয়েছিলেন। কিন্তু, আমরা বলেছিলাম ভারত আমাদের দেশ। যারা ইসলামের অর্থ বোঝেন তাঁরা এদেশে থেকে গিয়েছিলেন। আর যারা রাজাকার তারা জিন্নাহের প্ররোচনায় পা দিয়ে পাকিস্তানে গিয়েছিল।’

[কুম্ভমেলার মুকুটে জুড়ল তিনটি বিশ্বরেকর্ডের পালক]

পাকিস্তান ও জইশকে আক্রমণের পাশাপাশি দলের প্রতিষ্ঠা দিবসের সভা থেকে অভিনন্দন বর্তমানকে দেশের ফেরার জন্যও অভিনন্দন জানান তিনি। পাশাপাশি পুলওয়ামা হামলা জন্য মোদিকে সরকারকে দায়ী করে কিছু প্রশ্নও তোলেন। তাঁর কথায়, ‘পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার পালটা হিসেবে বালাকাটের জইশ ঘাঁটিতে এয়ার স্ট্রাইক করার জন্য আমরা সরকারের প্রশংসা করেছি। কিন্তু, প্রধানমন্ত্রীর জানানো উচিত যে কীভাবে জঙ্গিরা এত পরিমাণ বিস্ফোরক একসঙ্গে জড়ো করল? কীভাবে তাদের হাতে আমেরিকার অস্ত্র পৌঁছাল? কীভাবে তাদের গোয়েন্দারা ব্যর্থ হল?’

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement