BREAKING NEWS

১৫ ফাল্গুন  ১৪২৬  শুক্রবার ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

পাখির চোখ বিধানসভা, বাংলা থেকে কেন্দ্রে আসতে পারেন আরও দুই মন্ত্রী

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: January 24, 2020 8:55 am|    Updated: January 24, 2020 8:56 am

An Images

ফাইল ফটো

নন্দিতা রায়, নয়াদিল্লি: খুব শীঘ্রই কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় রদবদলের সম্ভাবনা রয়েছে। সংসদের বাজেট অধিবেশনের প্রথম পর্ব শেষ হবে ফেব্রুয়ারি মাসের ১১ তারিখ। তারপরই দ্বিতীয় নমো মন্ত্রিসভার প্রথম রদবদল হতে পারে। আর বাংলার জন‌্য খবর এই যে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার এই রদবদলে বাংলা থেকে দুই থেকে তিনটি নতুন মুখ জায়গা পেতে পারে।

বর্তমানে মোদি মন্ত্রিসভায় বাংলা থেকে দু’জন মন্ত্রী রয়েছেন। সেই তালিকা যে রদবদলের পরে কলেবরে বৃদ্ধি পাবে তা একপ্রকার নিশ্চিত। আগামী বছর পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা নির্বাচন। সেদিকে নজর রেখেই যে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় রাজ্যের প্রতিনিধির সংখ্যা বৃদ্ধি করা হতে পারে এমন কথা বিজেপির অন্দর থেকে শোনা গিয়েছে। বাংলায় ক্ষমতা দখলের লক্ষ্যে বিজেপি বহুদিন থেকেই সক্রিয়। তাই রাজ্যের প্রতিনিধির সংখ্যা বৃদ্ধি করে বিজেপি বাংলার মানুষকে সদর্থক বার্তা দেওয়ার চেষ্টা করবে বলেই মত বিশেষজ্ঞদের। বাংলার পাশাপাশি আগামী বছরের আরেক নির্বাচনমুখী রাজ্য বিহার থেকেও মন্ত্রিসভায় প্রতিনিধি সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে বলেই খবর।

[আরও পড়ুন: মৃত্যুদণ্ডের সাজাপ্রাপ্তদের দ্রুত ফাঁসিতে ঝোলানোর পক্ষে সওয়াল প্রধান বিচারপতির ]

তবে, বাংলা থেকে নতুন যাঁদের মন্ত্রিত্ব দেওয়া হবে তাঁদের আপাতত রাষ্ট্রমন্ত্রীর পদ পেয়েই খুশি থাকতে হবে। প্রথম মোদি সরকারে মন্ত্রিসভায় বাংলার মাত্র দু’জন প্রতিনিধিই জায়গা পেয়েছিলেন। এবারের কানাঘুষো কার্যকর হলে দীর্ঘদিন পরে কেন্দ্রে আবার একঝাঁক বাংলার মন্ত্রীর দেখা মিলবে। শেষবার, UPA-২ জমানাতে বাংলা থেকে একঝাঁক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ছিলেন। তার মধ্যে তৃণমূল কংগ্রেসের একজন পূর্ণমন্ত্রী ও পাঁচজন রাষ্ট্রমন্ত্রী ছিল।

[আরও পড়ুন: অমর জওয়ান জ্যোতি নয়, সাধারণতন্ত্র দিবসে পুষ্পস্তবক দেওয়া হবে ন্যাশনাল ওয়ার মেমোরিয়ালে]

 

এবার বাংলা থেকে নতুন মুখ হিসেবে মন্ত্রিসভায় জায়গা পেতে পারেন এমন বেশ কয়েকটি নাম উঠে এসেছে। এর মধ্যে প্রথম নামটিই হল রাজ্যসভার সাংসদ স্বপন দাশগুপ্তের। বিজেপির অন্দরে স্বপনবাবু স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর পছন্দের লোক হিসেবেই পরিচিত। তাছাড়াও বর্তমানে তিনি রাজ্য রাজনীতিতে সক্রিয়ভাবে কাজ করছেন। পেশায় সাংবাদিক স্বপনবাবু কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন দপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রীর পদ পেতে পারেন এমন জল্পনা রয়েছে। বঙ্গ বিজেপির দীর্ঘদিনের নেতা বাঁকুড়ার সাংসদ সুভাষ সরকারও মন্ত্রী পদের দৌড়ে রয়েছেন। বনগাঁর সাংসদ শান্তনু ঠাকুরের নামও সম্ভাব্য মন্ত্রী হিসেবে শোনা যাচ্ছে। রাজ্যের মতুয়া ভোট বিধানসভা নির্বাচনেও যাতে বিজেপির ঘরে আসে সেই লক্ষ্যেই শান্তনুকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় জায়গা পেতে পারেন। কোচবিহারের সাংসদ নিশীথ প্রামাণিকের নামও মন্ত্রিত্বের দৌড়ে রয়েছে। লোকসভা নির্বাচন উত্তরবঙ্গ থেকেই সব থেকে ভাল ফল করেছিল বিজেপি। সেখান থেকে বর্তমানে দেবশ্রী চৌধুরি মোদি মন্ত্রিসভায় রয়েছেন। তার পরেও উত্তরবঙ্গ থেকে আরেক জন মন্ত্রীর বিষয়ে ভাবনাচিন্তা করছে বিজেপি। নিশীথ রাজবংশী সম্প্রদায়ের। উত্তরবঙ্গে রাজবংশীদের ভোট রয়েছে। সেই হিসেব কষে যাতে লোকসভার মতো বিধানসভা নির্বাচনেও বিজেপি উত্তরবঙ্গে বাজিমাত করতে পারে সেই লক্ষ্যেই নিশীথের নাম বিবেচনায় রয়েছে বলেই সূত্রের খবর। নিশীথকে রেলে রাষ্ট্রমন্ত্রীপদ দেওয়া হতে পারে এমন কথাও শোনা যাচ্ছে।

An Images
An Images
An Images An Images