BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনা এড়াতে হোলির উৎসবে ‘না’ মোদির, সতর্কতা বৃদ্ধিতে তৎপর স্বাস্থ্যমন্ত্রক

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: March 4, 2020 12:56 pm|    Updated: March 12, 2020 1:13 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা ভাইরাসের (Coronavirus) চিন, জাপান, উত্তর কোরিয়ার পর করোনা আতঙ্কে জেরবার ভারত। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের নির্দেশ মেনে হোলির (Holi) অনুষ্ঠানে যোগ না দেওয়ার কথা ঘোষণা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি বলেন, “করোনা সংক্রমণ থেকে বাঁচতে ভিড় এড়িয়ে চলতে হবে। করোনা নিয়ে নিরাপত্তা বজায় রাখতে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকে দফায় দফায় চলছে বৈঠক।” স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন জানান, “প্রতিটি রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রীদের সঙ্গেও বৈঠক করা হবে। তাদের এই বিষয়ে সতর্ক করা হবে।” তবে প্রধানমন্ত্রী দেশবাসীকে করোনা নিয়ে আতঙ্কিত হতে বারণ করেন ও আতঙ্ক না ছড়ানোর পরামর্শ দেন।

করোনা ভাইরাসের আতঙ্কের জের। আসন্ন হোলির উৎসবে যোগ দিচ্ছেন না প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi)। “বিশেষজ্ঞরা করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে বড় কোনও জন সমাগম এড়ানোর পরামর্শ দিয়েছেন”, সেই পরামর্শ মেনেই এই সিদ্ধান্ত প্রধানমন্ত্রীর। সম্প্রতি এ দেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে সতর্ক অবস্থান অবলম্বন করেছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকও। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন যদিও ইরান, ইতালি, দক্ষিণ কোরিয়া এবং সিঙ্গাপুর ভ্রমণ এড়ানোর পরামর্শ দিয়েছেন। পাশপাশি করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত যেকোনও সাহায্যের জন্য হেল্পলাইন নম্বর হল ০১১-২৩৯৭৮০৪৬ এবং ইমেল আইডি হল [email protected] সরকারি তরফ থেকে জানানa হচ্ছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, “জনগণের উচিত স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সতর্কতা বজায় রাখা, ঠিকভাবে হাত ধোয়া। পাশাপাশি জনবহুল জায়গায় যাওয়া থেকে বিরত থাকা”। “বিশ্বজুড়ে যেভাবে করোনা ভাইরাস বা COVID-19 ছড়িয়ে পড়ছে তা রুখতে বিশেষজ্ঞরা বড় কোনও জনসমাগম এড়ানোর পরামর্শ দিয়েছেন। তাই, এই বছর আমি কোনও হোলির মিলন উৎসবে অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি”, বুধবার সকালে টুইট করেন প্রধানমন্ত্রী।

[আরও পড়ুন:ভারতে আরও বাড়ছে করোনা আতঙ্ক, একলাফে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ২১]

মঙ্গলবার ৬ জনের দেহে করোনার চিহ্ন মিললে বুধবার সকালেই তা লাফিয়ে বেড়ে হয়েছে ২৮। এদের মধ্যে ১৫ জনই ইটালির নাগরিক। তাদের নয়া দিল্লির এইমস হাসপাতালে রাখা হয়েছে। বর্তমানে ৪টি দেশ থেকে আসা পর্যটকদের ভারত সফর বাতিল করা হয়েছে। করোনা আতঙ্কের জেরে ইতিম্যেই নয়ডার দুটি স্কুল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে এক সপ্তাহের জন্য। গত মাসে কেরলের তিনজন রোগী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে রেহাই পায়। তবে চলতি সপ্তাহে ভারতে করোনা ভাইরাস আক্রান্ত নতুন তিনটি ঘটনায় সন্ধান পাওয়া যায়।

[আরও পড়ুন: করোনা থেকে বাঁচাতে পারে ভারতের আবহাওয়া! প্রকাশ্যে চাঞ্চল্যকর তথ্য]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement