Advertisement
Advertisement
Vladimir Putin

পুতিনকে ফোন মোদির, QUAD বৈঠকের পর ‘বন্ধু’ রাশিয়াকে ‘আশ্বস্ত’ করল ভারত

জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে পুতিনকে ভারতে আসার আমন্ত্রণ নমোর।

Modi dials Putin, wants to host him as soon as global health crisis wanes | Sangbad Pratidin

ফাইল ছবি।

Published by: Biswadip Dey
  • Posted:October 7, 2020 8:12 pm
  • Updated:October 7, 2020 8:13 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বুধবার রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে (Vladimir Putin) ৬৮তম জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Modi)। টেলিফোনে কথোপকথনের সময় প্রধানমন্ত্রী জানান, রাশিয়ান প্রেসিডেন্টকে যত দ্রুত সম্ভব ভারতে আহ্বান জানাতে চান তিনি। সম্ভব হলে করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পরপরই। বিদেশ মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, ‘‘দুই নেতাই সহমত হয়েছেন করোনা অতিমারির সময়েও যোগাযোগ রেখে চলার বিষয়ে। প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, তিনি জনস্বাস্থ্য পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পর যত দ্রুত সম্ভব প্রেসিডেন্ট পুতিনকে ভারতে স্বাগত জানাতে চান।’’

প্রধানমন্ত্রী মোদি পুতিনের সঙ্গে তাঁর সুসম্পর্ক এবং বন্ধুত্বেরও উল্লেখ করেন। পাশাপাশি দু’দেশের মধ্যে বিশেষ সম্পর্ক স্থাপনে পুতিন যে ব্যক্তিগত উদ্যোগ নিয়েছেন, তারও প্রশংসা করেন প্রধানমন্ত্রী। এদিন দুই রাষ্ট্রনেতাই মেনে নেন, করোনা সংক্রমণ গোটা বিশ্বের কাছেই ভয়াবহ বিপদ হিসেবে দেখা দিয়েছে। প্রসঙ্গত, গত জুনেও মোদি-পুতিন বৈঠক হয়। সেই সময়ও তাঁরা দু’দেশের সম্পর্ককে আরও দৃঢ় করার বিষয়ে আলোচনা করেন।

Advertisement

[আরও পড়ুন: নির্ভয়ার ধর্ষকদের ‘কুখ্যাত’ আইনজীবীই এবার মামলা লড়বেন হাথরাসের অভিযুক্তদের হয়ে]

এদিকে গতকাল থেকে শুরু হওয়া QUAD মন্ত্রীগোষ্ঠীর বৈঠক আজ শেষ হয়েছে। ভারত, জাপান, অস্ট্রেলিয়া ও আমেরিকা মিলে তৈরি হয়েছে এই গোষ্ঠী। এই বৈঠকে আলোচনার মূল বিষয় ছিল দক্ষিণ চিন সাগরে চিনা আগ্রাসন। এশিয়ায় চিনের সামরিক উচ্চাকাঙ্ক্ষাকে প্রশমিত করতে চায় আমেরিকা। এদিকে ভারতের সঙ্গে চিনের সম্পর্কও খুব ভাল পরিস্থিতিতে নেই। গত মে মাস থেকে লাদাখে সীমান্তের উত্তেজনায় আরও অবনতি হয়েছে সেই সম্পর্কে। এই পরিস্থিতিতে চিনের সঙ্গে লড়তে ভারতকে সঙ্গে নিয়ে এগোতে চায় আমেরিকা। দু’দেশের সম্পর্কও খুব ভাল জায়গায় রয়েছে।

Advertisement

ওয়াকিবহাল মহল মনে করছে, বুধবারই QUAD মন্ত্রীগোষ্ঠীর বৈঠক শেষ হওয়ার পরে পুতিনকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানানো ও ভারতে আমন্ত্রণ জানানোর মধ্যে দিয়ে পরোক্ষে বন্ধুত্বের সম্পর্ককে টিকিয়ে রাখার কাজটি করলেন প্রধানমন্ত্রী। আমেরিকার সঙ্গে সুসম্পর্ক রেখেও ভারত যে রাশিয়া বিরোধী কোনও গোষ্ঠীতে যাবে না, সেই প্রচ্ছন্ন বার্তাই কি দিয়ে রাখলেন তিনি? নিশ্চিতভাবেই এই প্রশ্ন উঠতে পারে আন্তর্জাতিক রাজনৈতিক আঙিনায়।

[আরও পড়ুন : ‘কাপুরুষ প্রধানমন্ত্রী, আমাদের সরকার হলে ১৫ মিনিটে চিনা সেনাকে উৎখাত করত’, দাবি রাহুলের]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ