১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  শনিবার ৫ ডিসেম্বর ২০২০ 

Advertisement

গুজরাট দাঙ্গা নিয়ে ৯ ঘণ্টার জেরাতেও অবিচল ছিলেন মোদি! জানালেন তদন্তকারী আধিকারিক

Published by: Biswadip Dey |    Posted: October 27, 2020 10:17 am|    Updated: October 27, 2020 10:55 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ২০০২ গুজরাট দাঙ্গার (2002 Gujarat riots) তদন্তে গঠিত সিট তাঁকে প্রায় ১০০টি প্রশ্ন করেছিল। কিন্তু তিনি একটিরও উত্তর দেননি। ৯ ঘণ্টার ম্যারাথন প্রশ্নের সামনে নিজেকে ‘অসম্ভব ঠান্ডা’ রেখেছিলেন। তদন্তকারী আধিকারিকরা তাঁকে চা অফার করলেও তিনি গ্রহণ করেননি। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Modi) সম্পর্কে এই সব প্রসঙ্গই উঠে এসেছে সেই সময় তদন্তকারী দলের প্রধান আর কে রাঘবনের নতুন বইয়ে। ‘এ রোড ওয়াল ট্রাভেলড’ নামে আত্মজীবনীমূলক এই বইতে তিনি লিখেছেন, তদন্তে সাহায্যের জন‌্য গান্ধীনগরে সিটের দফতরে আসতে রাজি হয়েছিলেন গুজরাটের (Gujrat) তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সঙ্গে এনেছিলেন নিজের জলের বোতল।

গুজরাটের তৎকালীন মুখ‌্যমন্ত্রী হিসাবে মোদিকে প্রশ্নের জন‌্য ডেকেছিল সিট। এই প্রসঙ্গে রাঘবন তাঁর বইয়ে লিখেছেন, “আমরা তাঁর কর্মীদের জানিয়েছিলাম যে এই উদ্দেশ্যে তাঁকে এসআইটি কার্যালয়ে এসে দেখা করতে হবে। তবে তিনি চাইলে অন‌্য কোথাও এই সাক্ষাৎ হতে পারে। কিন্তু তিনি গান্ধীনগরে সিজিও কমপ্লেক্সে সিট-এর অফিসেই আসতে প্রস্তুত হয়েছিলেন।” তিনি আরও জানিয়েছেন, তাঁকে দ্বিপ্রাহরিক আহারের জন‌্য বিরতি দিতে চাওয়া হয়েছিল। কিন্তু তিনি ফিরিয়ে দেন। তাঁকে চা দিতে চাওয়া হয়েছিল তিনি রাজি হননি। সঙ্গে আনা নিজের বোতল থেকে জল খেয়েছিলেন শুধু। তাঁকে একটু বিরতি নিতে রাজি করার জন‌্য তদন্তকারীদের অনেক অনুনয় করতে হয়েছিল সেদিন।

[আরও পড়ুন : লাদাখ উন্নয়ন পর্ষদের নির্বাচনে গেরুয়া ঝড়, ৯টি আসনে জয়ী কংগ্রেস]

২০০২ সালের গুজরাট দাঙ্গার তদন্তে সুপ্রিম কোর্ট গঠিত সিট-এর নেতৃত্ব দেওয়ার আগে রাঘবন সিবিআই প্রধানের দায়িত্বও সামলেছেন। বোফর্স কেলেঙ্কারি, ২০০০-এর দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট ম‌্যাট ফিক্সিং মামলা, পশুখাদ‌্য কেলেঙ্কারির মতো একাধিক হাই-প্রোফাইল কেসের তদন্তের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন তিনি।

গত বছর ডিসেম্বরে গুজরাট দাঙ্গা মামলায় মোদিকে ক্নিনচিট দিয়েছে নানাবতী-মেহতা কমিশন। পরিস্থিতি সামলাতে পুলিশই ব্যর্থ ছিল বলে দাবি করেছে কমিশন। উল্লেখ্য, ২০০২ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি গোধরা স্টেশনের কাছে সবরমতী এক্সপ্রেসে অগ্নিকাণ্ডে ৫৯ জন করসেবকের মৃত্যু হয়। এ ঘটনাকে ঘিরে পরবর্তী সময়ে অশান্ত হয়ে ওঠে গুজরাট। অশান্তির ঘটনায় ১,১৬৯ জন মানুষ প্রাণ হারান। সে সময় গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী পদে ছিলেন নরেন্দ্র মোদি। আর কে রাঘবনের নেতৃত্বাধীন বিশেষ তদন্তকারী দল মোদিকে ‘ক্লিনচিট’ দিয়েছিল। সেই দলের রিপোর্টে জানানো হয়েছিল, দাঙ্গা সামলাতে সেনা মোতায়েনে দেরি করা হয়নি।

[আরও পড়ুন : জমিতে পোড়ানো শস্যের ধোঁয়ায় দিল্লিতে অতিরিক্ত বায়ুদূষণ, সমাধানে স্থায়ী কমিটি গড়বে কেন্দ্র]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement