১৩ মাঘ  ১৪২৬  সোমবার ২৭ জানুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আর্থিক অনটন। দেশজুড়ে চলছে মন্দা। বাজেটের হিসেবের চেয়ে অনেক বেশি অর্থ ইতিমধ্যেই খরচ করে ফেলেছে মোদি সরকার। তাই টানপাড়ের সংসারে খরচে কাটছাট করতে চাইছে কেন্দ্র। শুরুতেই হাত পড়ছে শিক্ষা দপ্তরে। সূত্রের খবর, এ বছর শিক্ষা খাতে এক ধাক্কায় ৩ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ কমাচ্ছে কেন্দ্র। ইতিমধ্যেই মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রককে সেকথা জানিয়েও দেওয়া হয়েছে। একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম এমনটাই দাবি করছে। 


মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক সূত্রের খবর, অর্থ মন্ত্রক থেকে নাকি ইতিমধ্যেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, বছরের শুরুতে যে বাজেট শিক্ষাখাতে বরাদ্দ করা হয়েছিল, তার থেকে অনেকটাই কাটছাট করা হবে। এর মূল কারণ আর্থিক মন্দা। বছরের শুরুতে শিক্ষা খাতে খরচ বাবদ প্রায় ৫৬ হাজার ৫৩৬ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছিল। এখন তা কমে ৫৩ হাজার কোটির আশেপাশে দাঁড়িয়েছে।

[আরও পড়ুন: ‘ধর্মের ভিত্তিতে দেশভাগ করেছে কংগ্রেস’, লোকসভায় তোপ অমিত শাহের ]

সর্বভারতীয় ওই সংবাদমাধ্যমের খবর, মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী রমেশ পোখরিয়াল নিশাঙ্ক অর্থমন্ত্রককে অনুরোধ করেছেন, যাতে বরাদ্দ না কমানো হয়। তবে, অর্থমন্ত্রক অবস্থান বদলাতে রাজি নয়। তাঁরা সাফ জানিয়েছে, বরাদ্দ কমানো ছাড়া উপায় নেই। যদিও, সরকারিভাবে এই সিদ্ধান্তে এখনও সিলমোহর পড়েনি।

[আরও পড়ুন: ইস্তফা দুই শীর্ষ নেতার, উপনির্বাচনে ব্যর্থতার জেরে বিধ্বস্ত কর্ণাটক কংগ্রেস]

সরকারের এই সিদ্ধান্তের আঁচ পেতেই ক্ষোভে ফুঁসছেন বিরোধীরা। ইতিমধ্যেই কংগ্রেস সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধী মোদি সরকারের এই সিদ্ধান্তকে তোপ দেগেছেন। প্রিয়াঙ্কার অভিযোগ, কর্পোরেট বন্ধুদের ঋণ­ মকুব করতেই শিক্ষাখাতে খরচ কমাচ্ছে মোদি সরকার। কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক বলছেন, “বিজেপি সরকার ৫.৫ লক্ষ টাকার ঋণ মকুব করে দিতে পারে। পাঁচটা বিমানবন্দর নিজেদের বন্ধুদের বিনামূল্যে দিয়ে দিতে পারে। অথচ, স্কুল শিক্ষার খরচ ৩ হাজার কোটি টাকা কমিয়ে দিচ্ছে। মানে, বড়লোকেরা রসগোল্লা খাবে, আর মিড-ডে-মিলে পড়ুয়ারা রুটি আর লবণ পাবে।”

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং