১২ আষাঢ়  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শনিবার সর্বসম্মতিতে নরেন্দ্র মোদিকে সংসদীয় দলনেতা নির্বাচিত করল এনডিএ। সভার প্রথমে সংসদীয় দলনেতা হিসেবে তাঁর নাম প্রস্তাব করেন শিরোমণি অকালি দলের প্রধান প্রকাশ সিং বাদল। তাঁর এই প্রস্তাব সমর্থন করেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী তথা জেডি(ইউ) প্রধান নীতীশ কুমার-সহ অন্যরা। এই বৈঠকের পর সন্ধে আটটা নাগাদ রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের সঙ্গে দেখা করে নরেন্দ্র মোদি সরকার গঠনের দাবি জানাবেন বলে জানা গিয়েছে।

দ্বিতীয়বারের পর জন্য বিপুল ভোটে জিতে ক্ষমতায় আসার পর শনিবার সংসদের সেন্ট্রাল হলে মিলিত হন এনডিএ-এর সাংসদরা। এই বৈঠকে সর্বসম্মতি ক্রমে নরেন্দ্র মোদির নাম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ঘোষণা করা হয়। এনডিএ-র সংসদীয় দলনেতা হিসেবে তাঁর নাম প্রস্তাব করেন প্রকাশ সিং বাদল। এই প্রস্তাবকে সমর্থন করেন নীতীশ কুমার, শিবসেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরে ও লোক জনশক্তি পার্টির সুপ্রিমো রামবিলাস পাসোয়ান।

[আরও পড়ুন- বিপুল জয়ের উচ্ছ্বাস, ছুরি দিয়ে বুকে মোদির নাম লিখলেন এই ‘ভক্ত’]

এনডিএ সাংসদদের সামনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে প্রথমেই সামনে রাখা সংবিধানকে প্রণাম করেন মোদি। তাঁকে দলনেতা নির্বাচিত করার জন্য এনডিএ সাংসদদের ধন্যবাদ জানানোর পাশাপাশি অভিনন্দন জানান প্রথমবার নির্বাচিত হওয়া সাংসদদেরও। তারপর বিজেপি ও এনডিএ-র এই জয়ের জন্য ধন্যবাদ জানান কর্মী-সমর্থকদের। বলেন, “এনডিএ-র সাংসদরা আমাকে নেতা নির্বাচিত করেছেন। সংসদীয় দলের নেতা নির্বাচিত হওয়ার জন্য আমি গর্বিত ও কৃতজ্ঞ। এখান থেকেই নতুন ভারতের যাত্রা শুরু হল। এবার ভারতের লোকসভা নির্বাচন দেখে অবাক হয়েছে গোটা বিশ্ব। আসলে তারা দেখেছে ভারতের গণতন্ত্র এখন অনেক বেশি শক্তিশালী। এর পুরো কৃতিত্বই নির্বাচন কমিশনের। ক্ষমতা বা প্রলোভন কোনওটাই ভোটারদের প্রভাবিত করতে পারেনি। আমরা জনগণের সেবা করেছি তাই তাঁরা আমাদের আর্শীবাদ করেছেন। এই বিপুল জনসমর্থন আমার দায়িত্ব আরও বাড়িয়ে দিয়েছে।”

বিরোধীদের কটাক্ষ করে তিনি আরও বলেন, “আদর্শ মেনে জোট করতে হয়। নাহলে কোনও লাভ হয় না। কারণ, সৎ ব্যক্তিদেরই বেছে নেয় দেশ। গণতন্ত্রে সবার উপরে রয়েছে মানুষ। বিশ্বাস হারালে তারা ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দেয়। তাই অহঙ্কার না করে জনাদেশ মানুন। ২০১৯ সালের ভোট আমার কাছে তীর্থযাত্রার মতো। ভোট ভিক্ষা করতে নয় তীর্থযাত্রা করতে দেশ ঘুরেছি আমি। কোনও বিশেষ সম্প্রদায় নয় আমাদের জেতায় সব ধর্মের সাধারণ মানুষ। গত পাঁচ বছরে দেশ গড়ার কাজ করেছে এনডিএ। নারীর ক্ষমতায়নের উপরে সবচেয়ে বেশি জোর দিয়েছে। তার ফলস্বরূপ এবার সংসদে সবচেয়ে বেশি মহিলা সাংসদ নির্বাচিত হয়েছেন।এতদিন সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে ভোটের জন্য ব্যবহার করা হত। কিন্তু, এনডিএ সেই ধারণা বদলে দিয়েছে। বিরোধীরা কুৎসা করলেও এবার ভোট হয়েছে প্রতিষ্ঠানের পক্ষে।”

শনিবার সেন্ট্রাল হলে এনডিএ সাংসদদের সামনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তাঁদের ভিআইপি কালচার থেকে দূরে থাকার পরামর্শও দেন প্রধানমন্ত্রী। বলেন, “অহঙ্কার করা ছাড়ুন। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ছাড়ুন ভিআইপি কালচারও। বিপুল জনাদেশে দায়িত্ব বাড়ে। এটা মাথায় রেখে কাজ করুন।”

[আরও পড়ুন- লোকসভার পর এবার রাজ্যসভাতেও একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রাপ্তির পথে NDA]

প্রথমে শনিবার দুপুরে বিজেপির সদর দপ্তরে দলীয় সাংসদদের নিয়ে বৈঠক করেন নরেন্দ্র মোদি ও অমিত শাহ। পরে এনডিএ-র শরিকদের নিয়ে সংসদের সেন্ট্রাল হলে বৈঠক করেন তাঁরা। তার আগে শুক্রবার এন়ডিএ-র সমস্ত সাংসদকে নিয়ে গিয়ে রাষ্ট্রপতির কাছে পদত্যাগপত্র জমা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ তাঁর পদত্যাগ গ্রহণ করলেও কেয়ারটেকার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে কাজ চালানোর কথা বলেন।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং