BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

নজিরবিহীন, ফাঁসি এড়াতে আন্তর্জাতিক আদালতের দ্বারস্থ নির্ভয়ার তিন ধর্ষক

Published by: Paramita Paul |    Posted: March 16, 2020 4:25 pm|    Updated: March 16, 2020 8:35 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফাঁসি এড়াতে মরিয়া নির্ভয়ার অপরাধীরা। চার দোষীর সমস্ত আইনি বিকল্পের পথ বন্ধ বলেই দাবি করছেন আইনজীবীরা। এমন পরিস্থিতিতে এবার আন্তর্জাতিক আদালতের দ্বারস্থ হয়েছে তিন অপরাধী-অক্ষয়, পবন ও বিনয়। তাদের দাবি, ২০ মার্চের মৃত্যুদণ্ডের উপর স্থগিতাদেশ চেয়েছে ওই তিনজন। সাম্প্রতিক ইতিহাসে যা নজিরবিহীন। এর আগে দেশের কোনও ধর্ষক ফাঁসি রদের দাবিতে আন্তর্জাতিক আদালতের দ্বারস্থ হয়েছে বলে খবর নেই। সোমবারই অক্ষয়ের আরজি খারিজ করেছে সুপ্রিম কোর্ট। ফলে ২০ মার্চ তাদের ফাঁসি নিশ্চিত। এমন পরিস্থিতিতে নজিরবিহীন পদক্ষেপ করল নির্ভয়ার তিন ধর্ষক। তবে মুকেশ কেন এই পথে হাঁটল না, তা নিয়ে ধন্দ বেড়েছে। আইনজীবী মহলের একাংশের দাবি, স্রেফ ফাঁসির সাজায় বিলম্বিত করার জন্যই এই পদক্ষেপ করা হল। কারণ ধর্ষকদের ফাঁসি অভ্যন্তরীণ বিষয়। তা নিয়ে আন্তর্জাতিক আদালতে যাওয়া অর্থহীন।

[আরও পড়ুন: ‘সিস্টেম ভেঙে পড়েছে, আরও ব্যাংক বন্ধ হবে’, অর্থনীতি নিয়ে নয়া আশঙ্কা রাহুলের]

মুকেশ সিংয়ের নতুন করে রায় সংশোধনী দায়ের করার আরজি  সোমবার খারিজ করে দেয় সুপ্রিম কোর্ট। ফলে আপাতভাবে তার সমস্ত আইনি বিকল্প পাওয়ার পথ বন্ধ হয়ে গেল। এদিন সর্বোচ্চ আদালত সাফ জানিয়ে দেয়, “নিজেকে বাঁচাতে সমস্ত আইনি বিকল্প ব্যবহার করে ফেলেছে মুকেশ।”  ফলে ২০ মার্চ চার দোষীর ফাঁসি হওয়ার পথে আরও কোনও বাধা রইল না বলেই মনে করছেন আইনজীবী মহল। পাশাপাশি মুকেশ তার পূর্বতন আইনজীবী বৃন্দা গ্রোভারের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করতে চেয়েছিল। তার সেই আরজিও এদিন আদালতে খারিজ হয়ে যায়। এদিকে স্বেচ্ছামৃত্যুর আবেদন জানিয়ে রাষ্ট্রপতির দ্বারস্থ হয়েছে চার অপরাধীর পরিবার। এদিন চার অপরাধীর আইনজীবী এ পি সিং জানান, “প্রবাসী ভারতীয় ও তাঁদের সংস্থাগুলি মামলার উপর নজর রাখছিলেন। তারা চিঠি দিয়ে জানিয়েছে এই মামলা আন্তর্জাতিক আদালতের সামনে রাখা উচিত। তাঁরা চায় মৃত্যু পরোয়ানার উপর স্থগিতাদেশ জারি করে দ্রুত শুনানি হোক।” সাংবাদিকরা জিজ্ঞেস করেন ভারতীয় বিচারব্যবস্থার উপর কি তাহলে আস্থা রাখছেন না তিনি? জবাবে এপি সিং বলেন, “আমাদের সম্পূর্ণ আস্থা  রয়েছে। কিন্তু ওঁদের নেই। তারা চাইছে আন্তর্জাতিক বিচারালয়ের দ্বারস্থ হতে।”

[আরও পড়ুন: ‘বাতিল হওয়া ট্রেন ও প্লেনের টিকিটে ছাড় দিন’, কেন্দ্রকে আবেদন সিপিএম সাংসদের]

এদিকে দিল্লির উপরাজ্যপালের কাছেও সাজা পরিবর্তনের আবেদন জানিয়েছিলেন বিনয় শর্মার আইনজীবীও। তিনিও সেই আরজি খারিজ করে দিয়েছেন বলেই খবর। ফলে ২০ মার্চ ভোর সাড়ে পাঁচটায় চার অপরাধীর ফাঁসি নিয়ে কোনও বাধা রইল না বলেই মনে করছে আইনজীবী মহল। 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement