১৬ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  শনিবার ৩ ডিসেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

দেশের অগ্রগতি রুখতে ষড়যন্ত্র, ধর্মের নামে সংঘাত বাধানো হচ্ছে, সুফি সম্মেলনে মন্তব্য ডোভালের

Published by: Kishore Ghosh |    Posted: July 30, 2022 8:29 pm|    Updated: July 30, 2022 8:30 pm

NSA Doval Says, Some creating conflict in name of religion | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কিছু মানুষ ধর্মের নামে সংঘাত তৈরি করছে দেশে। ষড়যন্ত্র করে ভারতের অগ্রগতিকে বাধা দেওয়াই এদের লক্ষ্য। শনিবার দেশের রাজধানী শহর দিল্লিতে (Delhi) একটি সুফি সংগঠনের অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে বললেন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা (National Security Adviser) অজিত ডোভাল (Ajit Doval)।

এদিন সারা ভারত সুফি সাজ্জাদানাশিন কাউন্সিলের (All India Sufi Sajjadanashin Council) সম্মেলনে যোগ দেন অজিত ডোভাল। সেখানে নিজের বক্তব্যে তিনি জানান, দেশের অগ্রগতিকে রুখে দিতে কিছু মানুষ ধর্মের নামে সংঘাত তৈরি করছে। “এর প্রভাব যেমন দেশের ভেতরে পড়ছে, তেমনই দেশের বাইরেও ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।” ডোভালের মতে দ্রুত  মৌলবাদী সংগঠনগুলিকে চিহ্নিত করে নিষিদ্ধ করতে হবে। “যে সংগঠনগুলি মানুষে মানুষে ধর্মীয় বিভেদ বাড়তে সক্রিয়, রাষ্ট্রবিরোধী চক্রান্ত চালাচ্ছে যারা, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতেই হবে।” এদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার প্রয়োজন রয়েছে বলেই মনে করেন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা।

[আরও পড়ুন: হাসপাতালে গিয়ে নোংরা বেডে শুতে বাধ্য করেছিলেন মন্ত্রী, ইস্তফা দিলেন ভাইস চান্সেলর]

অজিত ডোভাল আরও বলেন, “আমরা নিরব দর্শক হয়ে থাকতে পারি না। ভুল শুধরে নিতে হবে আমাদের, সংগঠিত হয়ে সরব হতে হবে। দেশের প্রতিটি ক্ষেত্রে একতার উদাহরণ রাখতে হবে। আমরা গর্বিত যে এই দেশে প্রতিটি ধর্মীয় আচরণ স্বীকৃত।” ডোভালের মতে, মৌলবাদকে শুধু নিন্দা করলে চলবে না, এর বিরুদ্ধে কাজ করতে হবে আমাদের। সভায় উপস্থিত সুফি আলেমারাও মৌলবাদী সংগঠনগুলোকে নিষিদ্ধ করার আহ্বান জানান। সারা ভারত সুফি সাজ্জাদানাশিন কাউন্সিলের চেয়ার পার্সন নাসিরুদ্দিন চিসতি ডোভালের সুরে সুর মিলিয়ে বলেন, “যখন কোনও ঘটনা ঘটে আমরা নিন্দা করি। কিন্তু এখন হাতে কলমে কাজ করার সময় হয়েছে। মৌলবাদী সংগঠনগুলিকে রুখতে হবে, তাদের নিষিদ্ধ করতে হবে।”

[আরও পড়ুন: এশিয়ার সবচেয়ে ধনী মহিলা এখন ইনিই, চিনে নিন ভারতের এই শিল্পপতিকে]

এদিনের সভায় সুফি সংগঠনের তরফে একটি প্রস্তাবনা পাঠ করা হয়। সেখানে মৌলবাদী সংগঠনগুলির বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করার দাবি জানানো হয়। এইসঙ্গে কোনও ধর্মের দেবতা, দেবী কিংবা পয়গম্বরকে কোনও বিতর্কে বা সভায় আপত্তিকর মন্তব্যেরও নিন্দা করা হয় ও আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হয়।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে