২৯ শ্রাবণ  ১৪২৭  শনিবার ১৫ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

হায়দরাবাদের পর ওড়িশা, দুই বন্ধুকে সঙ্গে নিয়ে সহকর্মীর স্ত্রীকে গণধর্ষণ

Published by: Sulaya Singha |    Posted: December 15, 2019 9:01 pm|    Updated: December 15, 2019 9:01 pm

An Images

ছবিটি প্রতীকী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ধর্ষণের প্রতিবাদে দেশজুড়ে বিক্ষোভের আগুন জ্বলছে। কিন্তু তা সত্ত্বেও অপরাধ কমার কোনও লক্ষণ নেই। প্রতিদিনই শিরোনামে উঠে আসছে ধর্ষণ-যৌন হেনস্তার মতো ঘটনা। এবার গণধর্ষণের শিকার ২৬ বছরের বধূ। ঘটনায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

ওড়িশার কালাহান্দি জেলার ঘটনা। বধূ জানিয়েছেন, অভিযুক্ত তিনজনের মধ্যে একজন তাঁর স্বামীর সহকর্মী। কর্মসূত্রে গোয়ায় থাকে সে। গত ১১ ডিসেম্বর ভবানীপাটনার কাছে এক গ্রামে বধূর বাড়িতে যায় ২৭ বছরের ওই ব্যক্তি। স্বামীর পাঠানো কিছু জিনিসপত্র মহিলাকে দিতেই তাঁদের বাড়িতে যায় সে বলে জানান নির্যাতিতা। সেই সময় তাঁর শ্বশুড়-শাশুড়িও বাড়িতে ছিলেন। তাঁদের অনুরোধে সেই রাতে ওই বাড়িতেই থেকে যায় অভিযুক্ত।

[আরও পড়ুন: CAA বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশের ধস্তাধস্তি, দিল্লিতে পুড়ল বাস-গাড়ি]

১২ ডিসেম্বর এটিএমে টাকা তোলার জন্য বাড়ি থেকে বের হন গৃহবধূ। সেই সময় সহকর্মীর স্ত্রীকে ওই ব্যক্তি বলে, সে তাঁকে মোটরবাইকে এটিএম পর্যন্ত ছেড়ে দেবে। স্বামীর সহকর্মী বলে বিশ্বাস করেই বাইকে চেপে বসেন মহিলা। কিন্তু মাঝরাস্তাতেই বাইক থামিয়ে দেয় সে। ডেকে নেয় দুই বন্ধুকে। তারপর পূর্বপরিকল্পনামাফিক একটি ফাঁকা জায়গায় নিয়ে যাওয়া হয় বধূকে। সেখানেই তিনজনের যৌন লালসার শিকার হন তিনি।

ধর্ষণের পর সেখানেই মহিলাকে ফেলে চম্পট দেয় তিনজন। সঙ্গে হুমকি দিয়ে যায়, কাউকে ঘটনার বিষয়ে বললে পরিণাম ভাল হবে না। কোনওক্রমে সেখান থেকে ফিরে মনে সাহস জুগিয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন নির্যাতিতা। সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই শনিবার তিনজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। অভিযুক্তদের থেকে একটি মোটরবাইক ও একটি স্কুটার বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। অভিযুক্তদের কাছ থেকে মিলেছে মহিলার এটিএম কার্ডও। নির্যাতিতা ও অভিযুক্তদের মেডিক্যাল পরীক্ষা হয়েছে। মহিলার বয়ানও রেকর্ড করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

[আরও পড়ুন: বেআব্রু রাতের কলকাতা, জন্মদিনের পার্টিতে পানীয়ে মাদক মিশিয়ে তরুণীকে যৌন হেনস্তা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement