BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনায় আক্রান্ত প্রথম CRPF জওয়ানের মৃত্যু, ৪৬ জনের শরীরে মিলল মারণ ভাইরাস

Published by: Sulaya Singha |    Posted: April 29, 2020 10:02 am|    Updated: April 29, 2020 10:41 am

An Images

ফাইল চিত্র

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মারণ নোভেল করোনা ভাইরাস থাবা বসিয়েছে সিআরপিএফের ডেরাতেও। মঙ্গলবার রাজধানী দিল্লিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারান কেন্দ্রীয় আধাসামরিক বাহিনীর এক অ্যাসিস্ট্যান্ট সাব-ইনস্পেক্টর। মধ্যবয়সি ওই ইনস্পেক্টরের মৃত্যুর পাশাপাশি ৪৬ জন জওয়ান শরীরে মেলে করোনার জীবাণু। যার জেরে প্রায় এক হাজার জনকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

দেশে এই প্রথম কোনও সিআরপিএফ আধিকারিক করোনার বলি হলেন। পূর্ব দিল্লির ময়ূর বিহারে সিআরপিএফের ৩১ নম্বর ব্যাটেলিয়নে পোস্টিং ছিল তাঁর। অসমের ৫৫ বছরের জওয়ানের ডায়াবেটিস সমস্যা ছিল। সঙ্গে ছিল উচ্চ রক্তচাপ। সফদরজং হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছিল তাঁকে। ক্রমেই শারীরিক পরিস্থিতির অবনতি হতে থাকে তাঁর। মঙ্গলবার সেখানেই প্রাণ ত্যাগ করেন তিনি। ময়ূর বিহারে ৩১ নম্বর ব্যাটেলিয়নে বর্তমানে জাঁকিয়ে বসেছে করোনা। সেখানেই ডিউটিতে থাকা ৪৬ জন আক্রান্ত হয়েছেন বলে খবর। তাঁরা আপাতত চিকিৎসাধীন। আরও কেউ এই মারণ ভাইরাসের কবলে পড়েছেন কি না, তা দেখতে বাকিদেরও টেস্ট করা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই প্রায় এক হাজার জনকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে।

[আরও পড়ুন: মে মাসের মধ্যে দেশে তৈরি হয়ে যাবে করোনা টেস্ট কিট, আশার আলো দেখালেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী]

গত মাসে সিআরপিএফে নার্সিংয়ের কাজে নিযুক্ত এক জওয়ানের রিপোর্টে করোন পজিটিভ ধরা পড়ে। গত ১৭ এপ্রিল ব্যাটেলিয়নে যোগ দেওয়ার পর থেকে তাঁর শরীরে করোনার উপসর্গ দেখা দিয়েছিল। ২১ এপ্রিল টেস্টের পর জানা যায় তাঁর শরীর ভাইরাস বাসা বেঁধেছে। দিল্লির রাজীব গান্ধী হাসপাতালে ভরতি ছিলেন তিনি। এরপর গত ২৪ এপ্রিল আরও ন’জন জওয়ানের শরীরে মেলে ভাইরাস। পরের দিন আক্রান্ত হন আরও ১৫ জন। জওয়ানদের সমস্ত রকম সুরক্ষা এবং ওই এলাকা স্যানিটাইজেশনের সমস্ত ব্যবস্থার দাবি তুলেছে সিআরপিএফ।

দেশে ইতিমধ্যেই আক্রান্তের সংখ্যা ৩১ হাজার ছাড়িয়েছে। মৃত্যু হয়েছে এক হাজার জনেরও বেশি মানুষের। এমন পরিস্থিতিতে সিআরপিএফ ক্যাম্পে করোনা থাবা বসানোয় আতঙ্ক আরও বাড়ল।

[আরও পড়ুন: সচেতনতার নজির গড়ে করোনা মুক্ত ওড়িশার এক গ্রাম, খোলা দোকান-পাট]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement