১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ভারতে হামলার পরিকল্পনা, এবার স্থানীয় গ্যাংগুলিকে হাতিয়ার করার ছক পাকিস্তানের

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: August 24, 2020 5:54 pm|    Updated: August 24, 2020 5:54 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারতকে রক্তাক্ত করার ছক কষছে পাকিস্তান। এই কাজে এবার স্থানীয় গ্যাংগুলিকে হাতিয়ার করার পরিকল্পনা রয়েছে পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই ও জেহাদি সংগঠনগুলির। এমনটাই সতর্কবার্তা দিয়েছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থাগুলি।

[আরও পড়ুন: নতুন ফন্দি চিনের, এবার পাকিস্তানকে অত্যাধুনিক রণতরী বিক্রি করছে বেজিং]

সম্প্রতি, ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থার চণ্ডীগড় শাখা এক চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট পেশ করেছে। ওই রিপোর্টে বলা হয়েছে, সেনাবাহিনী ও স্থানীয় আইনশৃঙ্খলা রক্ষীদের তৎপরতায় ভারতে নাশকতা চালাতে পারছে না পাক জঙ্গিরা। জম্মু-কাশ্মীর, রাজস্থান, গুজরাট ও পাঞ্জাব সীমান্তে কড়া নজরদারি চলায় সীমান্তের ওপার থেকে জেহাদিদের ভারতে অনুপপ্রবেশ অত্যন্ত কঠিন হয়ে পড়েছে। সদ্য, পাঞ্জাবে পাঁচ অনুপ্রবেশকারী জঙ্গিকে খতম করেছে সতর্ক বিএসএফ। এহেন জটিল সময়ে নিজেরা জড়িত না থেকে ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে সক্রিয় গ্যাংগুলিকে নাশকতার কাজে লাগানোর চেষ্টা চালাচ্ছে পড়শি দেশটি। এমন গ্যাংস্টারদের একটি তালিকাও প্রকাশ করেছেন ভারতীয় গোয়েন্দারা। তাদের মধ্যে অনেকেই জেলে রয়েছে। তবে বেশ কয়েকজন দুষ্কৃতী এখনও পলাতক। আর তারাই চিন্তা বাড়িয়েছে।

ভারতীয় গোয়েন্দা বিভাগের এক শীর্ষ আধিকারিককে উদ্ধৃত করে সংবাদসংস্থা এএনআই জানিয়েছে, লাগাতার অভিযানে দেশে আইএসআইয়ের অধিকাংশ স্লিপার সেল খতম হয়ে গিয়েছে। যারা বেঁচে আছে তারাও এনকাউন্টারের ভয়ে আর কোনও নাশকতায় জড়াতে চাইছে না। ফলে এবার লোকাল গ্যাংগুলিকেই হাতিয়ার করতে চাইছে পাকিস্তান। উল্লেখ্য, ১৯৯৩ সালে মুম্বইয়ে ঘটা ধারাবাহিক বিস্ফোরণে ডন দাউদ ইব্রাহিমকে কাজে লাগিয়েছিল আইএসআই।

প্রসঙ্গত, সদ্য গুজরাট থেকে ‘ডি-কোম্পানি’র অন্যতম মুখ ছোটা শাকিলের এক শার্প শুটারকে গ্রেপ্তার কর পুলিশ। তার আগে এক সতর্কবার্তায় কেন্দ্র জানিয়েছিল, বিজেপি ও আরএসএসয়ের শীর্ষ নেতাদের হত্যার ষড়যন্ত্র করছে পাকিস্তানের জঙ্গি সংগঠনগুলি। হামলার মুখে পড়তে পারেন এমন বিজেপি (BJP), আরএসএস (RSS), বিশ্ব হিন্দু পরিষদ-সহ বিভিন্ন দক্ষিণপন্থী সংগঠনের নেতাদের নিরাপত্তার বিষয়টিতে জোর দিতে বলা হয়েছে ওই সতর্কবার্তায়। শুধু তাই নয়, রাজ্যগুলিতে মৌলবাদী সংগঠনগুলির উপর সাইবার নজরদারি তথা অন্দরের গোয়েন্দা খবর সংগ্রহের উপর জোর দিতে বলা হয়েছে। মৌলবাদী সংগঠনগুলির প্রতি সহানুভূতিশীল ব্যক্তি এবং স্থানীয় অপরাধ চক্রগুলির উপরে পুলিশি নজরদারি বাড়ানোর সুপারিশও রয়েছে কেন্দ্রের বার্তায়।

[আরও পড়ুন: ‘ঘুষিতে মুখ ভেঙে দিতে ইচ্ছে করছে’, সাংবাদিককে হুমকি দিয়ে ফের বিতর্কে ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement