BREAKING NEWS

১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

হাতে বল্লম পিঠে বন্দুক, মধ্যযুগীয় কায়দায় লাদাখে হানা চিনা বাহিনীর

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: September 8, 2020 8:47 pm|    Updated: September 8, 2020 9:00 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: হাতে বল্লম, কাঁধে অটোম্যাটিক রাইফেল নিয়ে ভারতীয় পোস্টে হানা চিনা সেনার। সীমান্তে ‘ড্রাগনে’র উদ্দেশ্য সাফ করে সদ্য এমনটাই ছবি প্রকাশ্যে এসেছে। সোমবার লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় (LAC) ভারতীয় সেনার পোস্টে হানা দেয় চিনা বাহিনী। তবে ভারতীয় জওয়ানদের হুমকিতে পিছু হঠতে বাধ্য হয় তাঁরা।

[আরও পড়ুন: ‘চিনেই মিলেছে খোঁজ’, অরুণাচল থেকে ‘অপহৃত’ ৫ যুবকের হদিশ দিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী]

এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত একটি ছবিতে দেখা যাচ্ছে পূর্ব লাদাখের প্যাংগং হ্রদের দক্ষিণ পারে রেচিন লা-রেজাং লা-মুখপারি ও মগর হিলের মধ্যে ভারতীয় ফৌজের একটি নজরদারি ঘাঁটিতে হামলার লক্ষ্যে এগিয়ে আসে লালফৌজের সৈনিকরা। তাঁদের প্রত্যেকের হাতেই ছিল মধ্যযুগীয় সিপাহীদের মতো বল্লম ও কাঁধে ঝুলছিল রাইফেল। এহেন রণসজ্জায় এটা সাফ যে জুনের ১৫ তারিখ গালওয়ান উপত্যকার মতোই এখানেই ভারতীয় সৈনিকদের উপর আচমকা হামলা চালানোর উদ্দেশ্যেই এগিয়ে আসছিল চিনের হানাদার বাহিনী। হাওয়ায় গুলিও ছুঁড়ে তাঁরা। কিন্তু ভারতীয় জওয়ানদের রণহুঙ্কার ও সতর্ক করে গুলি চালানোয় পিছু হঠতে বাধ্য হয় চিনারা।

উল্লেখ্য, গত মার্চ মাস থেকেই প্যাংগং হ্রদের উত্তর পারে আগ্রাসন চালিয়ে আসছিল চিনা বাহিনী। কিন্তু পরিস্থিতি আরও ঘোরাল হয়ে ওঠে আগস্ট ২৯ ও ৩০ তারিখে। একতরফাভাবে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখার অবস্থান বদলে ভারতীয় ভূখণ্ড দখল করতে এগিয়ে আসে প্রায় ২০০ চিনা সৈনিকের একটি দল। তবে এবার প্রস্তুত ছিল ভারতীয় বাহিনী। আগ্রাসন প্রতিহত করে এতদিন পর্যন্ত ফাকা পড়ে থাকা প্যাংগং হ্রদের দক্ষিণে পাহাড়ি অঞ্চলগুলির দখল নিয়ে নেয় ভারতীয় সেনা। বেগতিক দেখে পিছিয়ে যায় লালফৌজ। যদিও চিনের দাবি, তারা সীমান্তে কোনও রকম আগ্রাসন দেখায়নি। উলটে ভারতীয় সেনাদের বিরুদ্ধেই সীমান্ত পার হয়ে উত্তেজনা ছড়াবার অভিযোগ তুলেছে। সম্প্রতি মস্কোয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের সঙ্গে চিনা প্রতিরক্ষামন্ত্রীর বৈঠকেও সীমান্ত সমস্যার কোনও সমাধান পাওয়া যায়নি।

[আরও পড়ুন: ভারত নয়, সীমান্তে গুলি চালিয়েছে চিনা ফৌজই, পালটা দাবি ভারতীয় সেনার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement