BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বিদেশ থেকে আনা মাশরুম খেয়ে ফর্সা হয়েছেন মোদি, কটাক্ষ কংগ্রেস নেতার

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: December 12, 2017 10:33 am|    Updated: September 19, 2019 5:51 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এক মণিশঙ্কর আইয়ারে রক্ষে নেই, অল্পেশ ঠাকুর দোসর। গুজরাটে নির্বাচনী প্রচারের শেষদিনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে বেনজিরভাবে আক্রমণ করলেন কংগ্রেসের এই নেতা। তাঁর দাবি, বিদেশ থেকে আনা মাশরুম খেয়েই ফর্সা হয়ে উঠেছেন মোদি।

২০০০ টাকার নোট কি উঠে যেতে পারে? কী জানাল আরবিআই? ]

দিনকয়েক আগেই মোদিকে নিচ ব্যক্তি বলে কটূক্তি করেছিলেন প্রবীণ নেতা মণিশংকর আইয়ার। মোদিকে চা-ওয়ালা বলাও তিনিই শুরু করেছিলেন। ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের সে কথা ভাল চোখে নেয়নি দেশের মানুষ।  হিতে বিপরীত হয়। ভোটের ফলাফল দেখায় কংগ্রেসের বাক্যবাণ ব্যুমেরাং হয়ে ফিরেছে। এবার গুজরাট নির্বাচনের আগেও সে প্রসঙ্গ ফিরেছিল। তবে কৌশলে তা চাপা দিয়ে দিয়েছেন রাহুল গান্ধী। এবার প্রচারে তিনি অনেক পরিণত, সংযত। তাই উন্নয়ন ও দুর্নীতি কাঁটাতেই শাসকদলকে ক্রমাগত বিঁধে চলেছেন। তবে তাতেও শেষরক্ষা হল না। শেষমেশ সেই মণিশঙ্কর আইয়ারই মোদির বিরুদ্ধে বিষোদ্গার করে বসলেন। পরিস্থিতি সামাল দিতে প্রবীণ নেতার প্রাথমিক সদস্যপদ খারিজ করে কংগ্রেস।

‘জয় শাহর কীর্তি সামনে আসতেই দুর্নীতি নিয়ে নীরব মোদি’ ]

একেবারে শেষদিনে দলকে বিপাকে ফেললেন অল্পেশ ঠাকুর। তিনি দাবি করলেন, মোদি নাকি প্রতিদিন বিদেশ থেকে আমদানি করে আনা মাশরুম খান। সেই মুখ্যমন্ত্রী থাকার সময় থেকেই তাঁর এই অভ্যাস। অল্পেশের দাবি, আগে মোদি তাঁর মতোই কালো ছিল। কিন্তু এই মাশরুম খেয়ে খেয়েই ফর্সা হয়ে উঠেছে। তবে তাঁর অভিযোগের অভিমুখ অবশ্য অন্যদিকে। তিনি জানান, এক একটা মাশরুমের দাম নাকি প্রায় আশি হাজার টাকা। মোদি দিনে অন্তত পাঁচটি করে মাশরুম খান। অর্থাৎ বিপুল পরিমাণে অর্থ অপচয়ের দায়ই মোদির ঘাড়ে চাপিয়েছেন ওই নেতা। বলতে চেয়েছেন, মোদি যতই নিজেকে দরিদ্র বলুন, আসলে তিনি তা নন। বিজেপির প্রতি দরিদ্র গুজরাটিদের ক্ষোভ আছে। প্রচারের শেষদিনে তাই-ই উসকে দিলেন অল্পেশ।

প্রেমের টানে সীমান্ত পেরিয়ে জলপাইগুড়িতে, কী হাল হল বাংলাদেশি যুবকের? ]

এদিকে আজ সি-প্লেনে চড়তে দেখা গিয়েছে মোদিকে। তা নিয়ে রাহুল সংযত থাকলেও ‘হাওয়া-হাওয়াই’ বলে কটাক্ষ করেছে কংগ্রেস। এদিকে এই সি-প্লেন দেশে তৈরি নাকি বিদেশ থেকে আনানো হয়েছে সে প্রশ্ন তুললেন পতিদার নেতা হার্দিক প্যাটেল। শেষ দিনের প্রচারে শাসকদলকে বিঁধতে কোনওপক্ষই কোনও কসুর করেনি।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement