৪ ভাদ্র  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২২ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৪ ভাদ্র  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২২ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অত্যন্ত গুরুত্বপূ্র্ণ পরিস্থিতিতে পালিত হচ্ছে দেশের ৭৩ তম স্বাধীনতা দিবস৷ লোকসভা নির্বাচনে দ্বিতীয়বার মোদি সরকারের বিপুল জয়, জম্মু-কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বাতিল করে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভাগ করার মতো বিশেষ সময়ে লালকেল্লা থেকে প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশে ভাষণে ঠিক কী বার্তা দেন, সেদিকে সকলেরই নজর ছিল৷

[আরও পড়ুন: জলপথে ঢুকতে পারে ‘সমুন্দরি জেহাদি’রা, হাই অ্যালার্ট দেশজুড়ে

প্রত্যাশামতোই ৩৭০ ধারা বাতিলের প্রয়োজনীয়তার কথা উল্লেখ করে নরেন্দ্র মোদি আরেক দফা বিঁধলেন বিরোধীদের৷ প্রশ্ন তুললেন, ‘বিরোধিতা যারা করছেন, তাঁরাই বলুন তো ধারাটি এত গুরুত্বপূ্র্ণ হলে, কেন তা স্থায়ী ধারা হিসেবে সংবিধানে অন্তর্ভূক্ত করা হয়নি?’ সেইসঙ্গে এও বললেন, ‘জম্মু-কাশ্মীরে এতদিন লাগু থাকা ৩৭০ ধারার জেরে প্রচুর দুর্নীতি হতো, স্বজনপোষণ হতো৷ লাদাখের সাধারণ মানুষ, দলিত, আদিবাসীরা কোনও সুবিধা পেতেন না৷ এটা আমরা কীভাবে মেনে নিই? তাই এই বদল জরুরি ছিল৷’

গত ৫ বছরে দেশের উন্নতিতে একাধিক কেন্দ্রীয় প্রকল্প বাস্তবায়নের কথা উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী৷ বলেন, ‘৭২ বছর ধরে দেশের উন্নতিতে যতটা কাজ হওয়ার কথা ছিল, ততটা হয়নি৷ কিন্তু এবার আর পিছনে ফিরে তাকানো হয়৷ সামনের দিকে এগোতে হবে৷ দেশবাসীর মনোভাব বদলে গেছে৷ হতাশার কোনও জায়গা আর নেই৷ তা আশা-আকাঙ্ক্ষা, কর্মোদ্যোগে পরিণত হয়েছে৷’ তিনি আরও বলেন, ‘স্বাধীনতা মানে আমার কাছে, দেশের সমস্ত মানুষ যেন নিজেদের মতো করে বাঁচার রাস্তা খুঁজে পায়৷ কোথাও কোনও সমস্যা যেন না থাকে, সেদিকে এগিয়ে যেতে হবে৷ আমরা কি পারি না দেশবাসীর জীবনে রাষ্ট্রের প্রভাব একটু কমিয়ে ফেলতে? সবাইকে নিজেদের মতো করে বাঁচার অধিকার দেওয়া দরকার৷ আমাদের সরকার আইনের অনেক ধারা বিলুপ্ত করে সেই সুযোগ বাড়াচ্ছি৷ প্রত্যেকের ছোট ছোট স্বপ্ন পূরণ করব৷ সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রার মানোন্নয়ন করব৷’

মহাকাশ গবেষণায় ভারতের সাম্প্রতিক সাফল্যে গোটা বিশ্বের কাছে নজির বলে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এটা ২১ শতক৷ এখন মানুষের চাহিদা বদলেছে৷ আজকাল সকলে এসব নিয়ে সতর্ক, জানতে চান, নিজেদের দেশকে অনেক বড় জায়গায় দেখতে চান৷ আর তাঁদের সেই ইচ্ছাপূরণেই সরকার বিজ্ঞান গবেষণায় বাড়তি নজর দিয়েছে৷’ আর্থিক বৃদ্ধির হারে দেশ এগিয়েছে, এই দাবি করে তিনি বলেন, কর্মক্ষেত্র বেড়েছে৷ বেকারদের জীবনযাত্রায় পরিবর্তন এসেছে৷ ‘সবকা সাথ সবকা বিকাশ সবকা বিশ্বাস’ – মোদি সরকারের এই মন্ত্র আজ বাস্তব৷ আর এরই সঙ্গে দেশবাসীকে নিরাপত্তা প্রদানের দায়িত্বও পালন করছে সরকার৷ প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, সন্ত্রাসবাদ দমনে ভারত খুবই গুরুত্বপূর্ণ পালন করছে, যা বিশ্বের কাছে নিদর্শন৷ তাঁর কথায়, ‘শান্তির সঙ্গে কোনও আপোষ নয়৷ তাই পাকিস্তান হোক বা শ্রীলঙ্কা বা আফগানিস্তান, যেখানেই সন্ত্রাসবাদ থাবা বসায়, আমরা দেশের সীমান্ত পেরিয়ে তাদের পাশে থেকেই লড়াই করি সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে৷ কারণ, ভারতীয় উপমহাদেশে শান্তি স্থাপনই উদ্দেশ্য৷’

[আরও পড়ুন: ‘কোনও শর্ত নেই, কবে আসব বলুন’, কাশ্মীরের রাজ্যপালকে তীব্র কটাক্ষ রাহুলের]

এদিন সকালে লালকেল্লা থেকে ষষ্ঠবারের জন্য দেশের পতাকা উত্তোলন করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ উপস্থিত ছিলেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ, সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ, কেন্দ্রীয় মন্ত্রীবর্গ এবং সেনাবাহিনীর শীর্ষ আধিকারিক এবং বিদেশি অতিথিরা৷    

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং