BREAKING NEWS

৭ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  সোমবার ২৩ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

আশার আলো! দ্রুত ভ্যাকসিন বিতরণের কৌশল নির্ধারণে জরুরি বৈঠক প্রধানমন্ত্রীর

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: November 21, 2020 9:27 am|    Updated: November 21, 2020 9:27 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারতের করোনা ভ্যাকসিন বিতরণের কৌশল নির্ধারণ করতে শুক্রবার রাতে জরুরি বৈঠক করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi)। ভারচুয়াল বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন নীতি আয়োগের (NITI Ayog) কিছু সদস্য এবং সচিব স্তরের কয়েকজন আমলা। দেশের বর্তমান করোনা পরিস্থিতি এবং ভ্যাকসিন হাতে এলে তা কীভাবে বিতরণ করা হবে, সেসব নিয়ে এদিন বিস্তারিত আলোচনা করেন মোদি

করোনার ভ্যাকসিন (Corona Vaccine) নিয়ে সুসংবাদ শুনিয়েছে বহু সংস্থা। সার্বিকভাবে মনে করা হচ্ছে আগামী বছরের গোড়ার দিকেই একাধিক ভ্যাকসিন বাজারে চলে আসবে। কিন্তু শুধু বাজারে এলেই তো হল না, ভারতের বিপুল জনসংখ্যার চাহিদাও তো প্রচুর। যা পূরণ করতে সংস্থাগুলির তিন-চার বছর পর্যন্ত সময় লেগে যেতে পারে। তাই কারা আগে ভ্যাকসিন পাবে? তাঁদের কীভাবে দেওয়া হবে, দেশের বিভিন্ন প্রান্তে কীভাবে তা পৌঁছে দেওয়া হবে, কোল্ড স্টোরেজের কী বন্দোবস্ত হবে? এত ভ্যাকসিন কেনার টাকাটাই বা কোথা থেকে আসবে, এমন বহুবিধ প্রশ্ন এখন ভেসে আসছে। আর এইসব প্রশ্নের উত্তর খুঁজতেই শুক্রবার রাতে ওই জরুরি বৈঠকটি করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

[আরও পড়ুন: সেনার তৎপরতায় কাশ্মীরে বানচাল হয়েছে জঙ্গি হামলার ছক, জওয়ানদের প্রশংসা মোদির]

সূত্রের খবর, এদিনের বৈঠকে ভ্যাকসিন বিতরণের পদ্ধতি এবং প্রস্তুতি খতিয়ে দেখার পাশাপাশি ভ্যাকসিন তৈরির প্রক্রিয়ার কতদূর অগ্রগতি হয়েছে সেটাও খতিয়ে দেখেছেন প্রধানমন্ত্রী। যেসব বিজ্ঞানী, গবেষক এবং ওষুধের সংস্থাগুলি ভ্যাকসিন তৈরিতে নিজেদের নিয়োজিত করেছে, তাদেরও প্রশংসা করেন প্রধানমন্ত্রী। প্রসঙ্গত, গতকালই কেন্দ্র জানিয়েছিল এই মুহূর্তে অন্তত পাঁচটি সংস্থা ভারতে ভ্যাকসিনের ট্রায়াল চালাচ্ছে। এর মধ্যে একাধিক সংস্থার ট্রায়াল একেবারে চুড়ান্ত পর্যায়ে। এদিকে, কেন্দ্রও প্রাথমিকভাবে ৩০ কোটি ভ্যাকসিন প্রাপকের একটি তালিকা তৈরি করেছে বলে সূত্রের খবর। যে তালিকায় চিকিৎসক, চিকিৎসাকর্মী, ডাক্তারি পড়ুয়া, জরুরি পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তি, কো-মর্বিডিটি আছে এমন লোকজনের নাম রয়েছে। একটি ডিজিটাল মাধ্যমে তাঁদের সঙ্গে সমন্বয় সাধন করা হবে বলে জানা গিয়েছে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement