৩০ ভাদ্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

বিশেষ সংবাদদাতা, নয়াদিল্লি: জীবনযাপন আরও সহজ করতে সব মন্ত্রক ও দপ্তরকে বার্তা দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সোমবার লোককল্যাণ মার্গে নিজের বাসভবনে সব মন্ত্রকের সচিবদের সঙ্গে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী দেশে দারিদ্র মোচন ও জল সমস্যার সমাধানে অগ্রাধিকারের নির্দেশ দিয়েছেন। দ্বিতীয়বার প্রধানমন্ত্রী পদে শপথের পর এই প্রথম মোদি সব মন্ত্রকের সচিবদের সঙ্গে বৈঠকে বসলেন।

[আরও পড়ুন: রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে রিপোর্ট রাজ্যপালের, বৈঠক প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গেও]

ওই বৈঠকে প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন এবং প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রী জিতেন্দ্র সিং উপস্থিত ছিলেন। গত পাঁচ বছরে কাজ এবং সেই সূত্রে তাঁর সরকারকে ফের ক্ষমতায় ফেরাতে সাহায্যের জন্য মোদি আধিকারিকদের প্রভূত প্রশংসা করেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, “এবার লোকসভা নির্বাচন হয়েছে প্রতিষ্ঠান-পক্ষে। এর কৃতিত্ব সম্পূর্ণভাবেই আধিকারিকদের প্রাপ্য। ২০১৪ সালেও প্রথমবার প্রধানমন্ত্রী পদে বসার পর মোদি সব মন্ত্রকের সচিবদের নিয়ে এমন বৈঠক করেছিলেন। তারপর পাঁচ বছরে তিনি নিয়মিত এমন বৈঠক করেছেন। মোদি সরকার সচিবদের নিয়ে মোট আটটি গোষ্ঠী তৈরি করেছিল, যাঁরা প্রশাসনিক সংস্কারের জন্য পরামর্শ দিতেন। প্রতিমাসে বিভিন্ন তাজ্যের মুখ্যসচিবদের সঙ্গেও কথা বলতেন।

এদিন বিভিন্ন মন্ত্রকের সচিবদের আগামী পাঁচ বছরের কাজের রূপরেখা তৈরি করে দিলেন মোদি। তিনি বলেছেন, “আমাদের কাছে মানুষের যে আকাঙ্খা তাকে চ্যালেঞ্জ হিসাবে গ্রহণ করতে হবে এবং আমাদের আরও পরিশ্রম করতে হবে। মানুষের আকাঙ্খা থেকে একথা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে যে তাদের মধ্যেও দেশ বদলাক এই প্রত্যাশা রয়েছে।” কেন্দ্র সরকার যে গতবার সবার জন্য শৌচালয়ের পরে এবার সবার জন্য জলের ব্যবস্থার লক্ষ্য ধার্য করেছে তা জল বিষয়ক আলাদা মন্ত্রক থেকে আগেই বোঝা গিয়েছে। কাজ করার সঙ্গে সঙ্গে সরকারি কাজে যাতে দুর্নীতি না হয় সেদিকে নজর দেওয়ার জন্যও প্রধানমন্ত্রী সচিবদের পরামর্শ দিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।

[আরও পড়ুন: জঙ্গিবিরোধী অভিযানে উত্তপ্ত শ্রীলঙ্কায় মসজিদ ভেঙে গুঁড়িয়ে দিলেন মুসলিমরাই]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং