BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

জল্পনা উসকে NAM বৈঠকে নমো, হবে করোনা মহামারি নিয়ে আলোচনা

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: May 4, 2020 1:05 pm|    Updated: May 4, 2020 1:05 pm

An Images

ফাইল ফটো

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আজ বা সোমবার নন অ্যালাইনড মুভমেন্ট-এ (NAM) অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কীভাবে করোনা ভাইরাসের মোকাবিলা করা যায়। সেই বিষয়ে আলোচনাই প্রাধান্য পাবে এই বৈঠকে।

[আরও পড়ুন: পাশবিক, করোনা আক্রান্তের শ্লীলতাহানিতে অভিযুক্ত কর্তব্যরত চিকিৎসক]

তাৎপর্যপূর্ণভাবে, ২০১৪ সালে প্রধানমন্ত্রী পদে বসার পর এই প্রথম নির্জোট সম্মেলনে বা NAM সামিটে অংশ নিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি একমাত্র ভারতীয় পূর্ণাঙ্গ প্রধানমন্ত্রী যিনি ২০১৬ সালে NAM সামিটে অংশ নেননি। ২০১৯ সালেও একই ঘটনা ঘটেছিল। তাই এইবার তাঁর উপস্থিতি বিশেষ তাত্‍পর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।  জানা গিয়েছে, ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে এদিনের বৈঠকে করোনা মহামারি রুখতে ভারতের কৌশল নিয়ে আলোচনা করবেন প্রধানমন্ত্রী। এই বৈঠকের নেতৃত্ব দেবেন NAM-এর বর্তমান চেয়ারম্যান আজারবাইজানের রাষ্ট্রপতি ইলহাম আলিয়েভ। এই বৈঠকে উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে রাষ্ট্রসংঘের সেক্রেটারি জেনারেল আন্তোনিও গুতেরেস এবং WHO-এর ডিরেক্টর জেনারেল টেড্রোস আধানম ঘেব্রিয়েসুস (Tedros Adhanom Ghebreyesus)।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বদলে NAM সম্মেলনে যোগ দিতে আজারবাইজানের বাকুতে গিয়েছিলেন উপরাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নায়ডু। শুধুমাত্র প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিই নন। এর আগে ১৯৭৯ সালে NAM সামিটে যোগ দেননি তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী চরণ সিং। কিন্তু সে অর্থে মোদির সঙ্গে তাঁর তুলনা টানা যায় না। কারণ, সিং মূলত ছিলেন ‘তত্ত্বাবধায়ক’ বা ‘কেয়ারটেকার’ প্রধানমন্ত্রী। আর সে কারণেই নির্জোট সম্মেলনে মোদির না যাওয়ায় প্রশ্ন উঠছে, তাহলে কি জাতিবিদ্বেষ, ঔপনিবেশিকতার মতো ‘চ‌্যালেঞ্জ’ প্রতিহত করতে অন‌্যান‌্য কিছু দেশের সঙ্গে হাতে হাত মিলিয়ে যে ‘NAM’ প্রতিষ্ঠা করেছিল ভারত, তার কাছেই আজ আর এই সংগঠনের কোনও গুরুত্ব নেই?

কূটনৈতিক মহলের অবশ‌্য ব‌্যাখ‌্যা, যে সময় এবং পরিস্থিতিতে নাম গড়ে তোলা হয়েছিল, তার বেশিরভাগই আজ অপ্রাসঙ্গিক। বরং বর্তমান প্রেক্ষাপটে সবচেয়ে বড় সমস‌্যা হল সন্ত্রাসবাদ। আর মোদি সরকার মনে করে, ন‌্যামের মতো সংগঠনের মাধ‌্যমে সেই সমস‌্যা দূর করা সম্ভব নয়। সে কারণেই সম্ভবত নির্জোট সম্মেলন ভারতের মতো দেশের কাছে অনেকাংশেই গুরুত্ব হারিয়ে ফেলেছে। তবে বাংলাদেশ, নেপাল, শ্রীলঙ্কা, মালদ্বীপের মতো দেশের কাছে এই সংগঠনের গুরুত্ব এখনও আগের মতোই আছে। তবে করোনা পরিস্থিতিতে ফের প্রাসঙ্গিক হয়ে পড়ছে NAM বলেই মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

[আরও পড়ুন: অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াতে সময় লাগবে ১ বছরের বেশি! বলছে বণিকসভার সমীক্ষা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement