২৮ কার্তিক  ১৪২৬  শুক্রবার ১৫ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সাংহাই কোঅপারেশন অর্গানাইজেশনের বৈঠকে যোগ দেওয়ার জন্য বিশকেক যাবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সমস্যা হল, বিশকেক যাওয়ার দু’টিমাত্র রুট রয়েছে ভারত থেকে। একটি সোজাসুজি পাকিস্তানের উপর দিয়ে অপরটি ঘুরপথে ওমান, ইরান এবং মধ্য এশিয়ার অন্যান্য দেশগুলির উপর দিয়ে। সরাসরি পাকিস্তানের উপর দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর ভিভিআইপি বিমান যাতায়াতের জন্য বিদেশমন্ত্রক পাকিস্তানের কাছে অনুমতি চেয়েছিল। ‘নৈতিকতার দায়ে’ পাকিস্তান ভারতের সেই অনুরোধে সম্মতি দিয়েছিল। কিন্তু শেষ মুহূর্তে ভারতই মত বদলাল। পাকিস্তানের উপর দিয়ে বিশকেক যাবেন না মোদি, তিনি যাবেন ঘুরপথেই।

[আরও পড়ুন: রাহুলের বদলি দু’জন অন্তর্বর্তী সভাপতি, জল্পনা তুঙ্গে কংগ্রেসের অন্দরে]

বিদেশমন্ত্রকের তরফে বুধবার এক বিবৃতি দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, প্রথমে পাকিস্তানকে অনুমতির জন্য অনুরোধ করা হলেও শেষপর্যন্ত পাক আকাশসীমা এড়িয়েই বিশকেক যাবেন মোদি। বিবৃতিতে বিদেশমন্ত্রক জানিয়েছে, “ভারত সরকার বিশকেক পর্যন্ত ভিভিআইপি বিমান যাওয়ার দুটি রাস্তা ভেবেছিল। এবার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে নেওয়া হয়েছে, প্রধানমন্ত্রীর বিমান ওমান, ইরান হয়ে মধ্য এশিয়ার দেশগুলির উপর দিয়ে বিশকেক যাবে।” যদিও বিদেশমন্ত্রক সরাসরি বলে, পাকিস্তানকে এড়াতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, তবে, শেষ মুহূর্তে বিদেশমন্ত্রকের অবস্থান বদলের ফলে স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে, পাকিস্তানের আকাশসীমাকে এড়িয়ে যেতে চাইছেন মোদি।

[আরও পড়ুন: ‘এই সাফল্য বিশেষ’, অসম লড়াইয়ে সুবিচার পেয়ে আপ্লুত কাঠুয়ার কাণ্ডের আইনজীবীর]

উল্লেখ্য, বালাকোট এয়ারস্ট্রাইকের পর নিজেদের আকাশসীমার সব রুট বন্ধ করে দেয় পাকিস্তান। সেটা ছিল ২৬ ফেব্রুয়ারি। তারপর থেকে এখনও বন্ধ পাকিস্তানের অধিকাংশ এয়ার রুট। মোট ১১ টি রুটের মধ্যে ৯টি রুট এখনও বন্ধ। মাত্র ২টি রুট খোলা রয়েছে। দুটি রুটই দক্ষিণ পাকিস্তানের মধ্যে দিয়ে গিয়েছে। এই দুটি ছাড়া অন্য সব রুটে বাণিজ্যিক বিমান চলাচল এখনও বন্ধ। মোদির বিমান বিশকেকে পাঠানোর জন্য বন্ধ রুটগুলির মধ্যে একটি খুলে দেওয়ার আবেদন জানিয়েছিল ভারত। পাকিস্তান সম্মতিও দিয়েছিল।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং