BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনা আতঙ্কের মধ্যেই হু হু করে বাড়ছে নরেন্দ্র মোদির জনপ্রিয়তা! বলছে সমীক্ষা

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: April 30, 2020 5:05 pm|    Updated: April 30, 2020 5:07 pm

An Images

ফাইল ফটো

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দেশজুড়ে করোনা সংক্রমণের আতঙ্ক। প্রতিদিন লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। ইতিমধ্যেই হাজারের গণ্ডি পেরিয়ে গিয়েছে মৃতের সংখ্যাও। অথচ এহেন আতঙ্কের মধ্যেও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির (Narendra Modi) জনপ্রিয়তায় একটুও ভাটা পড়েনি। বরং আগের চেয়ে অনেক বেশি মানুষ তাঁর নেতৃত্বে বিশ্বাস রাখছেন। ভারতবাসীর একটা বড় অংশের ধারণা নরেন্দ্র মোদিই এই সংকটের সময়ে দেশকে নেতৃত্ব দেওয়ার উপযুক্ত ব্যক্তিত্ব।

Modi

[আরও পড়ুন: EMI স্থগিতের সুবিধা পাচ্ছে না গ্রাহকরা, RBI-কে খতিয়ে দেখার নির্দেশ শীর্ষ আদালতের]

Morning Consultant নামের এক আমেরিকান সংস্থার সমীক্ষা বলছে করোনা পরিস্থিতির আগের তুলনায় বর্তমানে নরেন্দ্র মোদির জনপ্রিয়তা অনেকটাই বেড়েছে। এই মুহূর্তে ভারতের ৮৩ শতাংশ মানুষ মোদির ওপর ভরসা রাখছেন। আগে ছিল ৭৬ শতাংশ। অর্থাৎ করোনা সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর মোদির জনপ্রিয়তা আরও ৭ শতাংশ বেড়েছে। এদিকে দুই দেশীয় সমীক্ষক সংস্থা IANS এবং C-Voter তাদের করোনা ট্রাকারে দেখাচ্ছে, মোদির জনপ্রিয়তা আরও অনেকটা লাফিয়েছে। ৭৬.৮ থেকে বেড়ে তা হয়েছে ৯৩.৫ শতাংশ। অর্থাৎ করোনা সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর প্রায় ১৬ শতাংশ বেড়েছে প্রধানমন্ত্রীর জনপ্রিয়তা।

[আরও পড়ুন: বেশি দামে মুরগির মাংস বিক্রির জের, দিল্লিতে খুন মেদিনীপুরের যুবক]

২০১৪ সালে ক্ষমতায় আসার আগে থেকেই দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেতা হিসেবে উঠে এসেছেন নরেন্দ্র মোদি। ৬ বছর ক্ষমতায় থাকার পরও তার সেই জনপ্রিয়তা অব্যাহত। তবে করোনা হানার আগে বেশ বেকায়দায় পড়ে গিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী। দেড় দশকের মধ্যে সবচেয়ে ধীর গতিতে চলছিল অর্থনীতি। চাকরি হারাচ্ছিলেন লক্ষ লক্ষ মানুষ। দিল্লি হিংসার মতো সাম্প্রদায়িক ঘটনা প্রশ্ন তুলেছিল প্রধানমন্ত্রীর প্রশাসনিক দক্ষতা নিয়েও। কিন্তু কারোনার দৌলতে এইসব নেগেটিভ ফ্যাক্টর এখন অতীত । ভারতবাসী মনে করছে করোনা মোকাবিলায় যে পথে মোদি এগোচ্ছেন, তাতেই নিয়ন্ত্রণে আনা যাবে সংক্রমণ। সঠিক সময়ে লকডাউন জারি করার সিদ্ধান্ত প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বের উপর বিশ্বাস আরও বাড়িয়েছে। ফলে ফের জনপ্রিয়তার শীর্ষে উঠে এসেছেন প্রধানমন্ত্রী।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement