BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

চিকিৎসকদের হাতযশ, কাটা হাত জোড়া লাগল আক্রান্ত পাঞ্জাব পুলিশের ASI-এর

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: April 13, 2020 12:58 pm|    Updated: April 13, 2020 12:58 pm

An Images

নিহাঙ্গদের ডেরার সামনে মোতায়েন রয়েছে পুলিশ

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পাতিয়ালার একটি সবজি বাজারে লকডাউন ভেঙে যথেচ্ছভাবে ঘোরাফেরা করছেন লোকজন। এই খবর পেয়ে রবিবার সকালে সহকর্মীদের সঙ্গে আইনভঙ্গকারীদের ধরতে গিয়েছিলেন পাঞ্জাব পুলিশের অ্যাসিস্টান্ট সাব ইনস্পেক্টর (ASI) হরজিৎ সিং। এর জেরে তাঁর হাত কেটে নেয় নিহাঙ্গ সম্প্রদায়ের কয়েকজন ব্যক্তি। সঙ্গে সঙ্গে ওই পুলিশকর্মীকে নিয়ে এসে ভরতি করা হয়েছিল চণ্ডীগড়ের পিজিআইএমইআর (PGIMER) হাসপাতালে। সেরা প্লাস্টিক সার্জেনদের ডেকে পাঠানো হয়। এরপর সাড়ে সাত ঘণ্টা ধরে অক্লান্ত পরিশ্রম করার পর তাঁর কাটা হাত জোড়া লাগাতে সক্ষম হন চিকিৎসকরা। বর্তমানে ওই পুলিশকর্মীর শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। এদিকে এই ঘটনায় জড়িতে থাকার অভিযোগে এখনও পর্যন্ত ১১ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পাঞ্জাব পুলিশ। চিকিৎসা চলছে আক্রান্ত বাকি দুই পুলিশকর্মীরও।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, নিয়ম মেনে না চলায় পুলিশকর্মীরা পাতিয়ালার সানাউর এলাকার ওই সবজি বাজার বন্ধ করতে গিয়েছিলেন। সেইসময় নিহাঙ্গ প্রধান বাবা বলবিন্দার সিং চারজন অনুগামীকে সঙ্গে নিয়ে একটি গাড়িতে করে বাজার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছিল। তাদের কাছে বাইরে বেরোনোর পাস চাওয়া।বিষয়টি নিয়ে সঙ্গে বচসা চলার মাঝেই আচমকা পুলিশ কর্মীদের উপর অস্ত্র নিয়ে চড়াও হয় অভিযুক্তরা। ধারালো অস্ত্রের কোপে হরজিৎ সিংয়ের একটি হাতের বেশ খানিকটা অংশ কেটে নেওয়ার পাশাপাশি আরও দুই পুলিশকর্মীকে বেধড়ক মারধর করে।

[আরও পড়ুন: সক্রিয় হচ্ছে একাধিক মন্ত্রক, লকডাউনের মধ্যেই কাজে যোগ দিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরা ]

 

ওই সময়ে তোলা একটি ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, পাতিয়ালার ওই সবজি বাজার গার্ড রেল দিয়ে ঘিরছিল পুলিশ। ঠিক সেই সময়েই একটি গাড়ি গার্ড রেলকে ধাক্কা মেরে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে। পুলিশকর্মীরা ওই গাড়িটিকে আটকানোর চেষ্টা করলে, হরজিৎ সিংহের দিকে তলোয়ার উঁচিয়ে তেড়ে আসছে এক ব্যক্তি। তিনি নিজেকে বাঁচানোর চেষ্টা করলেও শেষরক্ষা হয়নি। সরাসরি ছুটে এসে সজোরে তাঁর হাতে কোপ বসিয়ে দেয় ওই দুষ্কৃতী। এরপর রাস্তায় লুটিয়ে পড়ে রুমাল দিয়ে নিজের হাত ঢাকার চেষ্টা করছেন হরজিৎ।

এপ্রসঙ্গে পাঞ্জাব পুলিশের ডাইরেক্টর জেনারেল (DG) দিনাকর গুপ্তা বলেন, ‘এই ঘটনার পরই এক মহিলা-সহ বাকি দুষ্কৃতীরা পালিয়ে গিয়ে বালবেরা এলাকার নিহাঙ্গ ডেরা কমপ্লেক্স লুকিয়ে ছিল। বাইরে থেকে বারবার পলাতক অভিযুক্তদের আত্মসমপর্ণ করার জন্য মাইকিং করা হয়েছিল। কিন্তু, তারপর কোনও ভ্রুক্ষেপ করছিল না তারা। বাধ্য হয়ে পাতিয়ালা রেঞ্জের আইজি (IG) যতিন্দর আহুলাক ও পাতিয়ালার পুলিশ সুপার মানদীপ সিধুর নেতৃত্বে পুলিশ কর্মীদের একটি দল ওই ডেরা কমপ্লেক্সে ঢুকে পড়ে। তাদের আটকানোর জন্য দুষ্কৃতীরা ভিতর থেকে গুলি ছুঁড়লে শেষরক্ষা হয়নি।’

[আরও পড়ুন: নজিরবিহীন উদ্যোগ, উপসর্গহীন আক্রান্তদের সেবায় নিযুক্ত হলেন করোনা জয়ীরা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement