BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘ক্রোনোলজিটা বুঝুন’, চিন ইস্যু নিয়ে ফের মোদি সরকারকে খোঁচা রাহুলের

Published by: Biswadip Dey |    Posted: September 16, 2020 8:45 pm|    Updated: September 16, 2020 8:45 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: তিনি এই মুহূর্তে দেশে নেই। মা সোনিয়া গান্ধীর চিকিৎসার জন্য গত সপ্তাহেই বিদেশে গিয়েছেন রাহুল গান্ধী (Rahul Gandhi)। ফলে সংসদের বাদল অধিবেশনে যোগ দেওয়া হচ্ছে না কংগ্রেস নেতার। কিন্তু দেশের বাইরে থেকেই মোদি সরকারের প্রতি আক্রমণ অব্যাহত রেখেছেন তিনি। নিয়মিত টুইট করে সমালোচনা করছেন। বুধবার দুপুরে আরও একটি টুইটে ভারত-চিন সীমান্ত সংঘর্ষ (India-China stand-off) প্রসঙ্গে নরেন্দ্র মোদি সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিলেন রাহুল।

টুইটের শুরুতেই তিনি লেখেন, ‘‘ক্রোনোলজিটা বুঝুন।’’ প্রসঙ্গত, গত বছর সিএএ ও এনআরসি প্রসঙ্গে ঠিক এই কথাই বলেছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Amit Shah)। রাহুল তাঁর টুইটের শুরুতে এভাবেই কটাক্ষ করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে।

[আরও পড়ুন: প্রধানমন্ত্রীর ৭০তম জন্মদিনের প্রাক্কালে ৭০ কেজি লাড্ডু বিতরণ বিজেপি কর্মীদের]

এরপরেই তিনি পরপর কয়েকটি বাক্য সাজিয়ে দিয়েছেন। যেখানে তিনি দাবি করেছেন, প্রধানমন্ত্রী প্রথমে বলেছিলেন সীমান্তে কোনও অনুপ্রবেশ হয়নি। এবং তারপরই ভারত চিনের (China) এক ব্যাঙ্ক থেকে বড় অঙ্কের ঋণ নেয়। এরপর প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং জানান, চিন ভারতের ভিতরে ঢুকে ভূমি দখল করেছে। আর এখন, স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী জানাচ্ছেন কোনও অনুপ্রবেশ হয়নি।

 

এইভাবে ঘটনাক্রম পরপর সাজিয়ে রাহুল গান্ধী প্রশ্ন তোলেন, ভারতীয় সেনা নাকি চিন‌, মোদি সরকার কার সঙ্গে রয়েছে। শেষে প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে তাঁর প্রশ্ন, ‘‘মোদিজি, ভয় পাচ্ছেন কেন?’’

[আরও পড়ুন: করোনার ভ্যাকসিন তৈরির জন্য সরকারি সাহায্য পাচ্ছে ৩০টি সংস্থা, সংসদে জানাল কেন্দ্র]

প্রসঙ্গত, গত জুনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি গালওয়ান প্রদেশের হিংসার পরে জানিয়ে দিয়েছিলেন, ভারতের মাটিতে কেউ প্রবেশ করেনি কিংবা কোনও পোস্ট দখলও করেনি। সংবাদ সংস্থা রয়টার্সের সূত্রে জানা যাচ্ছে, ওই সময়ে কেন্দ্রীয় সরকার চিনের এআইআই ব্যাঙ্ক থেকে ৭৫ কোটি ডলার ঋণ নিয়েছিল। করোনা ভাইরাসের মোকাবিলার জন্য ওই পরিমাণ অর্থ ঋণ নিতে হয়েছিল বলে দাবি রয়টার্সের। এরপর থেকে ভারত চিনের সঙ্গে ব্যবসায়িক লেনদেন বন্ধ করে দেয়। যার মধ্যে রয়েছে চিনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করার মতো ঘটনাও।

বুধবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তরফে সংসদে জানানো হয়, প্রকৃত সীমান্তরেখা দিয়ে কোনও অনুপ্রবেশের ঘটনা ঘটেনি। এর ফলে সৃষ্টি হয়েছে সংশয়ের। কেননা মঙ্গলবারই প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং জানিয়েছিলেন, চিন ভারতে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করেছিল।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement