BREAKING NEWS

৯ মাঘ  ১৪২৮  রবিবার ২৩ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

এবার থেকে নেতাজির জন্মদিনেই শুরু সাধারণতন্ত্র দিবস উদযাপন, ঘোষণা কেন্দ্রের

Published by: Kishore Ghosh |    Posted: January 15, 2022 12:19 pm|    Updated: January 15, 2022 3:43 pm

Republic Day celebrations now begin from January 23 every year

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এবার থেকে ২৩ জানুয়ারি থেকেই সাধারণতন্ত্র দিবস পালন (Republic Day Celebration) শুরু হয়ে যাবে। ঘোষণা করল কেন্দ্র। নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুকে (Subhas Chandra Bose) সম্মান জানাতেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে সরকারি সূত্রে।

এতদিন ২৪ জানুয়ারি থেকে সাধারণতন্ত্র দিবসের সরকারি আনুষ্ঠানিকতা শুরু হত। অন্যদিকে আলাদা ভাবে নেতাজির জন্মদিনটিও পালন করত কেন্দ্র। ২৩ জানুয়ারিকে মোদি সরকার পরাক্রম দিবস হিসেবে পালন করে থাকে।

[আরও পড়ুন: সাধারণতন্ত্র দিবসের ট্যাবলোয় রাম মন্দিরের নকশা, বিতর্কের মধ্যেই সেরার খেতাব পেল উত্তরপ্রদেশ]

সরকারি সূত্রে খবর, নতুন করে ভারতের ইতিহাস ও সংস্কৃতির গুরুত্বপূর্ণ দিকগুলিকে বিশেষ ভাবে উদযাপন ও স্মরণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। সেই সূত্রেই এবার থেকে সুভাষচন্দ্র বসুর জন্মদিন ২৩ জানুয়ারি থেকেই সাধারণতন্ত্র দিবসের আনুষ্ঠানিক উদযাপন শুরু করতে চাইছে কেন্দ্রের মোদি সরকার।

[আরও পড়ুন: নেতাজিকে উৎসর্গ রেড রোডে সাধারণতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠান, দিল্লির রাজপথে বাংলার সবুজসাথী]

সূত্রের খবর, অন্য বেশ কয়েকটি দিবসকে বছরভর বিশেষ গুরুত্ব সহকারে পালনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। যার বেশ কয়েকটি গত কয়েক বছর ধরেই পালিত হয়ে আসছে। সেগুলির মধ্যে রয়েছে ১৪ অগস্ট দেশভাগ স্মরণ দিবস, ৩১ অক্টোবর জাতীয় ঐক্য দিবস (যা পালন করা হয় সর্দার পটেলের জন্মদিনে), ১৫ নভেম্বর জনজাতি গৌরব দিবস (যা পালন করা হয় বিরসা মুণ্ডার জন্মদিনে), ২৬ নভেম্বর সংবিধান দিবস এবং ২৬ ডিসেম্বর বীর বাল দিবস (গুরু গোবিন্দ সিংয়ের চার ছেলেকে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয় এই দিনে)।

এর আগেই কেন্দ্র সারা দেশে নেতাজির স্মৃতিবিজরিত স্থানগুলিকে নিয়ে আলাদা পরিকল্পনা করা হয়েছিল৷ গত বছর অক্টোবরে কেন্দ্রের পর্যটন মন্ত্রক আজাদ হিন্দ সরকার গঠনের বার্ষিকীতে (২১ অক্টোবর) কিউরেটেড ট্যুরের পরিকল্পনার কথা জানায়।

সেই সময় পর্যটন মন্ত্রকের এক আধিকারিক জানান, “স্থানগুলিকে চিহ্নিত করা হয়েছে। এই বিশেষ পর্যটনে একাধিক পথ অন্তর্ভুক্ত করা হবে। আমরা নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর সঙ্গে সংযুক্ত গন্তব্যগুলির মানচিত্র তৈরি করে কিউরেটেড ভ্রমণপথ তৈরি করেছি। নেতাজি স্মৃতিবিজরিত পর্যটনস্থলগুলিকে জনপ্রিয় করে তুলতে উদ্যোগ নিতে বলা হয়েছে পর্যটন ব্যবসায়ীদের।”

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে