৫ শ্রাবণ  ১৪২৬  রবিবার ২১ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিহারে প্রায় মারণ রোগের আকার নিয়েছে এনসেফালাইটিস৷ প্রতিদিন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে মৃতের সংখ্যা৷ এই ঘটনার দিকে এবার দৃষ্টিপাত করল সুপ্রিম কোর্ট৷ বিহার সরকারকে তীব্র ভর্ৎসনা করেন বিচারপতি৷ শিশুমৃত্যু রুখতে, রোগ প্রতিরোধে কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, তা আগামী সাতদিনের মধ্যে রিপোর্ট পেশ করার নির্দেশ দিয়েছে সর্বোচ্চ আদালত৷ 

[ আরও পড়ুন: মানবিক প্রধানমন্ত্রী, বিরল রোগে আক্রান্ত কিশোরীকে ৩০ লক্ষ টাকা সাহায্য মোদির]

গত কয়েকদিন ধরে বিহারে থাবা বসিয়েছে এনসেফালাইটিস৷ শ্রীকৃষ্ণ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, পাটনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভরতি রয়েছে শিশুরা৷ দিন যত যাচ্ছে, ততই বাড়ছে এনসেফালাইটিসে মৃতের সংখ্যা৷ সোমবারও মুজফ্ফরনগরে আরও দুই শিশুর মৃত্যু হয়েছে৷ সরকারি হিসাব অনুযায়ী, এখনও পর্যন্ত রোগের বলি ১৫২ জন শিশু৷ যদিও বেসরকারি মতে মৃতের সংখ্যা ১৮০ ছুঁই ছুঁই৷ লিচু খেয়ে রোগ সংক্রামিত হয়েছে বলেই অনুমান চিকিৎসকদের৷ যদিও সমীক্ষা বলছে, শুধু লিচুই নয়৷ অপুষ্টিও শিশুমৃত্যুর অন্যতম কারণ৷ নিহত শিশুদের পরিবার মৃত্যুর জন্য চিকিৎসকদের গাফিলতিকে দায়ী করেছেন৷ তাঁদের অভিযোগ, সঠিক চিকিৎসা না পেয়ে একে একে মারা যাচ্ছে খুদেরা৷ এই অভিযোগের জেরে ইতিমধ্যেই নড়েচড়ে বসেছে স্বাস্থ্যদপ্তর৷ রবিবারই শ্রীকৃষ্ণ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সিনিয়র চিকিৎসক ভীমসেন কুমারকে বরখাস্ত করা হয়েছে৷

[ আরও পড়ুন: বালাকোটের বদলার ছক! পাকিস্তানের লুকোনো সাবমেরিনের খোঁজ পেল ভারত]

এদিকে সোমবার সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিরা এনসেফালাইটিসে মৃত্যু নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন৷ একের পর এক শিশুমৃত্যু হলেও নীতীশ কুমার সরকারের কোনও হেলদোল নেই বলেও ক্ষোভ প্রকাশ করেন বিচারপতিরা৷ বিহার সরকারকে তীব্র ভর্ৎসনা করেন তাঁরা৷ শিশুমৃত্যু রুখতে রোগ প্রতিরোধে এখনও পর্যন্ত কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, তা নিয়ে আগামী সাত দিনের মধ্যে রিপোর্ট তলব করা হয়েছে৷ এনসেফালাইটিস নিয়ে চাপে নীতীশ কুমারও৷ ভয়ংকর রোগে মৃত্যুমিছিলকে হাতিয়ার করে মাটি শক্ত করতে আসরে নেমেছে বিরোধীরা৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং