৫ আশ্বিন  ১৪২৬  সোমবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

মাসুদ আহমেদ, শ্রীনগর: বেশ কিছুদিন ধরেই একটু একটু করে স্বাভাবিক ছন্দে ফিরছিল উপত্যকা। এবার ১৯ আগস্ট, সোমবার থেকে কাশ্মীরের সব স্কুল-কলেজ খোলার নির্দেশ দিলেন জম্মু-কাশ্মীরের রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক। সেই সঙ্গে সরকারি দপ্তরের কর্মীদের কাজকর্ম ও পরিবহণ ব্যবস্থা স্বাভাবিক করারও ঘোষণা করলেন তিনি৷

[ আরও পড়ুন: ‘প্রয়োজনে পরমাণু নীতি পালটাতেও পারে ভারত’, পাকিস্তানকে হুঁশিয়ারি রাজনাথের]

পরে সাংবাদিক সম্মেলন করে উপত্যকার বর্তমান অবস্থার কথা সকলের সামনে তুলে ধরেন জম্মু-কাশ্মীরের মুখ্য সচিব বিভিআর সুব্রহ্মণ্যম৷ জানান, স্কুল-কলেজ-সরকারি দপ্তরের পাশাপাশি, কাশ্মীরে চালু হবে টেলিফোন পরিষেবা৷ লস্কর-হিজবুলের চেষ্টা সত্ত্বেও, গত কয়েকদিনে উপত্যকায় কোনও সাধারণ মানুষের প্রাণহানি বা জখম হওয়ার মতো ঘটনা ঘটেনি৷ এখানেই শেষ নয়, গ্রেপ্তার হওয়া জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন দুই মুখ্যমন্ত্রী, ওমর আবদুল্লা ও মেহবুবা মুফতিকেও শীঘ্রই ছাড়া হতে পারে বলে ইঙ্গিত দেন তিনি৷ অন্যদিকে, কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহার প্রসঙ্গে রাষ্ট্রসংঘে চিঠি লিখেছিল চিন৷ সেই চিঠির ভিত্তিতেই বৈঠকে বসতে চলেছে রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ৷

[ আরও পড়ুন: গোমাংস ভক্ষণের পোস্ট করে বিতর্কে জড়ালেন মহিলা গবেষক ]

জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা রদ করে দু’টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে বিভক্ত করার ভারতীয় সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রসংঘের দ্বারস্থ হয়েছিল পাকিস্তান ঘনিষ্ঠ চিন। সেই সঙ্গে এই বিষয়ে ১৫ আগস্ট রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ বৈঠকে বসুক বলে চিন আবেদন করেছিল। এই বিষয়ে চিনের বিরোধিতা করে ফ্রান্স। শুধু ফ্রান্সই নয়, চিন ছাড়া নিরাপত্তা পরিষদের অন্য চার স্থায়ী সদস্য প্রকাশ্যে নয়াদিল্লির অবস্থান সমর্থন করে। এটি ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে বিরোধ দ্বিপাক্ষিক বিষয় বলে তারা মত প্রকাশ করে। একই পথে হেঁটে আমেরিকাও জানায়, কাশ্মীরের উন্নয়ন নিয়ে ভারতের এই সিদ্ধান্ত পুরোপুরিই তাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং