২৬ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  শুক্রবার ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পি চিদম্বরমের পর এবার ইডির নজরে রাজ ঠাকরে। আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগের তদন্তে নেমে প্রয়াত শিবসেনা প্রধান বালাসাহেব ঠাকরের ভাইপোকেও ডেকে পাঠাল ইডি। বৃহস্পতিবার সকালে মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনার প্রধান রাজ ঠাকরেকে আর্থিক দুর্নীতি কাণ্ডে জেরা শুরু করলেন এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরটের শীর্ষ আধিকারিকরা।

[আরও পড়ুন: জেলবন্দি ইন্দ্রাণীর তথ্যেই প্যাঁচে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী চিদম্বরম!]

এক সময় মহারাষ্ট্রের সবচেয়ে ক্ষমতাসীন ব্যক্তি বালাসাহেব ঠাকরের সর্বক্ষণের ছায়াসঙ্গী ছিলেন ভাইপো রাজ। তবে বালাসাহেবের মৃত্যুর পর বদলে গিয়েছিল পরিস্থিতি। বাল ঠাকরের ছেলে উদ্ধবের সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় আলাদা দল গড়েন তিনি। গত লোকসভা ভোটে বিজেপি ও শিবসেনা বিরোধী প্রচারও করেন মহারাষ্ট্রজুড়ে। সম্প্রতি মহারাষ্ট্রের দাপুটে এই রাজনীতিবিদকে সমন পাঠিয়েছিল ইডি। তার প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার সকালে মুম্বইয়ে
অবস্থিত ইডির দপ্তরে হাজিরা দিতে যান রাজ ঠাকরে। সঙ্গে তাঁর পরিবারের সদস্যরাও ছিলেন।

জানা গিয়েছে, রাজের কোহিনূর সিটিএনএল সংস্থা লিজ নেওয়া ও আর্থিক সহযোগিতা পেতে আইএল অ্যান্ড এফএসের কাছ থেকে ৪৫০ কোটি টাকা ঋণ নিয়েছিল। এই সংক্রান্ত ইস্যুতে বেআইনিভাবে ঋণের টাকা না মেটানোর অভিযোগও রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে। যদি তাঁকে তলব করার প্রতিবাদে রাজের দলের কর্মীরা বৃহস্পতিবার সকালে ইডির অফিসের সামনে হাজির হয়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। গন্ডগোলের আশঙ্কা থাকায় আগে থেকেই ইডি দপ্তরের বাইরে প্রচুর পুলিশকর্মী মোতায়েন করা হয়েছিল মুম্বই পুলিশের তরফে। তাই খুব বড় কোনও গন্ডগোল হয়নি।

[আরও পড়ুন: ‘অর্থনীতির বেহাল দশা নিয়ে প্রশ্ন তুলে গ্রেপ্তার চিদম্বরম’, দাবি কংগ্রেসের]

সূত্রের খবর, শ্যাডো ব্যাঙ্ক ইনফ্রাস্ট্রাকচার লিজিং অ্যান্ড ফিনান্সিয়াল সার্ভিসেসের একটি মামলায় পাঠানো সমনের জবাব দিতে রাজ ঠাকরে ইডির অফিসে গিয়েছেন। এদিকে মহারাষ্ট্র পুলিশ নোটিস জারি করে জানিয়েছে, গন্ডগোল বাঁধালে বিনা পরোয়ানাতেই ঠাকরেকে গ্রেপ্তার করার ক্ষমতা রয়েছে পুলিশের। মেরিন ড্রাইভ, দাদর এবং আজাদ ময়দান থানার অধীনের বেশি কিছু এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছিল। ইডির কাছে যাওয়ার আগে দলীয় কর্মীদের উদ্দেশে টুইট করেন রাজ। তাতে লেখা ছিল, ‘জনসাধারণের কোনও সম্পত্তির ক্ষতি হওয়া উচিত নয়। সাধারণ মানুষকেও যেন কোনওভাবেই ক্ষতিগ্রস্ত না হতে হয়।’

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং