১ কার্তিক  ১৪২৬  শনিবার ১৯ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

১ কার্তিক  ১৪২৬  শনিবার ১৯ অক্টোবর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের জোরদার ধাক্কা শেয়ার বাজারে। বম্বে স্টক এক্সচেঞ্জ সূচক বা সেনসেক্স একধাক্কায় ৪৭০ পয়েন্ট কমে বৃহস্পতিবার দিনের শেষে ৩৬,০৯৩ পয়েন্টে এসে দাঁড়ায়। যা ১ মার্চের পর সর্বনিম্ন। পাশাপাশি, ন‌্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জ বা নিফটি সূচকেও ব‌্যাপক পতন হয়েছে। ১৩৬ পয়েন্ট পড়ে নিফটি এসে দাঁড়ায় ১০,৭০৫ পয়েন্টে। যা গত ১৯ ফেব্রুয়ারির পর সর্বনিম্ন। সব মিলিয়ে ভারতের বাজারের উপর দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারীদের আস্থা যে এখনও ফেরেনি, সেটাই আরও স্পষ্ট হয়ে গেল বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

[আরও পড়ুন: বোরখা পরে সমাবর্তনে, টপার ছাত্রীকে ডিগ্রির শংসাপত্র দিল না রাঁচির কলেজ]

বৃহস্পতিবার এক সময় ৫৭৬ পয়েন্ট পড়ে ৩৬ হাজারের নিচে নেমে আসে সেনসেক্স। নিফটিরও ১৭০ পয়েন্ট পড়ে ১০,৭০০-র বেঞ্চমার্ক ভেঙে যায়, যা গত ৭ মাসে সর্বনিম্ন। নেমে দঁাড়ায় ১০,৬৭০ পয়েন্টে। তবে দিনের শেষে কিছুটা ঘুরে দঁাড়ানোয় আশার আলো দেখা গিয়েছে। ন‌্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জে নথিভুক্ত ১১টি সেক্টরের সবক’টিতেই দর পড়েছে। বিশেষত, মিডিয়া সেক্টরে দর পড়ে যায় প্রায় চার শতাংশ। ধাতু, রাষ্ট্রায়ত্ত ব‌্যাঙ্ক, গাড়ি, ফার্মাসিউটিক‌্যাল এবং বেসরকারি ব‌্যাঙ্ক, সব ক্ষেত্রেই ব‌্যাপক পতন হয়। এ দিন বাজারের পতনের কারণ হিসাবে এশিয়ার স্টক এক্সচেঞ্জকেই দায়ী করছেন বিশেষজ্ঞরা। মার্কিন ফেডারেল রিজার্ভ ঋণের উপর ২৫ বেসিস পয়েন্ট সুদ কমানোর সিদ্ধান্ত নেয়। যার জেরে স্টক এক্সচেঞ্জগুলির সূচক হুড়মুড়িয়ে পড়তে থাকে। আরও সুদ কমানোর ইঙ্গিত দিয়ে রেখেছে মার্কিন ফেডারেল রিজার্ভ।

শেয়ার বাজারে চলা ডামাডোলে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে স্টেট ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া, আইসিআইসিআই ও ইয়েস ব্যাংক। এছাড়াও ধাক্কা খেছে তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থা টিসিএস, টেক মহিন্দ্রা ও এইচসিএল-য়ের শেয়ারও। মোতিলাল ওসওয়াল ফিনান্সিয়াল সার্ভিসেস-এর শীর্ষ কর্তা বলেন, মধ্যেপ্রাচ্যে চলা চাপানউতোরের প্রভাব পড়বে ভারতীয় শেয়ার বাজারে। ফলে আগামী দিনে আন্তর্জাতিক মঞ্চে হওয়া ঘটনাচক্রের দিকে তাকিয়ে রয়েছেন বিনিয়োগকারীরা।

এদিকে, ফের দাম বাড়ল পেট্রল ও ডিজেলের। গোটা বিশ্বেই এখন তেলের দাম ঊর্ধ্বমুখী। তার প্রভাব পেড়েছে এদেশের বাজারেও। বৃহস্পতিবার থেকে ২৯ পয়সা দাম বেড়েছে পেট্রলের। ডিজেলের দাম বেড়েছে ১৯ পয়সা। কলকাতায় আজ লিটার প্রতি পেট্রলের দাম বেড়ে হয়েছে ৭৫.৪৩ টাকা ও ডিজেলের দাম হয়েছে ৬৮.৪২ টাকা। তেলের দাম বৃদ্ধির প্রভাব পড়তে পারে বাণিজ্যক্ষেত্রেও। কারণ, অপরিশোধিত তেলের দাম যদি ১ ডলার বাড়ে, তাহলে আমদানি খরচ বাড়ে ১০ হাজার ৭০০ কোটি টাকা। এর ফলে বাণিজ্যে সমস্যা হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। ফলে আগামীদিনে পরিস্থিতি কোনদিকে গড়াবে, তা নিয়ে চিন্তায় অর্থনীতিবিদরা।

[আরও পড়ুন: সৌদি শোধনাগারে হামলার জের, মধ্যপ্রাচ্যে বাড়ছে যুদ্ধের আশঙ্কা]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং