১০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৬ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘দেশের প্রয়োজনে হিন্দুত্বের তলোয়ার নিয়ে এগিয়ে আসবে শিব সেনা’, বিজেপিকে খোঁচা রাউতের

Published by: Biswadip Dey |    Posted: November 17, 2020 5:43 pm|    Updated: November 17, 2020 5:44 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শিব সেনা (Shiv Sena) ও বিজেপির (BJP) মধ্যে কথার লড়াই অব্যাহত। মঙ্গলবার শিব সেনার মুখপাত্র সঞ্জয় রাউত (Sanjay Raut) গেরুয়া শিবিরকে আক্রমণ করে সাফ জানিয়ে দিলেন, ‘‘আমাদের অন্য কোনও দলের থেকে হিন্দুত্বের (Hindutva) সার্টিফিকেট দরকার নেই। দেশের যখনই আমাদের প্রয়োজন পড়বে, বরাবরই শিব সেনা হিন্দুত্বের তলোয়ার নিয়ে এগিয়ে আসবে।’’

সংবাদ সংস্থা এএনআইকে এবিষয়ে বলতে গিয়ে সঞ্জয় বলেন, ‘‘আমরা ছিলাম, আছি ও চিরকালই হিন্দুত্ববাদী থাকব। কিন্তু আমরা ওদের মতো হিন্দুত্বের তাস খেলি না।’’ প্রসঙ্গত, রবিবারই বিজেপিকে হিন্দুত্ব ইস্যুতে কটাক্ষ করেছিলেন তিনি। সোমবার থেকে মহারাষ্ট্রের সমস্ত ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান খোলার কথা ঘোষণা করা হলে বিজেপি সেই সিদ্ধান্তকে হিন্দুত্বের জয় বলে জানায়।

[আরও পড়ুন: সন্ত্রাসের দিন ফেরাতে চাইছে গুপকার জোট! কাশ্মীরে ‘আন্তর্জাতিক’ ষড়যন্ত্রের অভিযোগ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর]

গেরুয়া শিবিরের ওই মন্তব্যকে কেন্দ্র করেও আক্রমণাত্মক মেজাজে দেখা গিয়েছিল সঞ্জয়কে। তাঁর কথায়, ‘‘এটা কারও জয়-পরাজয়ের ব্যাপারই ন‌য়।’’ পাশাপাশি উলটে বিজেপিকেই কাঠগড়ায় তুলেছিলেন তিনি। তাঁর মতে, লকডাউন আরোপ করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। মন্দির বন্ধ রাখার সিদ্ধান্তও তাঁরই। ফলে এই বিষয়টিকে ‘হিন্দুত্বের জয়’ বলে বিজেপির দাবি একেবারেই অর্থহীন। বরাবরের মতো চাঁছাছোলা সুরে তিনি বলেন, ‘‘আশা করি প্রধানমন্ত্রী এই সব লোকদের বুঝিয়ে দেবেন জয়, পরাজয় মানেটা কী।’’

পরে তিনি আরও বলেন, ‘‘খামোখা কৃতিত্ব নেওয়ার কিছু নেই। ভগবানের ইচ্ছেতেই সকলে বাড়িতে ছিলেন। আবার এখন তাঁর ইচ্ছেতেই মন্দির খোলা হচ্ছে সতর্কতা বিধি মেনে।’’ প্রসঙ্গত, গত কয়েক মাস করোনা অতিমারীর দাপটে বন্ধ থাকার পর থেকে গত সোমবার থেকে খুলে দেওয়া হয়েছে মহারাষ্ট্রের সমস্ত ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান। তবে এখানে ঢুকতে হলে মানতে হবে কোভিড বিধি।

এদিকে, এর আগে বিহার নির্বাচন নিয়েও বারবার শিব সেনাকে বিজেপির বিরুদ্ধে তোপ দাগতে দেখা গিয়েছে। গত বছরের মহারাষ্ট্র বিধানসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করেই নতুন করে দুই প্রাক্তন জোটসঙ্গীর মধ্যে বিরোধটি স্পষ্ট হয়ে ওঠে।

[আরও পড়ুন: কেন বিহারের মন্ত্রিসভায় নেই সুশীল মোদি? চাঞ্চল্যকর দাবি আরজেডি নেতার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement