২১  আষাঢ়  ১৪২৯  বুধবার ৬ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

ভারতীয় বায়ুসেনার অফিসে সিঁধ কেটে হামলা, প্যারিসে রাফালে তথ্য চুরির চেষ্টা!

Published by: Bishakha Pal |    Posted: May 23, 2019 9:03 am|    Updated: May 23, 2019 9:46 am

Some people attempted break-in at IAF's Rafale facility in Paris

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাফালে বিমান কেমন তৈরি হচ্ছে দেখার জন্য প্যারিসে গিয়েছে ভারতীয় বায়ুসেনার একটি টিম। প্যারিসের শহরতলি এলাকা সেন্ট ক্লাউডে তৈরি করা হয়েছে ভারতীয় বায়ুসেনার প্রোজেক্ট ম্যানেজমেন্ট অফিস। প্রোজেক্ট ম্যানেজমেন্ট টিমের নেতৃত্বে আছেন বায়ুসেনার গ্রুপ ক্যাপ্টেন পদের এক অফিসার। ওই অফিসে অনেক গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র আছে। এই নথিগুলি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং স্পর্শকাতর। শত্রু দেশের হাতে রাফাল সংক্রান্ত নথিগুলি চলে গেলে তা ভারতের জাতীয় নিরাপত্তার পক্ষে বিপজ্জনক হতে পারে। অথচ সেই অফিসেই রাতের অন্ধকারে ঢুকে নথি ও নকশা চুরির চেষ্টা করল অজ্ঞাতপরিচয় দুষ্কৃতীরা।

এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে ভারতীয় বায়ুসেনা এবং ফরাসি প্রতিরক্ষা মন্ত্রকেও। প্রাথমিক তদন্তে অনুমান, যে কোনও দেশের গুপ্তচরসংস্থার পক্ষে থেকে রাতের অন্ধকারে গোপনে সিঁদ কেটে ভারতীয় বায়ুসেনার অফিসে ঢোকার চেষ্টা করা হয়েছিল। লক্ষ্য ছিল, রাফালে চুক্তি ও রাফাল বিমানের নকশা ও নথি চুরি করা বা তা হাতিয়ে নেওয়া। কিন্তু সেরকম কিছু না পেয়ে চলে যায় দুষ্কৃতীরা। জানা গিয়ছে, কোনও হার্ড ডিস্ক, পেনড্রাইভ বা নথি চুরি যায়নি। প্রশ্ন উঠেছে, প্যারিসের কাছে বায়ুসেনার অফিসের নিরাপত্তা ব্যবস্থা এত ঢিলেঢালা কেন? ইলেকট্রনিক নজরদারি ব্যবস্থা কোন কৌশলে অকেজো করতে পারল দুষ্কৃতীরা?

[ আরও পড়ুন: জানেন, ভোটের পর কোথায় যায় ইভিএম? ]

গত রবিবার তাদের অফিসে গোপনে কে বা কারা ঢোকার চেষ্টা করে। রাফাল নির্মাতা ‘দাসো’ কোম্পানি থেকে এই খবরের সত্যতা স্বীকার করা হয়েছে। কোনও দেশের গুপ্তচররা ওই চেষ্টা করেছিল কিনা, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। কোনও দেশের গুপ্তচরেরা সেই নথি চুরি করতে চেয়েছিল কিনা, জানতে চাইছে বায়ুসেনা। ভারতে অবস্থিত ফরাসী দূতাবাস থেকে এ সম্পর্কে কোনও মন্তব্য করা হয়নি। রাফাল যুদ্ধবিমান পরমাণু অস্ত্র বহন করতে পারে। প্রায় ৫৮ হাজার কোটি টাকার বিনিময়ে ভারত এই ধরনের ৩৬টি বিমান কিনছে। গোটা প্রকল্পের তদারকির জন্য সেখানে গ্রুপ ক্যাপ্টেন পদমর্যাদার এক অফিসারের নেতৃত্বাধীন বিশেষ প্রতিনিধি দল পাঠানো হয়েছে। এ ছাড়াও ভারতীয় আধিকারিকদের বিশেষ প্রশিক্ষণের ব্যবস্থাও করা হয়েছে সেখানে।  

ভারতের জন্য যে বিমানগুলি তৈরি হচ্ছে, কোনও শত্রু দেশের গোয়েন্দারা যদি তার প্রযুক্তিগত খুঁটিনাটি জেনে ফেলতে পারে, তাহলে যুদ্ধের সময় বিপদ ঘটবে। সদ্যসমাপ্ত লোকসভা ভোটে রাফাল ছিল বড় ইস্যু। কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী প্রায় প্রতিটি জনসভায় অভিযোগ করেছেন, ওই বিমান কিনতে গিয়ে বেআইনিভাবে সুবিধা পাইয়ে দেওয়া হয়েছে শিল্পপতি অনিল অম্বানিকে। এক্ষেত্রে বঞ্চিত হয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা হ্যাল। গোটা ঘটনাটি জানানো হয়েছে প্রতিরক্ষামন্ত্রককে। এখনও কোনও প্রতিক্রিয়া জানায়নি প্রতিরক্ষামন্ত্রক এবং ভারতীয় বায়ুসেনা। ঘটনার তদন্ত করছেন ফরাসি পুলিশ ও গোয়েন্দারা।

[ আরও পড়ুন: ভোটগণনার দিন হতে পারে অশান্তি, রাজ্যগুলিকে সতর্ক করল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক ]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে